May 21, 2022

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Tuesday, February 22nd, 2022, 7:51 pm

কষ্টের জয়ে শীর্ষে বসুন্ধরা কিংস

অনলাইন ডেস্ক :

নিজেদের আঙিনায় হোঁচট খাওয়ার শঙ্কায় পড়েছিল বসুন্ধরা কিংস। শুরু থেকে উজ্জীবিত ফুটবলের পসরা মেলে প্রতাপশালী প্রতিপক্ষকে জেঁকে ধরেছিল রহমতগঞ্জ। শেষ পর্যন্ত অবশ্য পারেনি তারা। কালো মেঘ সরিয়ে কষ্টের জয়ে লিগ টেবিলে শীর্ষে ফিরেছে অস্কার ব্রুসনের দল। কিংস অ্যারেনায় মঙ্গলবার পাঁচ গোলের নাটকীয় লড়াইয়ে ৩-২ গোলে জিতেছে স্বাগতিকরা। সানডে চিজোবার জোড়া গোলে প্রতিপক্ষের ঘাম ছুটিয়ে দেয় রহমতগঞ্জ মুসলিম ফ্রেন্ডস অ্যান্ড সোসাইটি। লিগের গত দুই আসরের চ্যাম্পিয়নদের তিন গোলদাতা রবসন দি সিলভা রবিনিয়ো, মোহাম্মদ ইব্রাহিম ও ইয়াসিন আরাফাত। টানা চার জয় পাওয়া কিংস ৫ ম্যাচে ১২ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আছে। এক ম্যাচ কম খেলা আবাহনী লিমিটেড ১০ পয়েন্ট নিয়ে নেমে গেছে দ্বিতীয় স্থানে। পাঁচ ম্যাচে রহমতগঞ্জের পয়েন্ট ১। আগের ম্যাচে পুলিশ এফসিকে ৩-০ গোলে উড়িয়ে হোম ভেন্যুতে যাত্রা শুরু করা কিংস এ ম্যাচের একাদশে আনে তিনটি পরিবর্তন। খালিদ শাফিই, তৌহিদুল আলম সবুজ ও সুমন রেজার বদলে কেষ্ট কুমার, বিপলু আহমেদ ও এলিটা কিংসলেকে খেলান কোচ। রবিনিয়োর হাত ধরে অষ্টাদশ মিনিটে প্রথম ভালো আক্রমণ শানায় কিংস। কিন্তু ব্রাজিলিয়ান এই ফরোয়ার্ডের ফ্রি কিকে কিংসলের হেড জাল খুঁজে পায়নি। এরপর ক্রসবারের ওপর দিয়ে যায় রবিনিয়োর আরেকটি ফ্রি কিক। প্রথম ভালো সুযোগটি কাজে লাগিয়ে ২৮তম মিনিটে এগিয়ে যায় রহমতগঞ্জ। মাহমুদুল হাসান কিরণের কর্নারে নাইজেরিয়ান ফরোয়ার্ড চিজোবার হেড গোললাইন থেকে ইব্রাহিম ক্লিয়ার করার চেষ্টা করলেও পারেননি। চার মিনিট পরই সমতায় ফেরে কিংস। রহমতগঞ্জের গোলমুখে বারবার হানা দেওয়ার পর তৃতীয় আক্রমণে সাফল্য আসে। মাশুক মিয়া জনির সঙ্গে দুইবার বল দেওয়া-নেওয়া করে ছয় গজ বক্সের বাঁ দিক থেকে নিখুঁত চিপে লক্ষ্যভেদ করেন রবিনিয়ো। প্রথমার্ধের শেষ দিকে এগিয়ে যায় কিংস। এবার মাঝ মাঠের একটু ওপর থেকে রবিনিয়োর ক্রস বক্সের ভেতরে পেয়ে দারুণ শটে জাল খুঁজে নেন ইব্রাহিম। এই অর্ধের যোগ করা সময়েই সফল স্পট কিকে ম্যাচ জমিয়ে তোলেন চিজোবা। বক্সে ফিলিপ আজাহ ফাউলের শিকার হলে পেনাল্টির বাঁশি বাজিয়েছিলেন রেফারি। ৫৯তম মিনিটে সোহেল রানার কর্নারে ফাঁকা পোস্টে হেড রাখতে পারেননি কেষ্ট। দুই মিনিট পর রিমনের বদলি হিসেবে ইয়াসিন এবং বিশ্বনাথের বদলে মাঠে নামেন আগের ম্যাচে দারুণ খেলা মাহাদী হাসান খান। ৭৫তম মিনিটে জয়সূচক গোলটি করেন ইয়াসিন। রবিনিয়োর কর্নারে হেডে বল জালে জড়ান তিনি। নির্ধারিত সময় শেষের দুই মিনিট আগে সমতা টানার দারুণ সুযোগ এসেছিল চিজোবার সামনে। কিন্তু গোলরক্ষক আনিসুর রহমান জিকোকে একা পেয়েও বল বাইরে মেরে হতাশায় মুখ ঢাকেন তিনি। চলতি লিগে এ নিয়ে দুইবার ম্যাচে প্রথমে পিছিয়ে পড়ার অভিজ্ঞতা হলো কিংসের। উদ্বোধনী ম্যাচে স্বাধীনতা ক্রীড়া সংঘের বিপক্ষে ২-১ ব্যবধানে হারা ম্যাচে আগে গোল খেয়েছিল তারা।