July 19, 2024

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Monday, February 5th, 2024, 8:55 pm

অনায়াস জয় পেল শ্রীলঙ্কা

অনলাইন ডেস্ক :

আগের দিনের সেঞ্চুরিয়ান ইব্রাহিম জাদরান পারলেন না ইনিংস আর বড় করতে। ফিফটি করে ফিরলেন অভিজ্ঞ রেহমাত শাহও। এরপর যেন তাসের ঘরের মতো ভেঙে পড়ল আফগানিস্তানের ব্যাটিং। প্রাবাথ জায়াসুরিয়ার স্পিন ও আসিথা ফার্নান্দোর ছোবলে ৫০ রানে প্রতিপক্ষের শেষ ৭ উইকেট তুলে নিল শ্রীলঙ্কা। এরপর, অল্প রানের লক্ষ্যে তারা পৌঁছে গেল কোনো উইকেট না হারিয়েই। কলম্বোয় সোমবার দুই দলের একমাত্র টেস্টের চতুর্থ দিন ১০ উইকেটে জিতেছে শ্রীলঙ্কা। দিমুথ কারুনারাতেœ ও নিশান মাদুশকার আগ্রাসী ব্যাটিংয়ে ৫৬ রানের লক্ষ্য ৪৪ বলেই ছুঁয়ে ফেলেছে তারা।

প্রথম ইনিংসে ১৯৮ রান করা আফগানরা দ্বিতীয়ভাগে লড়াইটা ভালোই করে। বড় সংগ্রহের ভিতও পেয়েছিল তারা। কিন্তু ব্যাটিং ধসে ২৯৬ রানেই শেষ হয়ে যায় তাদের দ্বিতীয় ইনিংস। প্রথম ইনিংসে ৪৩৯ রান করেছিল লঙ্কানরা। আফগানদের ব্যাটিং ধসিয়ে দেওয়ার মূল কারিগর প্রাবাথ ১০৭ রানে নেন ৫ উইকেট। ১০ টেস্টের ক্যারিয়ারে এনিয়ে সপ্তমবার পাঁচ উইকেটের স্বাদ পেলেন তিনি। প্রথম ইনিংসে ৩ উইকেট নেওয়া এই বাঁহাতি স্পিনারই জিতেছেন ম্যাচ সেরার পুরস্কার। অবদান কম নয় ৬৩ রানে ৩ উইকেট নেওয়া আসিথারও। চামিকা গুনাসেকারার কনকাশন বদলি হিসেবে খেলা কাসুন রাজিথার শিকার দুই উইকেট। ১ উইকেটে ১৯৯ রান নিয়ে খেলতে নামা আফগানিস্তান দিনের সপ্তম ওভারেই হারায় রেহমাতকে। ৪৬ রানে দিন শুরু করা ব্যাটসম্যান ফেরেন ৫ চারে ৫৪ রান করে। ভাঙে ইব্রাহিমের সঙ্গে তার ১০৮ রানের জুটি।

কিছুক্ষণ পর ইব্রাহিমের লড়াই থামান প্রাবাথ। ২৫৯ বল ও ৩৮০ মিনিট স্থায়ী আফগান ওপেনারের ১২ চারে ১১৪ রানের চমৎকার ইনিংসের সমাপ্তি বোল্ড হয়ে। এরপর কেবলই দলটির ব্যাটসম্যানদের আসা-যাওয়ার মিছিল। ৯৩ রানে শেষ ৯ উইকেট হারায় সফরকারীরা। অধিনায়ক হাশমাতউল্লাহ শাহিদিকে টিকতে দেননি প্রাবাথ। পরে একে একে কাইস আহমেদ, জিয়াউর রেহমান ও নাভিদ জাদরানকে ফিরিয়ে পাঁচ উইকেট পূর্ণ করেন এই স্পিনার। সতীর্থদের হতাশাজনক ব্যাটিংয়ের মাঝে একপ্রান্ত আগলে রেখে ৪১ রানে অপরাজিত থাকেন পাঁচে নামা নাসির জামাল। আফগানিস্তানের শেষ ৬ ব্যাটসম্যানের কেউ করতে পারেননি ৫ রানও। অল্প রান তাড়ায় আক্রমণের পথ বেছে নেন শ্রীলঙ্কার দুই ওপেনার। ১ ছক্কা ও ৩ চারে ২২ বলে ৩২ রান করে দলের জয় সঙ্গে নিয়ে ফেরেন কারুনারাতেœ। ৪টি চারে ২৩ বলে ২২ রান করেন মাদুশকা।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

আফগানিস্তান ১ম ইনিংস: ১৯৮
শ্রীলঙ্কা ১ম ইনিংস: ১০৯.২ ওভারে ৪৩৯ (আগের দিন ৪১০/৬) (সামারাউইক্রামা ২৭, গুনাসেকারা ১৬ আহত অবসর, প্রাবাথ ২, ভিশ্ব ০*, আসিথা ০; মাসুদ ১৯.২-৩-৭৬-২, সালিম ১২.১-০-৫৭-০, নাভিদ ২২.৫-৪-৮৩-৪, জিয়াউর ২৮-২-৯০-০, কাইস ২২-২-৯৮-২, রেহমাত ৩-০-১০-০, শাহিদি ২-০-১১-০)

আফগানিস্তান ২য় ইনিংস: ১১২.৩ ওভারে ২৯৬ (আগের দিন ১৯৯/১) (ইব্রাহিম ১১৪, নুর ৪৭, রেহমাত ৫৪, শাহিদি ১৮, নাসির ৪১, ইকরাম ১, কাইস ১, জিয়াউর ০, নাভিদ ৪, মাসুদ ০, সালিম ২; ভিশ্ব ১৪-৩-৩৭-০, আসিথা ২১.৩-২-৬৩-৩, রাজিথা ২০-৫-৫৯-২, প্রাবাথ ৪৭-১০-১০৭-৫, ধানাঞ্জয়া ১০-১-২৩-০)

শ্রীলঙ্কা ২য় ইনিংস: (লক্ষ্য ৫৬) ৭.২ ওভারে ৫৬/০ (কারুনারাতেœ ৩২*, মাদুশকা ২২*; জিয়াউর ৩-০-১২-০, নাভিদ ৩-০-৩০-০, মাসুদ ১-০-৫-০, কাইস ০.২-০-৮-০)
ফল: শ্রীলঙ্কা ১০ উইকেটে জয়ী
ম্যান অব দা ম্যাচ: প্রাবাথ জায়াসুরিয়া