October 16, 2021

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Tuesday, October 12th, 2021, 8:08 pm

আইপিএলে অধিনায়ক কোহলির অধ্যায় শেষ

অনলাইন ডেস্ক :

আইপিএলে এবারই শেষবারের মতো রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরুর (আরসিবি) নেতৃত্বে ছিলেন বিরাট কোহলি। আগেই অধিনায়কত্ব ছাড়ার ঘোষণা দেওয়ায় আগামী আইপিএল থেকে আর নেতৃত্ব দিতে দেখা যাবে না তাকে। এদিকে, অধিনায়কের শেষটা রাঙাতে ব্যাঙ্গালুরু টিমও যেন দৃঢ় প্রতিজ্ঞায় নেমেছিল। প্রথম পর্বে দারুণ খেলে তৃতীয় দল হিসেবে প্লে-অফ নিশ্চিত করেছিল তারা। তবে শেষ পর্যন্ত এলিমিনেটরের ম্যাচে গত সোমবার কলকাতার কাছে হেরে বাদ পড়তে হয়েছে আরসিবিকে। সেই সঙ্গে শেষ হয়ে গেল বিরাট কোহলির অধিনায়কত্বের যুগও। আইপিএল চলাকালেই নেতৃত্ব ছাড়ার ঘোষণা দেওয়া বিরাট কোহলি শেষটা চেয়েছিলেন শিরোপায় রাঙাতে। কিন্তু বিগত বছরগুলোর ন্যায় এবারও ট্রফি অধরাই রইল তার কাছে। ক্রিকেট বিশ্বের অন্যতম জনপ্রিয় এই ফ্রাঞ্চাইজি লিগে হার-জিতের পরিসংখ্যানে ক্যাপ্টেন কোহলির রেকর্ড অনন্য। তবে নেতা হিসেবে একটাও ট্রফি জিততে না পারার ব্যর্থতা কখনো মুছে ফেলতে পারবেন না বিরাট কোহলি। আইপিএল ইতিহাসে বিরাট কোহলি আরসিবিকে নেতৃত্ব দিয়েছেন ১৪০টি ম্যাচে। কোহলির নেতৃত্বে ব্যাঙ্গালুরু ম্যাচ জিতেছে ৬৬টি। হেরেছে ৭০টি ম্যাচে। এ ছাড়া ৪টি ম্যাচের ফল নির্ধারিত হয়নি। জয়ের শতকরা হার ৪৭.১৭। নেতা হিসেবে ১৩৯টি ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে কোহলি করেছেন ৪ হাজার ৮৭১ রান। আর সেঞ্চুরি করেছেন ৫টি। হাফ-সেঞ্চুরি আছে ৩৫টি। উল্লেখযোগ্য বিষয় হল, ব্যাঙ্গালুরুর দলপতি হিসেবে প্রথম ম্যাচে ৩৯ রান করেছিলেন কোহলি। গত সোমবার শেষ ম্যাচেও করলেন ৩৯ রান। বিদায় বেলার কোহলি বলেন, ‘দলে এমন একটা সংস্কৃতি তৈরির চেষ্টা করেছি আমি, যেখানে তরুণ ক্রিকেটাররা এসে আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে নিজেদের মেলে ধরতে পারে। এটুকুই বলতে পারি, আমি এই ফ্র্যাঞ্চাইজির হয়ে প্রতি মৌসুমে ১২০ শতাংশ দেওয়ার চেষ্টা করেছি। আমি নিজের সেরাটা দিয়েছি সবসময়। তবে এখন সময় এসেছে নতুন করে ভাবার।’ বিশ্বকাপ শুরুর আগে ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলির অধিনায়কত্ব ছাড়া নিয়ে তোলপাড় পড়ে গিয়েছিল ক্রিকেটবিশ্বে। টিম ইন্ডিয়ার হয়ে টি-টোয়েন্টিতে ক্যাপ্টেন্সি ছাড়ার ঘোষণা দেওয়ার পর আইপিএলে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরুরও দায়িত্ব ছাড়ার কথাও জানিয়ে দিয়েছিলেন তিনি। এরপরই প্রশ্ন উঠেছিল, কেন বিশ্বকাপের পর টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের অধিনায়কত্ব ছেড়ে দেবেন, কেনই-বা ব্যাঙ্গালুরুর অধিনায়কত্বও ছেড়ে দিচ্ছেন। এতদিন এ ব্যাপারে খোলাসা না করলেও এবার মুখ খুললেন খোদ কোহলি। অকপটে জানালেন, তিনি কোনো দলের সঙ্গেই প্রতারণা করতে চাননি। ভারতের সম্প্রচারমাধ্যম স্টার স্পোর্টসকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে রোববার কোহলি বলেন, ‘প্রথমত কাজের চাপ একটা বড় বিষয়। এ ছাড়া দলের অধিনায়ক হিসেবে আমার ওপর যে দায়িত্ব, তা নিয়ে কখনো ফাঁকি দিতে চাইনি।’ তিনি বলেন, ‘আমি যদি কোনো কিছুতে ১২০ শতাংশ দিতে না পারি, তাহলে সেটা আঁকড়ে পড়ে থাকার মানুষ আমি নই। জোর করে কোনো কিছু করার লোক আমি নই। এ ব্যাপারে বরাবরই আমি নিজের কাছে দায়বদ্ধ।’