November 30, 2022

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Wednesday, October 19th, 2022, 8:21 pm

কংগ্রেসের নতুন সভাপতি মল্লিকার্জুন খড়গে

অনলাইন ডেস্ক :

প্রায় আড়াই দশক পর গান্ধী পরিবারের বাইরে একজন নতুন সভাপতি পেল ভারতীয় কংগ্রেস, ‘পরিবর্তনের প্রার্থী’ শশী থারুরকে বিপুল ভোটে হারিয়ে দলের শীর্ষ পদে নির্বাচিত হলেন গান্ধী পরিবারের ‘অনুগত’ মল্লিকার্জুন খড়গে কংগ্রেসের সেন্ট্রাল ইলেকশন অথরিটি বুধবার (১৯ অক্টোবর) দলীয় নেতৃত্ব নির্বাচনের ফল ঘোষণা করে জানিয়েছে, মোট ৯ হাজার ৩৮৫ ভোটের মধ্যে মল্লিকার্জুন খড়্গে পেয়েছেন ৭৮৯৭ ভোট। তার প্রতিদ্বন্দ্বী শশী থারুরের পক্ষে পড়েছে মাত্র ১০৭২ ভোট। সোমবার দলীয় এ নির্বাচনের ভোট গ্রহণ হয়। ভারতজুড়ে মোট ৩৬টি কেন্দ্রের ৬৭টি বুথে ভোট গ্রহণ করা হয়। প্রতি ২০০ ভোটারের জন্য একটি করে বুথ ছিল। বুধবার (১৯ অক্টোবর) দিল্লির স্থানীয় সময় সকাল ১০টায় কংগ্রেসের সদরদপ্তরে ভোট গণনা শুরু হয়ে দুপুর ১টায় শেষ হয়। গণনা শেষে দেখা যায় ‘গান্ধীদের মনোনীত’ প্রার্থী ৯০ শতাংশ ভোট পেয়েছেন। এর মাধ্যমে ২৪ বছর পর প্রথমবারের মতো কংগ্রেসের একজন অ-গান্ধী সভাপতি হচ্ছেন খড়গে নির্বাচনের আনুষ্ঠানিক ফল ঘোষণার আগেই অন্ধ্র্র প্রদেশে এক সংবাদ সম্মেলনে রাহুল গান্ধী খড়্গেেক জয়ী বলে ঘোষণা করেন। তিনি নতুন প্রধানের কাছে রিপোর্ট করবেন কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে রাহুল বলেন, “নতুন সভাপতিই ঠিক করবেন আমার ভূমিকা কী হবে। খড়্গে জি ও সোনিয়া জি কে জিজ্ঞেস করেন।”
ফল ঘোষণার আগে আগে ‘ব্যাপক অনিয়মের’ অভিযোগ তোলে শশী থারুরের পক্ষ। নির্বাচন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান আমরা মধুসূদন মিস্ত্রিকে লেখা এক চিঠিতে শশী থারুরের পক্ষ থেকে বলা হয়, “উত্তরপ্রদেশের নির্বাচন পরিচালনায় অত্যন্ত গুরুতর অনিয়ম আপনার নজরে আনতে চাই। দেখতে পাচ্ছেন, ঘটনাগুলো মারাত্মক এবং সেখানে নির্বাচন প্রক্রিয়ায় বিশ্বাসযোগ্যতা এবং সততার অভাব রয়েছে।”
তবে ভোটের ফল প্রকাশের পর কংগ্রেসের নতুন সভাপতিকে অভিনন্দন জানিয়েছেন শশী থারুর, বিশাল এই দায়িত্ব পালনে ‘খড়্গিেজর’ সাফল্যও কামনা করেছেন তিনি। কংগ্রেস পার্টির প্রায় ১৩৭ বছরের ইতিহাসে এই নিয়ে ষষ্ঠবারের মতো সরাসরি নির্বাচনের মধ্য দিয়ে সভাপতি বেছে নেওয়া হল। একের অধিক প্রার্থী থাকায় এই ছয়বার ভোটের মাধ্যমে সভাপতি নির্বাচন করা হয়। সর্বপ্রথম ১৯৩৯ সালে একের অধিক সভাপতি পদপ্রার্থী দেখেছিল কংগ্রেস। সেবার মহাত্মা গান্ধীর সমর্থন সত্ত্বেও পি সীতারামাইয়া সভাপতি নির্বাচনে নেতাজী সুভাস চন্দ্র বোসের কাছে হেরে গিয়েছিলেন। ভারতের স্বাধীনতার পর থেকে অধিকাংশ সময়ই কংগ্রেস দলটিকে নেতৃত্ব দিয়েছেন গান্ধী পরিবারের কোনো একজন সদস্য, তারা সবসময় বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় সভাপতি নির্বাচিত হয়ে এসেছেন।