October 16, 2021

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Monday, October 11th, 2021, 8:20 pm

‘আইসিসি প্লেয়ার অব দা মান্থ’-এ সেরা লামিছানে

অনলাইন ডেস্ক :

‘আইসিসি প্লেয়ার অব দা মান্থ’-এর সংক্ষিপ্ত তালিকায় জায়গা পেলেও শেষ পর্যন্ত পুরস্কারটি জিততে পারলেন না নাসুম আহমেদ। বাংলাদেশের এই বাঁহাতি স্পিনার ও যুক্তরাষ্ট্রের জাসকারান মালহোত্রাকে হারিয়ে সেপ্টেম্বরের সেরা ক্রিকেটার নির্বাচিত হয়েছেন সন্দিপ লামিছানে। আইসিসির মাস সেরার সংক্ষিপ্ত তালিকায় প্রথমবার জায়গা পেয়েই বাজিমাত করলেন নেপালের এই লেগ স্পিনার। তার সেরা হওয়ার কথা সোমবার বিবৃতি দিয়ে জানায় বিশ্ব ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ন্তা সংস্থা। গত মাসে বিশ্বকাপ সুপার লিগ-২ এ অসাধারণ বোলিং করেন লামিছানে। ৬ ওয়ানডেতে ১৮ উইকেট নেন ওভারপ্রতি কেবল ৩.১৭ রান দিয়ে। পাপুয়া নিউগিনির বিপক্ষে ৩৫ রানে ৪ ও ১১ রানে ৬ উইকেট নেন তিনি। এরপর ওমানের বিপক্ষে ১৮ রান দিয়ে নেন চারটি। মাস জুড়ে দুর্দান্ত পারফরম্যান্সের পুরস্কারই মিলেছে ২১ বছর বয়সী তরুণ এই ক্রিকেটারের। হেরে যাওয়া নাসুম নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষে পাঁচ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজে বাংলাদেশের ৩-২ ব্যবধানে জয়ে বল হাতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছিলেন। বাঁহাতি স্পিনে ওভারপ্রতি ৪.৭৮ রান দিয়ে উইকেট নিয়েছিলেন ৮টি, যা সিরিজের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ। চতুর্থ ম্যাচে ১০ রানে ৪ উইকেট নিয়ে গড়েছিলেন ক্যারিয়ার সেরা বোলিংয়ের কীর্তি। ধারাবাহিক পারফরম্যান্সেও তিনিও প্রথমবার মনোনিত হন মাস সেরার লড়াইয়ে। আর জাসকারান আলোচনায় আসেন ওয়ানডেতে দ্বিতীয় ও আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ইতিহাসের চতুর্থ ব্যাটসম্যান হিসেবে ওভারে ছয় ছক্কা মেরে। পাপুয়া নিউগিনির বিপক্ষে ওই ম্যাচে তিনি খেলেন ১৭৩ রানের অপরাজিত ইনিংস। ওয়ানডেতে পাঁচে নেমে সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড যা। মেয়েদের সেরা হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন ইংল্যান্ডের হিদার নাইট। ইংল্যান্ড অধিনায়ক পেছনে ফেলেছেন সতীর্থ চার্লি ডিন ও দক্ষিণ আফ্রিকার লিজেল লিকে। নাইট ছিলেন নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষে ইংল্যান্ডের ৪-১ ব্যবধানে জেতা ওয়ানডে সিরিজের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক। একটি করে সেঞ্চুরি ও ফিফটিতে করেন ২১৪ রান। সঙ্গে বল হাতেও তিনি রাখেন অবদান। ওভারপ্রতি ৪.৬৬ রান দিয়ে উইকেট নেন ৩টি। আইসিসির ভোটিং একাডেমি ও ক্রিকেট সমর্থকদের যৌথ ভোটে নির্বাচন করা হয় মাসের সেরা দুই ক্রিকেটার। ভোটিং একাডেমিতে আছেন জ্যেষ্ঠ ক্রীড়া সাংবাদিক, সাবেক ক্রিকেটার ও ধারাভাষ্যকাররা। তারা ভোট দেন ই-মেইলে, আইসিসির নিবন্ধিত সমর্থকদের ভোট দিতে হয় আইসিসির ওয়েবসাইটে। সেরার রায়ে ভোটিং একাডেমির ভোট বিবেচনায় নেওয়া হয় শতকরা ৯০ ভাগ, সমর্থকদের ভোট বাকি ১০ ভাগ।