December 4, 2022

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Tuesday, November 1st, 2022, 8:01 pm

উচ্ছ্বাস-আনন্দের ভেলায় ভাসছেন মিম

অনলাইন ডেস্ক :

তিন মাস পেরিয়ে এখনও সিনেপ্লেক্সে প্রদর্শিত হচ্ছে ‘পরাণ’। অন্যদিকে গেলো গত শুক্রবার থেকে চলছে নতুন ছবি ‘দামাল’। দুটি ছবির মূল নারী চরিত্রে আছেন বিদ্যা সিনহা মিম। প্রেক্ষাগৃহে একসঙ্গে দুই সিনেমা, নিজের ১৫ বছরের ক্যারিয়ারে প্রথমবার এই অভিজ্ঞতার মুখোমুখি তিনি। তাই উচ্ছ্বাস-আনন্দের ভেলায় ভাসছেন অভিনেত্রী। বললেন, ‘‘এর আগে কখনও এমনটা হয়নি। গত শুক্রবারও ‘পরাণ’র হাউজফুল শো গেছে। একসঙ্গে দুই সিনেমা চলছে এবং দুটোই ভালো যাচ্ছে, এটা সত্যিই অনেক বড় ব্যাপার।’’ ‘দামাল’-এ হাসনার ভূমিকায় অভিনয় করেছেন মিম। এ চরিত্রে যেমন সারল্য-মিষ্টতা আছে, তেমনি আছে ভয়ংকর অগ্নিরূপ। মিমের ভাষ্য, ‘এমন চরিত্রে আমাকে আগে কখনও দেখা যায়নি। তাই দর্শকরা খুব উৎসাহ দিচ্ছেন। টিমের সঙ্গে হল ভিজিটে যাচ্ছি, দর্শকের প্রচুর ভালোবাসা পাচ্ছি। যারাই দেখছেন, খুবই ভালো বলছেন।’ ‘পরাণ’ ও ‘দামাল’ দুটি সিনেমারই নির্মাতা রায়হান রাফী। আবার বিদ্যা সিনহা মিমের পাশাপাশি দুই সিনেমায় আছেন শরিফুল রাজও। ফলে স্বাভাবিকভাবেই সিনেমা দুটির মধ্যে তুলনা চলে আসে। এই প্রেক্ষিতে মিমের কাছে জানতে চাওয়া হয়, ‘পরাণ’র সাফল্যের ধারা কতখানি ধরে রাখতে পারবে ‘দামাল’? অনন্যা ও হাসনাকে পর্দায় জীবন্ত করে তোলা মিমের জবাব, “পরাণ’ কিন্তু ধীরে ধীরে এগিয়েছে। আমরা মনে করি, ‘দামাল’ও সেভাবে এগোবে। মাত্র তো দু’দিন গেলো। তাছাড়া এখন কোনো উৎসব নেই। ‘পরাণ’ তো ঈদের সময় মুক্তি পেয়েছিলো। তখন খুব বেশি প্রচারণা না করলেও দর্শক দেখেছে; কারণ ঈদের সময় প্রচুর মানুষ সিনেমা দেখেন। আর ‘দামাল’র বিষয়বস্তুও কিন্তু ব্যতিক্রম; এরপরও মানুষ দেখছে, এটাই তো বড় বিষয়।” ২০২২ সালকে অভিনেত্রী মিমের পুনর্জন্মের বছর বলেও মনে করেন অনেকে। কেননা বছরের আলোচিত দুই সিনেমার অন্যতম আকর্ষণ তিনি; পাশাপাশি এগুলোতে তার অভিনয় ভূয়সী প্রশংসা পেয়েছে এবং পাচ্ছে। বর্তমানে এই অভিনেত্রীর হাতে রয়েছে ‘অন্তর্জাল’ নামের একটি ছবি। যেটার নির্মাতা দীপংকর দীপন। এটি ছাড়া আপাতত নতুন কোনো ছবিতে যুক্ত হননি মিম। উল্লেখ্য, ‘দামাল’-এ মিম ছাড়াও অভিনয় করেছেন সিয়াম আহমেদ, শরিফুল রাজ, শাহনাজ সুমি, ইন্তেখাব দিনার, নাসিরউদ্দিন খান, রাশেদ মামুন অপু, সুমিত সেনগুপ্ত প্রমুখ। দেশের ২২টি প্রেক্ষাগৃহে চলছে সিনেমাটি।