December 9, 2021

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Saturday, November 6th, 2021, 8:09 pm

অবশেষে এনরিকের বিবেচনায় রিয়ালের খেলোয়াড়

অনলাইন ডেস্ক :

ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপের স্কোয়াড নিয়ে প্রশ্নবিদ্ধ হয়েছিলেন স্পেন কোচ লুইস এনরিকে। রিয়াল মাদ্রিদের কোনো খেলোয়াড় ছাড়াই দল গঠন করেছিলেন তিনি। শিরোপা না পেলেও আত্মবিশ্বাসী এনরিকে জানান, স্কোয়াড তৈরিতে কোনো ঘাটতি রাখেননি তিনি। যারা ফর্মে রয়েছে শুধু তাদেরকে নিয়েই ইউরো মিশন শুরু করেছেন। তবে সেবারই শেষ নয়, একে একে বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের ম্যাচ কিংবা নেশন্স লীগ- কোথাও এনরিকের বিবেচনায় আসতে পারেননি লস ব্লাঙ্কোরা। লম্বা বিরতির পর অবশেষে স্পেন জাতীয় দলে ঠাঁই হলো কোনো রিয়াল মাদ্রিদ তারকার, ডিফেন্ডার দানি কারভাহাল। বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে নিজেদের পরবর্তী দুই ম্যাচের জন্য ২৪ সদস্যের দল ঘোষণা করেছে স্পেন। গত মার্চের পর এই প্রথম রিয়াল মাদ্রিদের কোনো ফুটবলার জায়গা পেলো স্পেনের স্কোয়াডে। রাইট ব্যাক কারভাহাল চোটের কারণে গত মৌসুমের অধিকাংশ সময়ই ছিলেন মাঠের বাইরে। সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে খেলতে পেরেছিলেন মাত্র ১৫টি ম্যাচ। বিশ্বকাপ বাছাইয়ে ইউরোপিয়ান অঞ্চলের লড়াইয়ে ‘বি’ গ্রুপে ৬ ম্যাটেচ ৪ চয় ও এক ড্রয়ে ১৩ পয়েন্ট নিয়ে দুইয়ে আছে ২০১০ বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা। কাতার বিশ্বকাপে সরাসরি খেলতে হলে পরের দুই ম্যাচেই জিততে হবে এনরিকের দলকে। আগামী ১১ই নভেম্বর গ্রিসের মুখোমুখি হবে স্পেন। এর তিনদিন পর তাদের প্রতিপক্ষ সুইডেন। দল ঘোষণার পর এনরিকে বলেন, ‘সত্যি কথা বলতে গেলে আমি ভীষণ চাপ অনুভব করছি। উয়েফা নেশন্স লীগের ফাইনালের চেয়ে বেশি চাপে রয়েছি আমি। আমরা বিশ্বকাপে খেলার জন্য খেলব।’ স্কোয়াড নিয়ে আত্মবিশ্বাসী এনরিকে বলেন, ‘আমাদের দলের খেলোয়াড়রা তরুণ হলেও বেশ অভিজ্ঞ এবং পরিপক্ক। এমন আন্তর্জাতিক ম্যাচে দায়িত্ব নিয়ে খেলার সক্ষমতা রয়েছে তাদের।’
গোলকিপার: ডেভিড ডি গিয়া (ম্যানইউ), রবার্ট সানচেজ (ব্রাইটন) এবং উনাই সিমোন (বিলবাও)।
ডিফেন্ডার: দানি কারভাহাল (রিয়াল মাদ্রিদ), পাও তরেস (ভিয়ারিয়াল), এরিক গার্র্সিয়া (বার্সেলোনা), জর্ডি আলবা (বার্সেলোনা), সিজার অ্যাজপিলিকুয়েতা ( চলসি), ইনিগো মার্টিনেজ (বিলবাও), আয়মেরিক লাপোর্তে (ম্যান সিটি)।
মিডফিল্ডার: সার্জিও বুসকেটস (বার্সেলোনা), গাভি (বার্সেলোনা), কার্লোস সলের (ভ্যালেন্সিয়া), রদ্রি (ম্যানইউ), কেকাকে (অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ), মাইকেল মেরিনো (সোসিয়েদাদ)।
ফরোয়ার্ড: আনসু ফাতি (বার্সেলোনা), পাবলো সারাবিয়া (লিসবন), রদ্রিগো মরেনো (লিডস), ইয়েরেমি পিনো (ভিয়ারিয়াল), পাবলো ফোরনালস (ওয়েস্ট হ্যাম), দানি ওলমো (লাইপজিগ), আলভারো মোরাতা (জুভেন্টাস), ব্রাহিম দিয়াজ (এসি মিলান)।