May 28, 2022

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Sunday, January 23rd, 2022, 7:32 pm

এফডিসিতে একদিনে দুই নির্বাচন

অনলাইন ডেস্ক :

আসছে ২৮ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি এবং অভিনয়শিল্পী সংঘের নির্বাচন। একইদিনে শিল্পীদের সবচেয়ে বড় এই দুটি নির্বাচন ঘিরে রীতিমতো উৎবসমুখর পরিবেশ বিরাজ করছে দেশের শোবিজ অঙ্গনে। তাই বলাই যায়, দিনটি দেশের চলচ্চিত্র ও নাট্যাঙ্গনের জন্য হতে যাচ্ছে। এবার চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচনে সভাপতি হিসেবে নির্বাচন করছেন জনপ্রিয় অভিনেতা ইলিয়াস কাঞ্চন। চিত্রনায়িকা নিপূণকে নিয়ে প্যানেল গড়েছেন তিনি। অন্যদিকে বরাবরের মতো মিশা সওদাগর-জায়েদ প্যালেনও থাকছে এবারের নির্বাচনে। এরইমধ্যে নির্বাচন ঘিরে তাদের প্রত্যাশা ও পরিকল্পনার কথা প্রচার করে ভোট চাওয়া শুরু করেছেন তারা। তবে একে অন্যের বিরুদ্ধে অভিযোগ নিয়েও আলোচনায় আসছেন প্রার্থীরা। আবারো সভাপতি হিসেবে নিজেকে যোগ্য মনে করেন মিশা সওদাগর। তিনি বলেন, ‘আমার প্রতি এবং আমার আগের ক্যাবিনেটের প্রতি সহকর্মীদের আস্থা আরো বেড়েছে। তারা মনে করেন, আমাকে দিয়ে শিল্পীদের সেবা হবে। শিল্পীদের অনেক সুযোগ-সুবিধা নিয়ে কাজ করছি। বলতে পারেন, আমাদের শিল্পীদের অনিøয়তার কথা ভেবেই নির্বাচন করছি। ইলিয়াস কাঞ্চন ভাই, নিপুণ, রিয়াজ-সবার সঙ্গে দেখা হচ্ছে। আমরা সবাই মিলে সুস্থ-সুন্দর উৎসবমুখর পরিবেশে নির্বাচন চাই। ভোটাররা যাকে যোগ্য মনে করবেন, তাকে ভোট দেবেন। যে-ই জিতি, শিল্পীদের সেবা করতে হবে। সেটাই আসল।’ ইলিয়াস কাঞ্চন বলেন, ‘সবাই ধরলেন, তাই না করতে পারিনি। ভেবে দেখলাম, যে জায়গা আমাকে ইলিয়াস কাঞ্চন বানিয়েছে সেই জায়গা বা সেখানের মানুষগুলোর জন্য কিছু করা উচিত। এখানের মানুষগুলোর কথা চিন্তা করে সমমনা সবাইকে নিয়ে প্যানেল করা। শিল্পীদের উন্নয়নে শিল্পী সমিতির গুরুত্ব অনেক। চলচ্চিত্রের সম্মান ও গৌরবের জায়গাটা ফিরিয়ে আনতে সমিতির এই নির্বাচনটি অনকে বড় ভূমিকা রাখবে।’ এদিকে, একইদিন অনুষ্ঠিত হবে নাট্যাঙ্গনের শিল্পীদের সংগঠন অভিনয় শিল্পী সংঘের দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন। এতে ২১টি পদের জন্য লড়ছেন এবার লড়াই করছেন ৪৮জন শিল্পী। তবে অভিনয় শিল্পী সংঘের নির্বাচন প্যানেলভিত্তিক না হওয়ায় স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন শিল্পীরা। এবারের নির্বাচনে সভাপতি প্রার্থী হয়েছে জনপ্রিয় অভিনেতা আহসান হাবিব নাসিম ও শাহাদাৎ হোসেন নিপু। সাধারণ সম্পাদক পদেও লড়ছেন দু’জন। তারা হলেন রওনক হাসান ও কবীর টুটুল। এ ছাড়া ৩টি সহ-সভাপতি পদের জন্য প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন তানিয়া আহমেদ, আনিসুর রহমান মিলন, সেলিম মাহবুব ও ইকবাল বাবু। আহসান হাবিব নাসিম বলেন, ‘আমাদের নির্বাচন প্রক্রিয়াটা একেবারে ভিন্ন। শিল্পী সংঘের নির্বাচন প্যানেলভিত্তিক হয় না, স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করেন নাট্যাঙ্গনের শিল্পীরা। এরইমধ্যে অভিনয় শিল্পীরা ব্যক্তিগতভাবে প্রচারণা চালাচ্ছেন। তবে পোস্টার ছাপানো বা এ রকম কোনো বিষয় শিল্পীরা করছেন না।’ অভিনয় শিল্পী সংঘের নির্বাচনে প্রধান নির্বাচন কমিশনারের দায়িত্ব পালন করছেন খায়রুল আলম সবুজ। এ ছাড়া এ বছর নির্বাচনে ৭৫১ জন সদস্য ভোট দেওয়ার সুযোগ পাচ্ছেন। তবে নির্বাচন দুটি ঘিরে উৎসবের আমেজ বিরাজ করলেও করোনা কারণে নির্ধারিত সময়ে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে কি-না, এ নিয়েও শঙ্কা প্রকাশ করছেন অনেকে।