January 29, 2023

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Friday, January 6th, 2023, 7:58 pm

আন্তর্জাতিক পর্যটকেরা চীনে যেতে পারবেন

অনলাইন ডেস্ক :

প্রায় তিন বছর বিশ্ব থেকে বিচ্ছিন্ন হওয়ার পরে, চীনা কর্তৃপক্ষ আগামীকাল রোববার থেকে কার্যকর হওয়া বেশ কয়েকটি কোভিড-সম্পর্কিত প্রবেশ নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়ার ঘোষণা দিয়েছে। এর মধ্যে চীন সমস্ত আন্তর্জাতিক পর্যটকদের জন্য কোয়ারেন্টাইন বাদ দিয়েছে। এটি এখন চীনের কঠোর শূন্য-কোভিড নীতি থেকে সরে আসার সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য পদক্ষেপ। অবসর ভ্রমণের জন্য এখনই পুরোপুরি প্রস্তুত নয় চীন। ব্যবসায়িক বা পারিবারিক পরিদর্শন ছাড়া সীমান্তগুলি বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই পর্যটকদের জন্য বন্ধ থাকে, যদিও সরকার ইঙ্গিত দিয়েছে যে তারা বিভিন্ন এলাকায় বিধিনিষেধ সহজ করতে যাচ্ছে। তবে এর জন্য কোন সময়কাল ঘোষণা করা হয়নি। আগামীকাল রোববার থেকে আর কোয়ারেন্টাইনের প্রয়োজন নেই যাতায়াতকারীদের। চীনে যাতায়াতকারীদের এখন ভ্রমনের ৪৮ ঘন্টা আগে একটি নিউক্লিক অ্যাসিড পরীক্ষা করতে হবে, যাদের কোভিড নেগেটিভ রয়েছে তাদের প্রবেশের আগে বিদেশে চীনা দূতাবাস এবং কনস্যুলেট থেকে “গ্রিন হেল্থ কোড” এর জন্য আবেদন করতে হবে না। তবে তাদের কাস্টমস স্বাস্থ্য ঘোষণা ফর্ম পূরণ করতে হবে। কোভিড পজেটিভ থাকলে নেগেটিভ না আসা পর্যন্ত তাদের চীনে ভ্রমণের অনুমতি দেওয়া হবে না। মোবাইল ফোনের স্বাস্থ্য কিউ আর কোড বাবস্থা এখনও বিদ্যমান কিন্তু যারা পাবলিক স্পেসে প্রবেশ করছে বা পাবলিক ট্রান্সপোর্টে চড়ছে তাদের জন্য এটি আর ব্যাপকভাবে প্রয়োগ করা হয় না। মাস্ক পরা/সামাজিক দূরত্বের বিষয়ে কোনো সরকারি আদেশ নেই। তবে যারা ইনডোর পাবলিক স্পেস পরিদর্শন করেন বা পাবলিক ট্রান্সপোর্টে চড়েন তাদের মাস্ক পরতে বলা হয়। নতুন করে কোভিড-১৯ এর প্রাদুর্ভাব দেখা দিয়েছে দেশটিতে। হাসপাতাল ও সৎকার স্থান সমুহে বিশেষ সতর্ক বাবস্থা চালু করেছে সরকার। এই মাসের বিধিনিষেধ শিথিল করার আগে, চীনের কর্তৃপক্ষ নাগরিকদের “অপ্রয়োজনীয়” কারণে বিদেশ যেতে নিষেধ করেছিল। কিন্তু ৮ জানুয়ারি পর্যন্ত, অবসরের জন্য আন্তর্জাতিক ভ্রমণের আবারও অনুমতি দেওয়া হয়েছে। চীনা রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যমের একটি প্রতিবেদন অনুসারে, জাতীয় অভিবাসন প্রশাসন ডিসেম্বরের শেষের দিকে একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করে বলেছে যে, ৮ জানুয়ারি থেকে পর্যটনের উদ্দেশ্যে সাধারণ পাসপোর্টের জন্য চীনা নাগরিকদের আবেদন গ্রহণ ও অনুমোদন পুনরায় শুরু করা হবে।নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়ার বিষয়টি বিশ্ব জুড়ে বিতর্ক তৈরি করেছে। বৈশ্বিক পর্যটন অর্থনীতির পুনরুদ্ধারের প্রচেষ্টায় চীনা পর্যটকদের অংশগ্রহনের বিষয়টি গুরুত্ব পাচ্ছে।