February 9, 2023

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Tuesday, December 27th, 2022, 9:29 pm

আগামীকাল মেট্রোরেলের প্রথম অংশের উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামীকাল (বুধবার) উত্তরা থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত মেট্রোরেলের প্রথম অংশের উদ্বোধন করবেন।

সকাল ১১টায় উত্তরা সেক্টর-১৫ খেলার মাঠ থেকে প্রকল্পের কার্যক্রম উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী।

ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেড (ডিএমটিসিএল) কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, যেহেতু সরকার সীমিত পরিসরে কার্যক্রম শুরু করছে তাই উত্তরা থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত ১১ দশমিক ৭৩ কিলোমিটার দূরত্ব পাড়ি দিতে ২০ মিনিট সময় লাগবে। তবে শিগগিরই এটি কমে ১৬-১৭ মিনিটে পৌঁছাবে।

মেট্রোরেল উদ্বোধন উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথক বাণীতে দেশবাসীকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

রাষ্ট্রপতি তার বাণীতে বলেন, ‘নির্ধারিত সময়ের মধ্যে উত্তরা থেকে কমলাপুর পর্যন্ত মেট্রোরেলের পুরো সেকশনের বাস্তবায়ন আশা করছি।’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার বাণীতে বলেন, ‘ঢাকা মেট্রোপলিটনের বাসিন্দা ও স্টেকহোল্ডারদের সার্বিক সহযোগিতা ছাড়া মেট্রোরেল নির্মাণ ছিল দুঃসাধ্য কাজ। একটি সুন্দর মহানগর গড়তে তাদের সহযোগিতার জন্য ধন্যবাদ।’

ডিএমপির মিডিয়া উইংয়ের উপকমিশনার (ডিসি) মো. ফারুক হোসেন বলেন, নির্মাণকাজ শুরুর পর থেকেই ডিএমপি মেট্রোরেল প্রকল্পের নিরাপত্তা দিয়ে আসছে।

আগামীকাল আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরুর পর থেকে মেট্রোরেল কর্তৃপক্ষ ইতোমধ্যেই ডিএমপিকে নিরাপত্তার জন্য অনুরোধ করেছে, তাই রিজার্ভ ফোর্সসহ স্থানীয় থানা পুলিশ নিরাপত্তা দেবে বলে জানান তিনি।

ডিসি (মিডিয়া) আরও জানিয়েছেন, মেট্রোরেল কর্তৃপক্ষ প্রায় তিন হাজার পুলিশ সদস্যদের অনুরোধ করেছে তবে ডিএমপি স্টেশনগুলোর নিরাপত্তা ও সুরক্ষা নিশ্চিত করতে পর্যাপ্ত সংখ্যক সরবরাহ করবে।

প্রথম অংশ সম্পর্কে জানার বিষয়

ঢাকার ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মো. ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেড (ডিএমটিসিএল) এমএন সিদ্দিক ইউএনবিকে জানিয়েছেন, প্রথম পর্যায়ে স্বল্প যাত্রী বহনকারী সীমিত সংখ্যক ট্রেন সকাল ও বিকালে স্বল্প সময়ের জন্য চলবে এবং অভ্যস্ত হওয়ার সময় হিসেবে তিন মাস গতি স্বাভাবিকের চেয়ে কম হবে।

যাত্রীদের নতুন আসন এবং টিকিট ব্যবস্থার সঙ্গে অভ্যস্ত হতে সাহায্য করার জন্য ট্রেনগুলো প্রথমে স্টেশনে স্বাভাবিকের চেয়ে কিছুটা বেশি সময় অপেক্ষা করবে। ট্রেনের সংখ্যা বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে ট্রেন স্টেশনগুলোতে কম সময় অপেক্ষা করবে, যার ফলে ভ্রমণের সময় কমবে।

শুরুতে সব স্টেশনে ট্রেন থামবে না। ট্রেনটি উত্তরা স্টেশন থেকে ছেড়ে পল্লবীতে থামবে, তারপর না থামিয়ে আগারগাঁও যাবে। পরে মধ্যবর্তী স্টেশনগুলোতে ট্রেন থামানো শুরু হবে।

তিনি জানান, প্রাথমিকভাবে ট্রেনটি ২০০ থেকে ২৫০ জন যাত্রী এবং পরে ৭০০ থেকে ৮০০ যাত্রী বহন করবে।

উত্তরা থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত যে ১২টি ট্রেন চলাচলের জন্য প্রস্তুত রাখা হয়েছে, তার মধ্যে ১০টি নিয়মিত চলবে এবং যেকোনো সমস্যার জন্য দুটিকে স্ট্যান্ডবাই রাখা হবে।

টিকিট সিস্টেম এবং ভাড়া

ঢাকায় মেট্রোরেলে ভ্রমণ করতে চান এমন যাত্রীদের জন্য টিকিটের জন্য দুটি ব্যবস্থা রয়েছে: অটোমেটেড ও ম্যানুয়াল।

অটোমেটেড ব্যবস্থায় যাত্রীরা নিজেরাই তাদের টিকিট পেতে পারেন, তবে একজন যাত্রী একবারে সর্বোচ্চ পাঁচটি টিকিট পেতে পারবেন।

এছাড়াও, যারা অটোমেটেড ব্যবস্থাকে বিভ্রান্তিকর মনে করেন, তারা কাউন্টার থেকে নগদ অর্থ প্রদানের মাধ্যমে টিকিট কেনার প্রচলিত পদ্ধতি অনুসরণ করে ম্যানুয়ালি তাদের টিকিট পেতে পারেন।

টিকিট পাওয়ার পর সকল যাত্রীকে একটি স্মার্ট পাসকার্ড ব্যবহার করে গেট দিয়ে প্রবেশ করতে হবে এবং তারা তৃতীয় তলায় প্ল্যাটফর্মে যেতে এসকেলেটর ব্যবহার করতে পারবে।

ঢাকা মেট্রোরেলের সর্বনিম্ন ভাড়া ২০ টাকা এবং উত্তরা থেকে মতিঝিল পর্যন্ত সর্বোচ্চ ভাড়া ১০০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে।

প্রথম ধাপে উত্তরা স্টেশন থেকে আগারগাঁও স্টেশন পর্যন্ত ভাড়া হবে ৬০ টাকা। উত্তরা (উত্তর) থেকে উত্তরা (সেন্ট্রাল) এবং উত্তরা-(দক্ষিণ) স্টেশনের ভাড়া ২০ টাকা।

এছাড়া উত্তরা উত্তরের প্রথম স্টেশন থেকে পল্লবী ও মিরপুর-১১ স্টেশন পর্যন্ত ভাড়া ৩০ টাকা, মিরপুর ১০ ও কাজীপাড়া স্টেশন পর্যন্ত ৪০ টাকা এবং শেওড়াপাড়া স্টেশন পর্যন্ত ভাড়া ৫০ টাকা।

ডিএমটিসিএল এর মতে, ২০২৪ সালের শেষ নাগাদ মতিঝিল পর্যন্ত রেল চলাচল এবং ২০২৫ সালের মধ্যে কমলাপুর শুরু হতে পারে।

২০২৪ সালের ডিসেম্বরের মধ্যে আগারগাঁও থেকে কমলাপুর রুটে ২৪টি ট্রেন দিয়ে মেট্রোরেল চলাচল শুরু করবে।

ট্রেনটি ঘণ্টায় ১০০ কিলোমিটার বেগে চলবে বলে ২১ দশমিক ১৬ কিলোমিটার দূরত্ব অতিক্রম করে আগারগাঁও থেকে কমলাপুর পৌঁছতে ৩৮ থেকে ৪০ মিনিট সময় লাগবে।

মেট্রোরেল প্রকল্পটি ২০১২ সালে নেয়া হয়েছিল এবং পরের বছর জাপানের উন্নয়ন সহযোগিতা সংস্থা জাপান ইন্টারন্যাশনাল কো-অপারেশন এজেন্সির (জাইকা) সঙ্গে একটি ঋণ চুক্তি সই হয়।

২০১৭ সালে প্রকল্পের মূল নির্মাণ কাজ শুরু হয়।

—-ইউএনবি