May 26, 2022

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Sunday, April 24th, 2022, 7:45 pm

অবশেষে রোজার ঈদে মুক্তি পাচ্ছে ‘বিদ্রোহী’

অনলাইন ডেস্ক :

দুই বছর ধরেই ঝুলে আছে শাকিব খান অভিনীত ছবি ‘বিদ্রোহী’। কয়েক বার দিনক্ষণ ঠিক হলেও অবশেষে রোজার ঈদে মুক্তি পাচ্ছে এটি। সেলিম খান প্রযোজিত এ ছবিটি পর্দায় আনার পুরো প্রস্তুতি চললেও তাতে যেন সায় নেই কিং খানের! একেবারে গুটিয়ে নিয়েছেন নিজেকে। করছেন না কোনও প্রচারণা। অনেকের মতেই কারণটা- প্রযোজক-নায়ক দ্বন্দ্ব। তাই ঈদ ঘনিয়ে এলেও ছবিটি নিয়ে ‘টুঁ’ শব্দটি করেননি শাকিব। প্রচারণাবিহীন এ ছবির হাল অবশেষে ধরলেন নায়িকা। নামলেন ছবিটি নিয়ে। সিনেমাতে শাকিবের বিপরীতে দেখা যাবে শবনম বুবলীকে। তিনিই রোববার (২৪ এপ্রিল) থেকে এর প্রচারণায় নেমেছেন। নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে চালাচ্ছেন প্রচারণা। আর সেখানেও থাকলো দ্বন্দ্বের ছটা। লেখেন, সিনেমা পুরনো হোক কিংবা নতুন হোক, ভালো হোক কিংবা বেশি ভালো হোক- যাই হোক না দিন শেষে আমাদের অভিনীত এবং আমাদের শ্রম আছে। অথবা সিনেমার সাথে সম্পৃক্ততা থাকুক বা না থাকুক, সব সিনেমাই আমাদের হওয়া উচিত, নিজেদের ভাবা উচিত। ‘বিদ্রোহী’ আসছে এবারের ঈদ উল ফিতরে। জানা গেছে, আগামী ঈদে মুক্তি পেতে যাচ্ছে মোট তিনটি আলোচিত সিনেমা। এরমধ্যে শাকিব খানেরই দুটি। একটি ‘বিদ্রোহী’, অপরটি ‘গলুই’। ‘গলুই’ সিনেমা নিয়ে সরব থাকলেও ‘বিদ্রোহী’ সিনেমার প্রচারণায় অনুপস্থিত এই তারকা। বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান করছেন তিনি। তবে ছবিটি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও কোনও শব্দ খরচ করেনি। উল্লেখ্য, ২০১৮ সালে শুরু হয় ‘একটু প্রেম দরকার মাননীয় সরকার’ নামের ছবির। তিনবার নাম পরিবর্তন করে ‘বিদ্রোহী’ নামেই সেন্সর ছাড়পত্র পেয়েছে সিনেমাটি। এতে শাকিব খান ও শবনম বুবলী ছাড়াও অভিনয় করেছেন নবাগত মৃদুলা, সাদেক বাচ্চু, মিশা সওদাগর, অমিত হাসান, শিবা সানু, ডন, সাবেরী আলম প্রমুখ। ছবিটি পরিচালনা করেছেন শাহীন সুমন। অন্যদিকে, বহু আগে থেকেই সেলিম ও শাকিব খান দ্বন্দ্ব। সবশেষ গত বছর তারা প্রকাশ্যে কথার লড়াইয়েও নেমেছিলেন। শাকিবের বিরুদ্ধে শুটিংয়ে সময় না দেওয়া, সিডিউল ফাঁসানোর নানা অভিযোগ এনেছিলেন সেলিম খান। কথা বলেন তার অতিরিক্ত পারিশ্রমিক নিয়েও। অন্যদিকে, সংবাদ সম্মেলনে শাকিব খানও একহাত নিয়েছিলেন। সেলিম খানের শাপলা মিডিয়া প্রযোজিত ১০০ চলচ্চিত্রের প্রজেক্টকে সিনেমা নষ্টের হাতিয়ার হিসেবে অভিহিত করেন তিনি। প্রসঙ্গত, শাকিব খানকে ‘আমি নেতা হবো’ সিনেমায় চুক্তিবদ্ধ করে প্রথম আলোচনায় আসে প্রযোজনা সংস্থা শাপলা মিডিয়া। এরপর ‘চিটাঙ্গাইয়া পোয়া নোয়াখাইল্যা মাইয়া’, ‘ক্যাপ্টেন খান’ ও ‘শাহেনশাহ’ এর মতো ছবি তারা এনেছে।