December 8, 2022

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Thursday, October 13th, 2022, 8:09 pm

ইউক্রেইনের ৪ অঞ্চলের ‘রুশভুক্তির’ নিন্দা জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদ

অনলাইন ডেস্ক :

ইউক্রেইনের ৪টি অঞ্চলকে নিজেদের ভূখ-ভুক্ত করে নিতে রাশিয়ার প্রচেষ্টার নিন্দা জানিয়েছে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের বেশিরভাগ সদস্য। গত কয়েকদিন ধরে প্রতিবেশী দেশটিতে রাশিয়ার ব্যাপক ক্ষেপণাস্ত্র হামলার পাল্টায় মিত্ররা কিইভকে আরও সামরিক সহায়তা দেওয়ারও অঙ্গীকার করেছে বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স। গত বুধবার নিউ ইয়র্কে ১৯৩ সদস্যবিশিষ্ট জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে রাশিয়ার বিরুদ্ধে আনা প্রস্তাবের পক্ষে ভোট দেয় ১৪৩টি দেশ। বিপক্ষে পড়ে রাশিয়া, সিরিয়া, নিকারাগুয়া, উত্তর কোরিয়া ও বেলারুশের ভোট। রাশিয়ার কৌশলগত অংশীদার চীনসহ ৩৫টি দেশ কোনো পক্ষে অবস্থান নেয়নি; বাকি ১০টি দেশ ভোট দেয়নি। ইউক্রেইনের প্রেসিডেন্ট ভলোদোমির জেলেনস্কি টুইটারে সাধারণ পরিষদে আনা ‘ঐতিহাসিক প্রস্তাবের’ পক্ষে থাকা ১৪৩টি রাষ্ট্রের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন। “ভূখ- দখলে রাশিয়ার চেষ্টা মূল্যহীন,” বলেছেন তিনি। এদিকে ব্রাসেলসে অর্ধশতাধিক পশ্চিমা দেশ ইউক্রেইনের জন্য আরও সামরিক সহায়তা বিশেষ করে আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থাপনা পাঠানোর অঙ্গীকার করেছে। ক্রাইমিয়ার সেতুতে বিস্ফোরণের প্রতিক্রিয়ায় প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিনের নির্দেশে রাশিয়া গত কয়েকদিন ধরে ইউক্রেইনে তুমুল ক্ষেপণাস্ত্র ও ড্রোন হামলা চালাচ্ছে। কিইভের মিত্রদের মধ্যে ফ্রান্স বলেছে, তারা আসছে সপ্তাহগুলোর মধ্যেই ইউক্রেইনকে রাডার ও আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থাপনা দেবে। কানাডা কামানের গোলা আর শীতের পোশাকসহ নানান উপকরণ সরবরাহের প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। ইউক্রেইন ডিফেন্স কন্টাক্ট গ্রুপের ব্রাসেলসের ওই বৈঠকে মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী লয়েড অস্টিন বলেছেন, ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেইনে সেনা পাঠানোর পর থেকে রাশিয়া যে ‘বিদ্বেষ ও নিষ্ঠুরতা’ দেখাচ্ছে, তা সর্বশেষ হামলাতেও প্রকাশ পেয়েছে। সোমবার থেকে ইউক্রেইনজুড়ে রাশিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় এখন পর্যন্ত অন্তত ২৬ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। সেপ্টেম্বর থেকে কয়েকটি যুদ্ধক্ষেত্রে ইউক্রেইনের সেনারা ‘অভাবনীয় সাফল্য’ পেলেও তাদের এখন আরও সহায়তা দরকার মন্তব্য করে অস্টিন বলেন, “তাদের (ইউক্রেইন) জন্য কার্যকর সবকিছু যেন তারা পায় তা নিশ্চিত করতে সবকিছু করবো আমরা।” সোমবার থেকে রাশিয়ার টানা ক্ষেপণাস্ত্র হামলার পর জার্মানি এরইমধ্যে তাদের প্রতিশ্রুত চারটি আইআরআইএস-টিএসএলএম (ওজওঝ-ঞ ঝখগ) আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থাপনার প্রথমটি ইউক্রেইনে পাঠিয়ে দিয়েছে। ওয়াশিংটন বলেছে, তারা তাদের প্রতিশ্রুত এনএএসএএমএস (ঘঅঝঅগঝ) আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থাপনা সরবরাহে গতি বাড়াবে। জেলেনস্কি বলছেন, মিত্রদের ক্রমবর্ধমান এ সহায়তা রুশ সেনাদের বিরুদ্ধে তাদের ‘পাল্টা আক্রমণকে’ জোরদার করবে। “ইউক্রেইন এখন যত বেশি সহায়তা পাবে, তত দ্রুত আমরা রাশিয়ার যুদ্ধের ইতি টানতে পারবো,” ওয়াশিংটনে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ) ও বিশ্ব ব্যাংকের বার্ষিক বৈঠক চলাকালে এক ফোরামে দেওয়া ভিডিও বক্তৃতায় বলেন ইউক্রেইনের প্রেসিডেন্ট। ফেব্রুয়ারিতে ইউক্রেইনে বিশেষ সামরিক অভিযান শুরুর পর সেপ্টেম্বর মাসে রাশিয়ার দখলে থাকা ৪ অঞ্চল লুহানস্ক, খেরসন, জাপোরিজিয়া ও দোনেৎস্কে ৫ দিনের গণভোট হয়। অঞ্চলগুলোর মস্কোপন্থি প্রশাসনের উদ্যোগে হওয়া ভোটের ফলে সংখ্যাগরিষ্ঠ মানুষই রাশিয়ার সঙ্গে একীভূত হওয়ার পক্ষে রায় দেয়। তার কয়েকদিনের মধ্যেই রাশিয়া আনুষ্ঠানিকভাবে ওই ৪টি অঞ্চলকে ভূখ-ভূক্ত করে নেয়। ইউক্রেইন এবং এর পশ্চিমা মিত্ররা ওই গণভোটকে প্রত্যাখ্যান করে তাকে ‘অবৈধ এবং জোর-জবরদস্তিমূলক’ বলে অ্যাখ্যা দিয়েছে। গত বুধবার জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে রাশিয়ার এ পদক্ষেপের নিন্দা জানিয়ে তোলা প্রস্তাবের আগে গত মাসে নিরাপত্তা পরিষদে তোলা কাছাকাছি আরেকটি প্রস্তাবে রাশিয়া ভিটো দিয়েছিল। ভোটের আগে সাধারণ পরিষদে তোলা প্রস্তাবটিকে ‘রাজনৈতিক উদ্দেশ্যযুক্ত এবং পুরোপুরি উসকানিমূলক’ অ্যাখ্যা দিয়েছেন জাতিসংঘে নিযুক্ত রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত ভাসিলি নিবেনজিয়া। “এটি সংকটের কূটনৈতিক সমাধানের সব চেষ্টাকে ধ্বংস করে দিতে পারে,” বলেও সতর্ক করেছেন তিনি। ২০১৪ সালে রাশিয়া ক্রাইমিয়া ‘অধিভুক্ত’ করে নেওয়ার পর সেখানে হওয়া গণভোটকে বাতিল ঘোষণা করে আনা প্রস্তাবের পক্ষে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে ১০০ ভোট পড়েছিল, বিপক্ষে ছিল ১১ দেশ। সেবার ৫৮টি দেশ কোনো পক্ষেই ভোট দেয়নি। সে তুলনায় এবারের প্রস্তাব নিয়ে হওয়া ভোটে যুক্তরাষ্ট্র ও পশ্চিমা দেশগুলো বেশ ভালো করেছে। বুধবারের ভোটের আগে তুমুল লবিংও করেছিল তারা, যার ফলে তারা ২০১৪-র তুলনায় কয়েক ডজন বেশি দেশের সমর্থন পেয়েছে। ইউক্রেইনে সেনা পাঠানোর সপ্তাহখানেকের মধ্যে রাশিয়ার নিন্দা জানিয়ে ও তাদেরকে ইউক্রেইন থেকে সেনা প্রত্যাহারের আহ্বান জানিয়ে সাধারণ পরিষদে আনা প্রস্তাবের পক্ষে ১৪১ দেশ সমর্থন জানিয়েছিল; গত বুধবার তার চেয়েও দুই ভোট বেশি পেয়েছে তারা।