February 2, 2023

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Tuesday, December 13th, 2022, 7:45 pm

আসছে ঈদে মুক্তি পাবে ‘অন্তর্জাল’

অনলাইন ডেস্ক :

নিমার্তা দীপংকর দীপন পরিচালিত সাইবার যুদ্ধ নিয়ে বাংলাদেশের প্রথম থ্রিলার সিনেমা ‘অন্তর্জাল’। সিনেমাটি আগামী ঈদুল ফিতরে বড় পর্দায় মুক্তি পাবে। গত সোমবার রাতে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে (বিআইসিসি) ছবিটির মোশন পোস্টার উন্মোচন অনুষ্ঠানের আয়োজন করে গণমাধ্যমে পরিচালক নিজে নিশ্চিত করেন। ‘অন্তর্জাল’- এর মোশন পোস্টার উন্মোচন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী এবং ‘অন্তর্জাল’ জুনাইদ আহমেদ পলক। তিনি এ সিনেমার প্রধান উপদেষ্টা। তিনি বলেন, ‘দর্শককে সিনেমার পর্দায় আটকে রাখার একটা ক্ষমতা দীপংকর দীপনের আছে। অন্তর্জাল চলচ্চিত্রের মাধ্যমে সেই ক্ষমতা আরও বেশি বিকশিত হবে। চলচ্চিত্রের স্বর্ণালী অধ্যায় আমরা ফিরে পেয়েছি। ঢাকা অ্যাটাক থেকে শুরু করে পরাণ, হাওয়া, দামালসহ বেশ কিছু সুপারহিট চলচ্চিত্র আসছে। বিশেষ করে তরুণ প্রজন্ম, যারা সিনেমা হল থেকে দূরে সরে গিয়েছিল, তারা আবার হলে ফিরে এসেছে।’ এই সিনেমার বিষয়বস্তুর গুরুত্ব নিয়ে তথ্য প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘বর্তমানে একটা দেশের ক্ষতি করতে চাইলে বোমা ফেলার প্রয়োজন নেই। ইন্টারনেট ব্যবহার করে অনেক বড় ক্ষতি করা সম্ভব। অন্তর্জাল চলচ্চিত্রের মাধ্যমে দেশের সর্বস্তরের মানুষ আগামীর সাইবার যুদ্ধে আমাদের প্রস্তুতি সম্পর্কে জানতে পারবে।’ নির্মাতা দীপংকর দীপন বলেন, ‘মহামারির সময়ে আমরা প্রজেক্টটা হাতে নিয়েছিলাম। ছবিটা আমরা পুরোপুরি দেশীয় সক্ষমতায় বানিয়েছি। ছবির ডিওপি, আর্ট ডিরেক্টর, টেকনিক্যাল টিম সবই এদেশের। এটা তথাকথিত প্রেমের সিনেমা নয়। কিন্তু একজন দর্শক সিনেমায় যে গতি ও গল্প দেখতে চায়, তার পুরোটাই আছে এতে। দর্শক লক্ষ্য করবেন আমার এক একটা সিনেমা এক এক ঘরানার। যেমন প্রথমটা ছিল পুলিশের অ্যাকশন, পরেরটা ওয়াইল্ড লাইফ অ্যাকশন আর এটা হলো সাইবার যুদ্ধ।’ তবে জটিল কোনো বিষয় হবে না বলে দর্শকদের আশ্বস্ত করে দীপন বলেন, ‘বলে রাখি, আইটি মোটেই গুরুগম্ভীর বিষয় নয়। এখানে গতি আছে। এটা সবার ছবি। সাধারণ মানুষ যেন আইটি বা হ্যাকিং বিষয়টা সহজে বুঝতে পারে, সেভাবেই গল্পটি সাজানো হয়েছে। আর বিষয়টিকে সহজ করার জন্য আমাদের অনেক কঠিন সময় পার করতে হয়েছে।’ অন্তর্জালে নিজের চরিত্র নিয়ে সিয়াম বলেন, ‘আমার চরিত্রের নাম লুমিন, সে প্রোগ্রামার। লুমিন চরিত্রটা যখন আমি পাই, তখন বেশ কয়েকটা চরিত্রের সঙ্গে আমি সম্পৃক্ত। অপারেশন সুন্দরবন কেবল শেষ হয়েছে। দামালের কাজ করছি। ওই সময়ে আমার একজন ক্যারেক্টার রেফারেন্সের দরকার ছিল। দীপঙ্করদা আমাকে একজন সত্যিকারের লুমিনের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেয়।’ ‘লুমিন চরিত্রটা আমার কাছে ভালো লাগার কারণ হলো, আমার-আপনার ফ্রেন্ড সার্কেলে এমন কিছু মানুষ আছে যারা পড়াশোনা শেষ করার পর ভালো কাজের সুযোগের আশায় বিদেশে পাড়ি জমায়। লুমিন রাজশাহীর একটা ছেলে। এই ছেলেটার আমেরিকা-কানাডায় গিয়ে পড়াশোনা করে পরিবারসহ সেটেল হওয়ার সুযোগ ছিল। কিন্তু লুমিন সেটা করে না। লুমিন চলে যায় সাঁওতাল পল্লিতে। ছোট ছোট বাচ্চাদের প্রোগ্রামিং শিখিয়েছে। আমার মনে হয় এটাই বাংলাদেশ।’ অন্তর্জাল দেখার পর আমাদের পরবর্তী প্রজন্মে লুমিনের মতো ১০-২০ ছেলে তৈরি হওয়াটা সিনেমার সার্থকতা বলে মনে করেন তিনি। অভিনেত্রী বিদ্যা সিনহা মিম বলেন, আমি যখন স্ক্রিপ্ট পেলাম, অবাক হয়ে গেলাম। দীপংকরদাকে ফোন করে বললাম- এটা কি আমাকে পাঠানোর জন্য এত সুন্দর করে লেখা হয়েছে? যাতে খুশিতে রাজি হয়ে যাই? দীপংকরদা বললেন, ‘না, চরিত্রটাই এমন। যেভাবে লেখা আছে সেভাবেই ফুটিয়ে তোলা হবে। ‘আমি খুবই খুশি হয়ে গেলাম। আমার কাছে মনে হয়েছিল চ্যালেঞ্জিং একটা ক্যারেক্টার। এইরকম চরিত্র আগে কখনও বাংলাদেশে হয়নি। এমন একটা সিনেমার অংশ হতে পেরেছি, আমি খুবই ভাগ্যবান।’ ‘অন্তর্জাল’ চলচ্চিত্রের গল্প লিখেছেন দীপংকর দীপন, সাইফুল্লাহ রিয়াদ ও আশা জাহিদ। চিত্রনাট্য লিখেছেন পরিচালক নিজেই। সরকারের আইসিটি ডিভিশনের উদ্যোগে নির্মিত এই সিনেমার প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান মোশন পিপল স্টুডিও। সার্বিক সহযোগিতায় স্পেলবাউন্ড লিও বার্নেট। সিনেমাটিতে সিয়াম-মিম ছাড়া আরও অনেকে অভিনয় করবেন।