October 7, 2022

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Friday, September 23rd, 2022, 7:29 pm

আশাবাদী বেলজিয়ান ফরোয়ার্ড আজার

অনলাইন ডেস্ক :

রিয়াল মাদ্রিদে যোগ দেওয়ার সময় ছিলেন সময়ের সেরা ফুটবলারদের একজন। কিন্তু ইউরোপের সফলতম ক্লাবটিতে যাওয়ার পর চোটসহ নানা কারণে আর সেই চেহারায় দেখা যাচ্ছে না এদের আজারকে। নিজেকে খুঁজে ফেরা বেলজিয়ান ফরোয়ার্ড আশাবাদী, নিয়মিত খেললেই পুরনো ছন্দে দেখা যাবে তাকে। নেশন্স লিগে গত বৃহস্পতিবার ওয়েলসের বিপক্ষে ২-১ গোলে জেতা ম্যাচে বেলজিয়ামের শুরুর একাদশে ছিলেন আজার। ৬৫তম মিনিটে তাকে তুলে নেন কোচ। পুরো ম্যাচ না খেলতে পারলেও জাতীয় দলে শুরুর একাদশে থাকতে পারা আজারের জন্য স্বস্তির। কারণ, রিয়ালে শুরুর একাদশ তো বটেই, বদলি হিসেবেও ৩১ বছর বয়সী এই ফুটবলারের খেলার সুযোগ মিলছে না খুব একটা। সাম্প্রতিক সময়ে চোটের জন্য তারকা ফরোয়ার্ড করিম বেনজেমা ছিটকে গেলে ধারণা করা হচ্ছিল, এবার হয়তো আজারের সুযোগ মিলবে। কিন্তু এরপর থেকে মোটে একটি ম্যাচে শুরুর একাদশে জায়গা হয় তার। তাই বেলজিয়ামের হয়ে আজার নিজেকে কতটা মেলে ধরতে পারবেন, এ নিয়ে সংশয় বাড়ছিল। ওয়েলসের বিপক্ষে শঙ্কাটা একদম উড়িয়ে দিতে না পারলেও আশাবাদী হওয়ার মতোই ফুটবল খেলেন এই তারকা ফরোয়ার্ড। দেখান কিছু ঝলক, যা তার চেলসির দিনগুলোতে দেখা যেত নিয়মিতভাবে। ২০১৮ সালে ১০ কোটি ইউরোর বিনিময়ে চেলসি থেকে রিয়ালে পাড়ি জমান আজার। প্রিমিয়ার লিগের ক্লাবটিকে খেলে তিনি হয়ে উঠেছিলেন বিশ্বসেরাদের একজন। তবে মাদ্রিদের ক্লাবটিতে তার গল্পটা এখন পর্যন্ত কেবলই হতাশার। একের পর এক চোটে মিস করেছেন অসংখ্য ম্যাচ। আর ফিট থাকলেও সেভাবে মিলছে না খেলার সুযোগ। তবে ওয়েলসের বিপক্ষে ম্যাচের পর আজারের কণ্ঠে শোনা গেল আত্মবিশ্বাসের সুর। আরটিএলের সঙ্গে আলাপচারিতায় বললেন, খেলার মধ্যে থাকলে কাতার বিশ্বকাপে নিজেকে সেরা ফর্মে দেখার ব্যাপারে আশাবাদী তিনি। “আমি সবসময় বলেছি (নিয়মিত) খেললে পুরনো এদেন আজার ফিরে আসবে। আমাকে শুধু ছন্দে ফিরতে হবে। যখনই খেলি, আমার সবটুকু উজাড় করে দেই। রিয়াল মাদ্রিদে পরিস্থিতিটা নাজুক। আমি আরও বেশি খেলতে চাই, কিন্তু আমার খুব বেশি কিছু করার নেই।” “আমি জানি আমি কী করতে পারি। এখন আমি বিশ্বকাপের জন্য ছন্দে ফিরতে চাই। আমরা দেখব কোচ (রবের্তো মার্তিনেস) কী সিদ্ধান্ত নেন, তবে আমি যখন খেলি তখন আমি সবচেয়ে খুশি থাকি।” ওয়েলস ম্যাচে আজারের জাতীয় দলের সতীর্থ কেভিন ডে ব্রুইনে ছিলেন দারুণ ছন্দে। একটি গোল করার পাশাপাশি করিয়েছেন অপর গোলটি। ম্যানচেস্টার সিটি তারকার প্রশংসায় পঞ্চমুখ বেলজিয়াম কোচ রবের্তো মার্তিনেস। “আমার চোখে সে বর্তমান সময়ে বিশ্ব ফুটবলে সবচেয়ে অবিশ্বাস্য প্লেমেকার।” ওয়েলসের বিপক্ষে জিতে নেশন্স লিগের আগামী বছরের ফাইনালসের সম্ভাবনা বাঁচিয়ে রেখেছে বেলজিয়াম। তবে লক্ষ্য পূরণের পথ সহজ নয় তাদের জন্য। নিজেদের পরবর্তী ম্যাচে নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে জিততেই হবে বেলজিয়ামের। ‘এ’ লিগের ৪ নম্বর গ্রুপে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে আছে লুইস ফন খালের দল। আগামী রোববার ডাচদের মুখোমুখি হবে বেলজিয়াম। নেশন্স লিগে নিজেদের মহাগুরুত্বপূর্ণ এই ম্যাচ দিয়ে আসছে কাতার বিশ্বকাপের প্রস্তুতির দিকেও চোখ মার্তিনেসের। “আপনি যদি আমাকে জিজ্ঞেস করেন, বিশ্বকাপের প্রস্তুতির জন্য কোন ম্যাচটি আদর্শ হবে, আমি নেদারল্যান্ডসের নাম বলব- দুই দলের দ্বৈরথের ইতিহাস, ম্যাচটির গুরুত্ব এবং ভক্তদের জন্য।”