January 21, 2022

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Wednesday, January 12th, 2022, 7:56 pm

অবশেষে ভিসা জটিলতা নিয়ে মুখ খুললেন জকোভিচ

অনলাইন ডেস্ক :

গত কিছুদিন ধরে ক্রীড়া জগতের সবকিছু ছাপিয়ে আলোচনার কেন্দ্রে ছিলেন সার্বিয়ান টেনিস তারকা নোভাক জকোভিচ। আলোচনার সূত্রপাত হয়, ২০ বারের গ্র্যান্ড স্ল্যাম জয়ী তারকার অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে খেলতে যাওয়া নিয়ে। টেনিসের এক নম্বর তারকা অস্ট্রেলিয়ায় পৌঁছানোর পর তাঁর ভিসা বাতিল করে ইমিগ্রেশন কর্তৃপক্ষের হোটেলে আটকে রাখা হয়। অস্ট্রেলিয়ার পক্ষ থেকে জানানো হয়, দেশটিতে ভ্রমণের ক্ষেত্রে জকোভিচ শর্ত পূরণ করেননি। তাই তাঁর ভিসা বাতিল করা হয়েছে ও তাঁকে পুনরায় দেশে ফেরত পাঠানো হবে। ঘটনাটি নিয়ে ঝড় ওঠে টেনিস বিশ্বে। ফেরত পাঠানো এড়াতে অস্ট্রেলিয়ার হাই কোর্টে আবেদন করেন জকোভিচ। তোপের মুখে পড়ে অস্ট্রেলিয়ার আদালত শেষ পর্যন্ত গত সোমবার জকোভিচকে মুক্তি দেওয়ার আদেশ দেন। এরপরই মেলবোর্নের টেনিস কোর্টে অনুশীলনে ফেরেন সার্বিয়ান তারকা। অনুশীলনে ফেরার একদিন পর বুধবার (১২ জানুয়ারী) পুরো ব্যাপারটি নিয়ে মুখ খুলেছেন জকোভিচ। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির প্রতিবেদন অনুসারে সার্বিয়ান তারকা দাবি করলেন, অস্ট্রেলিয়ার ট্রাভেল ডিক্লারেশন ফর্ম পূরণের সময় ভুল বক্সে টিক করেছিলেন তাঁর এজেন্ট। ভিসা সংক্রান্ত যাবতীয় গোলযোগ এজেন্টের ভুলের কারণে হয়েছে।
বুধবার (১২ জানুয়ারী) রড লেভার এরিনায় অস্ট্রেলিয়ান সতীর্থ তৃষ্টান স্কুলকেটের সঙ্গে পুরোদমে অনুশীলন সারেন জকোভিচ। অনুশীলন শেষে নিজের সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি বিবৃতি পোস্ট করেন। ইনস্টাগ্রামে এক বিবৃতিতে জকোভিচ লেখেন, ‘ফর্মে যে কিছু ভুল তথ্য দেওয়া হয়েছে। মূলত ট্রাভেল ডিক্লারেশন ফর্ম আমার সাপোর্ট টিম পূরণ করেছিল। ভুলবশত ভুল বক্সে টিক দিয়েছিল আমার এজেন্ট। এর জন্য সে ক্ষমাপ্রার্থী। এটা একজন মানুষের ত্রুটি এবং এটা ইচ্ছাকৃত করা হয়নি। এই বিষয়টির সুরাহার জন্য আমার টিম অস্ট্রেলিয়া সরকারকে সবরকম তথ্য দিয়ে সাহায্য করেছে।’ বিবিসির খবর অনুযায়ী, ভিসা ফর্মে জকোভিচ অস্ট্রেলিয়া ভ্রমণের আগে ১৪ দিন কোথাও ভ্রমণ করেননি বলে তথ্য দিয়েছেন। অথচ তাঁর সাম্প্রতিক ভ্রমণ ইতিহাস বলছে, তিনি সার্বিয়ার বিভিন্ন জায়াগা ও স্পেনে গিয়েছিলেন। সার্বিয়াতে বিভিন্ন অনুষ্ঠানেও দেখা গিয়েছিল জকোভিচকে। যদিও এসব অভিযোগ অস্বীকার করেন জকোভিচ। ইমিগ্রেশন ম্যানেজার অ্যালেক্স হকের অফিস থেকে জানানো হয়, জকোভিচের ভিসা বাতিলের বিরুদ্ধে সবরকম তথ্য দেওয়া হয়েছে তাঁর আইনি টিমের পক্ষ থেকে। ভিসা ইস্যুতে রায় জোকারের পক্ষে গেলেও শেষ পর্যন্ত করোনার টিকা না নেওয়া জকোভিচ অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে অংশ নিতে পারবেন কি না সেটা এখনো নিশ্চিত নয়। আগামী ১৭ জানুয়ারি থেকে মাঠে গড়াবে অস্ট্রেলিয়া ওপেন। এত ঝামেলার মধ্যেও অবশ্য অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে অংশ নিতে আশাবাদী জকোভিচ। টুর্নামেন্টে সাফল্য অর্জনে চোখ রাখছেন এই টেনিস তারকা। রড লেভার অ্যারেনায় অনুশীলনে ফিরে তেমনই বার্তা দিয়েছেন। নিজের কোচসহ একটি ছবি পোস্ট করে জকোভিচ লিখেছেন, ‘যা কিছু ঘটেছে তা সত্ত্বেও আমি এখানে থাকতে চাই এবং অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার চেষ্টা করতে চাই। আমার মনোযোগ এখন সেদিকেই। চমৎকার সব সমর্থকদের সামনে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ইভেন্টগুলির একটিতে খেলতে আমি এখানে এসেছি।’