August 15, 2022

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Friday, July 29th, 2022, 7:43 pm

আলোচনায় ‘মা’ সিরিয়ালের ঝিলিক

অনলাইন ডেস্ক :

পশ্চিমবঙ্গের প্রাক্তন মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় ও অভিনেত্রী অর্পিতা মুখার্জির কা-ে তোলপাড় পুরো রাজ্য। তারপর চর্চা শুরু হয়েছে টলিউডে মন্ত্রীদের সম্পর্কের বিষয়টি। এবার আলোচনায় উঠে এসেছেন আরেক প্রাক্তন মন্ত্রী মদন মিত্র ও অভিনেত্রী শ্রীতমা ভট্টাচার্য। তারাও ব্যক্তিগত জীবনে ঘনিষ্ঠ কিনাÑসেই প্রশ্ন অনেকের। এ প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে ভারতীয় একটি সংবাদমাধ্যম অভিনেত্রী শ্রীতমার সঙ্গে যোগাযোগ করে। এ বিষয়ে এই অভিনেত্রী বলেনÑ‘কে বলছে এসব? আমাকে কিন্তু কেউ কিচ্ছু বলেননি। এ নিয়ে কেউ কোনো চাপও তৈরি করছেন না।’ মুখে কেউ কিছু বলছেন না। কিন্তু টলিপাড়ায় জোর চর্চা চলছে। এ তথ্য জানাতেই শ্রীতমা বলেন, ‘আমার সঙ্গে বা যেকোনো তারকার সঙ্গে রাজনীতিবিদদের জড়িয়ে এত কথা কিন্তু অর্থহীন। রাজনীতিতে আসার আগেও অভিনেত্রী শ্রীতমা কিন্তু মুখ্যমন্ত্রীর আশীর্বাদ পেয়েছেন। মমতা মুখার্জি গুণীর কদর করতে জানেন। শিল্পীদের খুব ভালোওবাসেন। সেই সূত্রে আমাদের পারস্পরিক আদানপ্রদান থাকেই। আর নির্বাচনে জিতে পৌরমাতা হওয়ার পরে রাজনীতিবিদদের সঙ্গে আমার সম্পর্ক একদম পেশাগত। ওরা কেউ আমার মন্ত্রী, বিধায়ক বা সাংসদ। আমি পৌরমাতা। যেমন: মদন মিত্রের এলাকায় আমি পৌরমাতা।’ এর বাইরে মদন মিত্রর সঙ্গে আর কোনো সম্পর্ক নেই? জবাবে শ্রীতমা বলেন, ‘হ্যাঁ, আছে তো। ওনাকে আমি আমার বাবার বন্ধু হিসেবে বহু বছর আগে থেকেই চিনি। মদন মিত্রের সঙ্গে আমাদের পারিবারিক সম্পর্ক। বাবার ওপেন হার্ট সার্জারির সময় মদনদা এবং ওনার পুরো পরিবার আমাদের পাশে ছিলেন। অস্ত্রোপচার থেকে ওষুধÑ বাবার চিকিৎসার যাবতীয় দায়িত্ব কামারহাটির বিধায়ক নিজের হাতে তুলে নিয়েছিলেন। বাবা চলে যাওয়ার পরেও উনিই আমার বাবার জায়গা নিয়েছেন। মদন মিত্র শ্রীতমা ভট্টাচার্যের অভিভাবক। আর আমাকে নিয়ে গুঞ্জন তো নতুন নয়!’ ‘তোমায় ছাড়া ঘুম আসে না মা’Ñ স্টার জলসার পর্দায় গানটি বেজে উঠতেই কারো বোঝার বাকি থাকে না এটি ‘মা’ ধারাবাহিক নাটকের টাইটেল গান। জনপ্রিয় এ ধারাবিকের কেন্দ্রীয় নারী চরিত্রের নাম ঝিলিক। আর চরিত্রটি রূপায়ন করে দারুণ দর্শকপ্রিয়তা লাভ করেন অভিনেত্রী শ্রীতমা ভট্টাচার্য। কিছুদিন আগে পশ্চিমবঙ্গের কামারহাটি পৌরসভার ২৮ নম্বর ওয়ার্ডে কাউন্সিলর প্রার্থী হয়ে বিজয়ী হন শ্রীতমা।