September 27, 2022

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Tuesday, September 20th, 2022, 8:54 pm

আগের অবস্থায় ফিরে গেছে প্রয়াত মেয়র আনিসুলের স্বপ্নের সড়ক!

প্রায় সাত বছর আগে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র প্রয়াত আনিসুল হক রাজধানীর সাত রাস্তা মোড় থেকে তেজগাঁও রেলক্রসিং পর্যন্ত অবৈধ ট্রাকস্ট্যান্ড উচ্ছেদ করে তাঁর স্বপ্ন বাস্তবায়ন করেছিলেন। কিন্তু এই স্থানটি আবারও ট্রাকচালক ও কাভার্ড ভ্যানের মালিকদের দখলে চলে গেছে।

যার ফলে পথচারী ও স্থানীয়দের যাতায়াতের সমস্যা হচ্ছে এবং ট্রাকস্ট্যান্ড সংলগ্ন এলাকায় দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে।

ঢাকা উত্তরের প্রয়াত মেয়র আনিসুল হক ২০১৫ সালে ট্রাক মালিকদের সহিংস প্রতিবাদ সত্ত্বেও শিল্প এলাকার রাস্তাটি দখলের হাত থেকে পুনরুদ্ধার করেছিলেন। কিন্তু এখনও অবৈধভাবে পার্ক করা কয়েকশ’ ট্রাক, কাভার্ড ভ্যান ও অন্যান্য ভারী যানবাহন দিয়ে সড়কজুড়ে লাইন ধরে রাখা হয়েছে।

রাস্তার দুই পাশে ট্রাক, পিক-আপ ও কাভার্ড ভ্যানগুলো অবৈধভাবে পার্কিং করে রাখা হয়, যার ফলে রাস্তাটি অনেকাংশে সংকুচিত হয়ে যাওয়ায় অন্যান্য যানবাহন চলাচল করা কঠিন হয়ে পড়েছে।

তেজতুরী বাজারের বাসিন্দা সাবরিনা বেগম বলেন, ‘ভারী যানবাহনের পার্কিংয়ের কারণে, ফুটপাথে মানুষের হাঁটার জন্য পর্যাপ্ত জায়গা নেই। এই এলাকা দিয়ে যাওয়ার সময় পথচারীদের প্রতিদিনই কঠিন পরীক্ষার মধ্য দিয়ে যেতে হয়।’

ওই এলাকার আরেক বাসিন্দা মজিবুর রহমান বলেন, ‘এই যানবাহনের কারণে পুরো এলাকায় ব্যাপক বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হয়। আমরা ফুটপাত ব্যবহার করতে পারি না এবং অবৈধ পার্কিংয়ের কারণে এই এলাকায় যানজট নিত্যদিনের সমস্যায় পরিণত হয়েছে। কিন্তু মানুষের দুঃখ-দুর্দশা দেখার ও শোনার বা সমাধান করার কেউ নেই।’

তিনি আরও বলেন, ‘রেলক্রসিং ও ট্রাকস্ট্যান্ড সংলগ্ন তেজগাঁও এলাকায় চার থেকে পাঁচটি স্কুল-কলেজ রয়েছে। অনেক শিক্ষার্থীকে স্কুল-কলেজে যেতে নিয়মিত এই রাস্তা ব্যবহার করতে হয়, কিন্তু এই রাস্তা দিয়ে যাতায়াত ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠেছে।’

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) সেলিম রেজা বলেন, তেজগাঁওয়ে ট্রাকস্ট্যান্ড দখলমুক্ত করার সিদ্ধান্ত বহাল রয়েছে।

ডিএনসিসি কর্তৃপক্ষ নিয়মিত ট্রাকস্ট্যান্ডের পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছে।

এছাড়া স্থায়ী ট্রাকস্ট্যান্ড স্থাপনের জন্য ডিএনসিসি বিটিসিএল চত্বরের কাছে জমি পাওয়ার চেষ্টা চলছে জানিয়ে তিনি বলেন, এ বিষয়ে উচ্চ পর্যায়ে একাধিক বৈঠক হয়েছে।

সর্বশেষ বৈঠকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও কৃষিমন্ত্রীও উপস্থিত ছিলেন বলেও জানান তিনি।

—ইউএনবি