July 12, 2024

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Sunday, May 7th, 2023, 7:51 pm

কান চলচ্চিত্র উৎসবে বাংলাদেশের প্রথম স্টল

অনলাইন ডেস্ক :

দক্ষিণ ফ্রান্সে ভূমধ্যসাগরের তীরে শুরু হতে যাচ্ছে কান চলচ্চিত্র উৎসবের ৭৬তম আসর। সাগরপাড়ের শহর কানে অবস্থিত পালে দে ফেস্টিভ্যাল ভবনে প্রথমবার থাকবে বাংলাদেশের অফিসিয়াল স্টল। উৎসবটির বাণিজ্যিক বিভাগ মার্শে দ্যু ফিল্মে বাংলাদেশের চলচ্চিত্র শিল্পকে আন্তর্জাতিক মঞ্চে তুলে ধরার প্রয়াস চালানো হবে। ইতোমধ্যে সরকারিভাবে স্টল বরাদ্দের যাবতীয় প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা হয়েছে, এখন চলছে যাওয়ার প্রস্তুতি। এমনটাই নিশ্চিত করেছেন বিএফফডিসির চিফ অব ফ্লোর অ্যান্ড সেট এবং জনসংযোগ কর্মকর্তা হিমাদ্রি বড়ুয়া। জানা গেছে, মার্শে দ্যু ফিল্মে এবার শ্যাম বেনেগাল পরিচালিত ‘মুজিব: একটি জাতির রূপকার’ ছবিটির প্রদর্শনী করার পরিকল্পনা রয়েছে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের। গত বছর কানে ভারতীয় প্যাভিলিয়নে বঙ্গবন্ধুর বায়োপিকের ট্রেলার উন্মোচন হয়। আগামী ১৬ মে শুরু হয়ে মার্শে দ্যু ফিল্মের আনুষ্ঠানিকতা চলবে ২৪ মে পর্যন্ত। তবে উৎসবের পর্দা নামবে ২৭ মে।
সম্মানসূচক স্বর্ণপাম ও উদ্বোধক
দুইবারের অস্কারজয়ী অভিনেতা মাইকেল ডগলাসের অর্জনের ঝুলিতে যোগ হচ্ছে কান চলচ্চিত্র উৎসবের সম্মানসূচক স্বর্ণপাম। বর্ণাঢ্য ক্যারিয়ার ও সিনেমার জন্য নিবেদনের স্বীকৃতি হিসেবে এই সম্মানে ভূষিত হবেন তিনি। আগামী ১৬ মে কানের ৭৬তম আসরের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তাকে সম্মান জানাবে আয়োজকরা। তিনিই উৎসবের উদ্বোধন ঘোষণা করবেন। মাইকেল ডগলাসের বিস্তৃত ক্যারিয়ারে রয়েছে অনেক বিখ্যাত সিনেমা। এরমধ্যে কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে জায়গা পেয়েছে বেশ কয়েকটি। এ তালিকায় উল্লেখযোগ্য- জেমস ব্রিজেসের ‘দ্য চায়না সিন্ড্রোম’ (মূল প্রতিযোগিতা, ১৯৭৯), পল ভারহোভেন পরিচালিত ‘বেসিক ইনস্টিঙ্কট’ (মূল প্রতিযোগিতা, ১৯৯২), জোয়েল শুমাখারের ‘ফলিং ডাউন’ (মূল প্রতিযোগিতা, ১৯৯৩), স্টিভেন সোডারবার্গের ‘বিহাইন্ড দ্য ক্যান্ডেলাব্রা’ (মূল প্রতিযোগিতা, ২০১৩), অলিভার স্টোনের ‘ওয়াল স্ট্রিট: মানি নেভার স্লিপস’ (প্রতিযোগিতার বাইরে, ২০১০)।
উদ্বোধনী চলচ্চিত্র
আগামী ১৬ মে কান উৎসবের উদ্বোধনী চলচ্চিত্র হিসেবে দেখানো হবে হলিউড সুপারস্টার জনি ডেপ অভিনীত ‘জান দ্যু ব্যারি’। প্রাক্তন স্ত্রী অ্যাম্বার হার্ডের বিপক্ষে মানহানি মামলার আইনি লড়াইয়ে জয়ের পর এটাই হতে যাচ্ছে ৫৯ বছর বয়সী এই অভিনেতার প্রথম মুক্তিপ্রাপ্ত ছবি। সর্বশেষ ২০২০ সালে ‘মিনামাটা’ সিনেমায় দেখা গেছে জনি ডেপকে। তিন বছর পর বড় পর্দায় প্রত্যাবর্তন করতে যাচ্ছেন তিনি। ফরাসি ভাষায় নির্মিত ‘জান দ্যু ব্যারি’ আগামী ১৬ মে ফ্রান্সের সিনেমা হলে মুক্তি পাবে। এতে রাজা পঞ্চদশ লুই চরিত্রে অভিনয় করেছেন তিনি। রাজার প্রেমিকা জান ভোবেরনিয়ারের জীবন ও উত্থান-পতন দেখা যাবে এতে। প্রথম দেখায় একে অপরের প্রেমে পড়েন তারা। দারিদ্র্যের বেড়াজাল থেকে বেরিয়ে রাজা পঞ্চদশ লুইয়ের বৃত্তে পৌঁছে যায় মেয়েটি। জানের ভালোবাসা পেয়ে জীবনকে নতুনভাবে আবিষ্কার করেন রাজা। তাই মেয়েটিকে ছাড়া কোনো সিদ্ধান্তে পৌঁছাতে পারেন না তিনি। কিন্তু রাজসভায় কেউই তাকে চায় না। পরিচালনার পাশাপাশি ‘জান দ্যু ব্যারি’তে অভিনয় করেছেন মাইওয়েন ল্যু বেস্কো। এটি তার পরিচালিত ষষ্ঠ ছবি। ৪৬ বছর বয়সী এই তারকা একাধারে পরিচালক, চিত্রনাট্যকার, অভিনেত্রী ও প্রযোজক। ২০১১ সালে প্রতিযোগিতা শাখায় নির্বাচিত ‘পোলিস’-এর মাধ্যমে কানের অফিসিয়াল সিলেকশনে প্রথমবার জায়গা পান তিনি। এটি জুরি প্রাইজ জেতে। ২০১৫ সালে অফিসিয়াল সিলেকশনে স্থান করে নেয় তার পরিচালিত ‘মাই কিং’। জনি ডেপ ছাড়াও হলিউডের প্রথম সারির বেশ কয়েকজন তারকাকে দেখা যাবে এবারের লালগালিচায়। তারা নিজেদের নতুন ছবির প্রচারে পা রাখবেন কানসৈকতে। ১৯২০-এর দশকে ওকলাহোমা রাজ্যে আমেরিকার ওসেজ উপজাতিদের হত্যাকে কেন্দ্র করে মার্টিন স্করসেসির ‘কিলারস অব দ্য ফ্লাওয়ার মুন’ ছবির প্রচারে কানসৈকতে আসবেন লিওনার্দো ডিক্যাপ্রিও এবং রবার্ট ডি নিরো। বিখ্যাত দুঃসাহসী প্রতœতাত্ত্বিক ইন্ডিয়ানা জোন্স ১৫ বছর পর কানে ফিরছে। ‘ইন্ডিয়ানা জোন্স অ্যান্ড দ্য ডায়াল অব ডেস্টিনি’ ছবিতে পঞ্চম ও শেষবারের মতো এই চরিত্রে অভিনয় করেছেন হ্যারিসন ফোর্ড। তাকে বিশেষ সম্মান জানাবে কান। মূল প্রতিযোগিতায় স্থান পাওয়া টড হেইন্সের ‘মে ডিসেম্বর’ ছবির প্রদর্শনীতে থাকবেন অস্কারজয়ী দুই অভিনেত্রী জুলিয়ান মুর ও নাটালি পোর্টম্যান। মূল প্রতিযোগিতার আরেক ছবি ওয়েস অ্যান্ডারসনের ‘অ্যাস্টেরয়েড সিটি’র প্রচার করবেন টম হ্যাঙ্কস, স্কারলেট জোহানসন, মার্গট রবি, স্টিভ ক্যারেল, এডওয়ার্ড নর্টন ও আড্রিয়ান ব্রডি।
সমাপনী চলচ্চিত্র
১২ দিনব্যাপী কান উৎসবের পর্দা নামবে আগামী ২৭ মে। সমাপনী চলচ্চিত্র হিসেবে দেখানো হবে পিক্সার অ্যানিমেশন স্টুডিওর ২৭তম সিনেমা ‘এলেমেন্টাল’। এটি রয়েছে প্রতিযোগিতার বাইরে। আগামী ১৬ জুন যুক্তরাষ্ট্রে এবং ২১ জুন ফ্রান্সের প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পাবে ছবিটি। কানের অফিসিয়াল সিলেকশনে এর আগে পিক্সার অ্যানিমেশন স্টুডিওর তিনটি চলচ্চিত্র জায়গা পেয়েছে। এরমধ্যে ৬২তম কান উৎসবে প্রতিযোগিতার বাইরে ছিল ‘আপ’ (২০০৯)। কানের ইতিহাসে উদ্বোধনী চলচ্চিত্র হিসেবে নির্বাচিত প্রথম অ্যানিমেটেড ছবি এটাই। এরপর ‘ইনসাইড আউট’ (২০১৫) এবং ‘সৌল’ (২০২০) অফিসিয়াল সিলেকশনে জায়গা করে নেয়। সবক’টি পরিচালনা করেছেন পিট ডক্টর। তবে ‘এলেমেন্টাল’ বানিয়েছেন পিটার সোন। এর গল্পে দেখা যাবে, এলেমেন্ট সিটিতে আগুন, পানি ও বাতাস মিলেমিশে বাস করছে। নির্ভীক, দৃঢ়চেতা ও বুদ্ধিমতী অ্যাম্বার এবং আবেগপ্রবণ, রসিক ও মিশুক ছেলে ওয়েডকে কেন্দ্র করে এগোয় কাহিনি।
মূল প্রতিযোগিতার ৯ বিচারক
গত ২৮ ফেব্রুয়ারি এবারের আসরের মূল প্রতিযোগিতা বিভাগের প্রধান বিচারক হিসেবে রুবেন অস্টলান্ডের নাম ঘোষণা করা হয়। দুইবারের স্বর্ণপাম জয়ী এই সুইডিশ নির্মাতার নেতৃত্বে বিচারক থাকবেন বিভিন্ন প্রজন্মের নির্মাতা, অভিনয়শিল্পী, সংগীতশিল্পী ও লেখক। তারা হলেন ‘ক্যাপ্টেন মারভেল’ তারকা ব্রি লারসন, আমেরিকান অভিনেতা পল ড্যানো, মরোক্কান পরিচালক মরিয়ম টুজানি, ফরাসি অভিনেতা দঁনি মিনোশেঁ, জাম্বিয়ান-ওয়েলশ পরিচালক-চিত্রনাট্যকার রুঙ্গানো নিয়োনি, আফগান কথাসাহিত্যিক-নাট্যকার আতিক রহিমি, আর্জেন্টাইন পরিচালক দামিয়ান সিফ্রন এবং স্বর্ণপাম জয়ী ফরাসি পরিচালক জুলিয়া দুকুরনো। এবারের আসরে মূল প্রতিযোগিতা শাখায় রয়েছে ২০টি পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ও ১টি প্রামাণ্যচিত্র। এর মধ্য থেকে একটিকে স্বর্ণপাম জয়ী হিসেবে নির্বাচনের গুরুদায়িত্ব সামলাবেন বিচারকরা। সমাপনী অনুষ্ঠানে বিজয়ী পরিচালকের নাম ঘোষণা করা হবে।কানের ইতিহাসে মাত্র দুই নারী পরিচালক স্বর্ণপাম জিতেছেন। এবার মূল প্রতিযোগিতা শাখায় রয়েছে রেকর্ডসংখ্যক সাত নারী পরিচালকের কাজ। এগুলো হলো অস্ট্রিয়ার জেসিকা হাউজনার পরিচালিত ‘ক্লাব জিরো’, ইতালির আলিস রোরওয়াকারের ‘লা কিমেরা’, তিউনিসিয়ার কাউতার বেন হানিয়ার ‘ফোর ডটারস’, ফ্রান্সের জাস্টিন ত্রিয়েত পরিচালিত ‘অ্যানাটমি অব অ্যা ফল’ ও ক্যাথেরিন ব্রেইয়াতের ‘লাস্ট সামার’, ইতালির ক্যাথরিন কোরসিনির ‘হোমকামিং’ এবং সেনেগালের বংশোদ্ভুত ফরাসি তরুণী রামাতা তুলাই সি’র প্রথম চলচ্চিত্র ‘ব্যানেল অ্যান্ড অ্যাদামা’। আরব অঞ্চলের (মধ্যপ্রাচ্য ও উত্তর আফ্রিকা) পরিচালকদের মধ্যে মূল প্রতিযোগিতায় রয়েছে আলজেরিয়ান-ব্রাজিলিয়ান নির্মাতা কারি আইনুজের ‘ফায়ারব্র্যান্ড’, তিউনিসিয়ার কাওতার বেন হানিয়ার ‘ফোর ডটারস’ এবং সেনেগালিস-ফরাসি পরিচালক রামাতা-তুলাই সি’র ‘ব্যানেল অ্যান্ড অ্যাদামা’।
আঁ সেঁর্তা রিগার বিচারকেরা এবং সুদান
আমেরিকান অভিনেতা জন সি. রাইলি ৭৬তম কান উৎসবের আঁ সাঁর্তা রিগা বিভাগের বিচারকদের সভাপতি হিসেবে কাজ করবেন। কানের ইতিহাসে অফিসিয়াল সিলেকশনে স্থান পাওয়া তার ছবির তালিকায় রয়েছে লিন রামজের ‘উই নিড টু টক অ্যাবাউট কেভিন’ (মূল প্রতিযোগিতা, ২০১১), মাত্তেও গারোনে পরিচালিত ‘টেল অব টেলস’ (মূল প্রতিযোগিতা, ২০১৫), ইয়োর্গস লান্টিমসের ‘দ্য লবস্টার’ (জুরি প্রাইজ জয়, ২০১৫), তোঁমা বিদোগেয়াঁ পরিচালিত ‘দ্য কাউবয়েজ’ (ডিরেক্টরস’ ফোর্টনাইট, ২০১৫) এবং ক্লেয়ার ডেনি পরিচালিত ‘স্টারস অ্যাট নুন’ (গ্রাঁ প্রিঁ জয়, ২০২২)। জন সি. রাইলির নেতৃত্বে বিচারক থাকবেন ফরাসি পরিচালক-চিত্রনাট্যকার অ্যালিস উইনোকোর, জার্মান অভিনেত্রী পলা বিয়ার, ফরাসি-কম্বোডিয়ান পরিচালক-প্রযোজক ডেভি শু এবং বেলজিয়ান অভিনেত্রী এমিলি দ্যুকেন। তাদের প্রত্যেকের কাজ কানের অফিসিয়াল সিলেকশনে কিংবা প্যারালাল বিভাগগুলোতে ছিল। বিচারকদের দায়িত্ব হলো আঁ সেঁর্তা রিগার বিজয়ীদের নির্বাচন করা এবং পুরস্কার তুলে দেওয়া। এবারের আসরে এই বিভাগে রয়েছে ২০টি চলচ্চিত্র। এরমধ্যে নবাগত পরিচালকদের কাজ আছে ৮টি। আঁ সেঁর্তা রিগায় নির্বাচিত হয়ে ইতিহাস গড়েছে মোহাম্মদ করদোফানি পরিচালিত প্রথম চলচ্চিত্র ‘গুডবাই জুলিয়া’। কানের অফিসিয়াল সিলেকশনে এবারই প্রথম উত্তর আফ্রিকার দেশ সুদানের কোনো ছবি জায়গা পেলো। ২০১১ সালে সুদান দুটি দেশে বিভক্ত হওয়ার আগে রাজধানী খার্তুমে এর শুটিং হয়েছে।
স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র এবং লা সিনেফ বিচারক
সেরা স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র প্রতিযোগিতার জন্য থাকছে স্বর্ণপাম। এ ছাড়া শিক্ষার্থী নির্মাতাদের মধ্যে তিন-চারজনকে পুরস্কৃত করা হবে লা সিনেফ বিভাগে। এবারের আসরে এই দুটি শাখায় প্রধান বিচারক থাকবেন হাঙ্গেরির পরিচালক ইলদিকো এনিয়াদি। তার সঙ্গে বিচারক হিসেবে কাজ করবেন ইরানি বংশোদ্ভুত আমেরিকান পরিচালক অ্যানা লিলি অ্যামারপোর, কানাডিয়ান অভিনেত্রী-নির্মাতা শার্লো ল্যু বোঁ, ফরাসি অভিনেত্রী কারিজা তুরে এবং ইসরায়েলি নির্মাতা-অভিনেতা শ্লোমি এল্কাবেৎজ। এবার জমা পড়েছে ৪ হাজার ২৮৮টি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র। এরমধ্যে প্রতিযোগিতার জন্য নির্বাচিত হয়েছে ১২ দেশের ১১টি ছবি। সমাপনী আয়োজনে স্বর্ণপাম জয়ী স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র নির্মাতার নাম ঘোষণা করা হবে।শিক্ষার্থী নির্মাতাদের বিভাগ লা সিনেফ-এর ২৬তম আসরে অংশ নিয়েছে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তের ২ হাজার ফিল্ম স্কুল। এতে নির্বাচিত হয়েছে ১৪টি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ও ২টি অ্যানিমেটেড স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র। এরমধ্যে ১০টি বানিয়েছেন নারীরা। চার মহাদেশের ১৩টি দেশের ছবি রয়েছে এবার। তালিকায় প্রথমবার নির্বাচিত হয়েছে মরক্কো। আগামী ২৫ মে পালে দে ফেস্টিভ্যাল ভবনের বুনুয়েল থিয়েটারে প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় পুরস্কার বিতরণ করবেন বিচারকরা। এরপর থাকবে এগুলোর প্রদর্শনী।
ক্যামেরা দ’র বিচারক
এবারের আসরে অফিসিয়াল সিলেকশন ও প্যারালাল শাখায় (ডিরেক্টরস’ ফোর্টনাইট ও ইন্টারন্যাশনাল ক্রিটিকস উইক) নির্বাচিত সিনেমার মধ্যে সেরা নবাগত পরিচালক নির্বাচন করবেন ফরাসি অভিনেত্রী আনাইস দ্যুমোস্তিয়ের। ৩৫ বছর বয়সী এই তরুণী ‘‘ক্যামেরা দ’র’’ (সোনার ক্যামেরা) শাখার মূল বিচারক। তার নেতৃত্বে বিচারক হিসেবে থাকবেন ফরাসি অভিনেতা রাফায়েল পেরসোনাজ, পরিচালক মিকাল বুঁহ, ফ্রান্সের সিনেমাটোগ্রাফিক ফটোগ্রাফি পরিচালক সমিতির ফটোগ্রাফি পরিচালক নাতালি দ্যুরোঁ, ফরাসি ভিডিও প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান তিত্রাফিল্মের সিইও সোফি ফিলে এবং ফরাসি সাংবাদিক নিকোলা মারকাদে।
অফিসিয়াল সিলেকশনে আরও চলচ্চিত্র
গত ১৩ এপ্রিল এবারের আসরের অফিসিয়াল সিলেকশন ঘোষণা করেন কান উৎসবের পরিচালক থিয়েরি ফ্রেমোঁ এবং সভাপতি ইরিস নোব্লোক। এরপর ২৪ এপ্রিল তালিকায় যুক্ত হয়েছে আরও কয়েকটি চলচ্চিত্র। মূল প্রতিযোগিতা বিভাগে ঢুকেছে ফ্রান্সের জ্যঁ-স্টেফান সোভেয়ার পরিচালিত ‘ব্ল্যাক ফাইলস’ এবং ইতালির ক্যাথরিন কোরসিনির ‘হোমকামিং’। আঁ সেঁর্তা রিগা বিভাগে যুক্ত হয়েছে চীনের ওয়েই শুজান পরিচালিত ‘অনলি দ্য রিভার ফ্লোস’, ফ্রান্সের জ্যঁ-বের্নার মার্লা পরিচালিত ‘সালেম’ এবং অ্যালেক্স লুৎজের ‘স্ট্রেঞ্জার্স বাই নাইট’ (আঁ সেঁর্তা রিগার সমাপনী ছবি)। প্রতিযোগিতার বাইরে দেখানো হবে ফ্রান্সের ফেদেরিক তেলিয়েরের ‘অ্যাবট স্টোন- অ্যা লাইফ অব ফাইটস’। কান প্রিমিয়ারে রয়েছে মেক্সিকোর আমাত এসকালান্তে পরিচালিত ‘লস্ট ইন দ্য নাইট’, ফ্রান্সের ভালেরি দোঁজেলির ‘জাস্ট দ্য টু অব আস’ এবং আর্জেন্টিনার লিজান্ড্রো আলোনসো পরিচালিত ‘ইউরেকা’। স্পেশাল স্ক্রিনিংস বিভাগে নতুন সংযোজন ফরাসি-মরোক্কান পরিচালক মোনা আশাশের ‘লিটল গার্ল ব্লু’, আফগানিস্তানের সাহরা মানির ‘ব্রেড অ্যান্ড রোজেস’ এবং ফ্রান্সের আনা নোভিওঁ পরিচালিত “মার্গেরিট’স থিওরেম”। মিডনাইট স্ক্রিনিংয়ে থাকবে যুক্তরাষ্ট্রের রবার্ট রড্রিগেজের ‘হিপনোটিক’ এবং দক্ষিণ কোরিয়ার কিম তায়-গন পরিচালিত ‘প্রজেক্ট সাইলেন্স’।
স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ও প্রামাণ্যচিত্র
৭৬তম কান উৎসবে বিখ্যাত নির্মাতাদের ২টি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র এবং ৪টি প্রামাণ্যচিত্রের প্রদর্শনী হবে। স্বল্পদৈর্ঘ্য ছবি দুটি হলো স্পেনের পেড্রো আলমোদোভারের ‘স্ট্রেঞ্জ ওয়ে অব লাইফ’ (ইথান হক ও পেড্রো পাসকাল) ও পর্তুগালের পেড্রো কস্তা পরিচালিত ‘দ্য ডটারস অব ফায়ার’। ‘স্ট্রেঞ্জ ওয়ে অব লাইফ’ হলো ইংরেজি ভাষায় পেদ্রো আলমোদোভারের দ্বিতীয় স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র। ২০২০ সালে তিনি ইংরেজি ভাষায় ‘দ্য হিউম্যান ভয়েস’ পরিচালনা করেন। ৭৭তম ভেনিস ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে এর ওয়ার্ল্ড প্রিমিয়ার হয়। প্রামাণ্যচিত্র চারটি হলো স্টিভ ম্যাককুইনের ‘অকিউপাইড সিটি’, উইম ওয়েন্ডার্সের ‘দ্য সাউন্ড অব টাইম, আনজেল্ম কিফার’, চীনের ওয়াং বিং পরিচালিত ‘ম্যান ইন ব্ল্যাক’ ও ‘ইয়ুথ (স্প্রিং)’। এরমধ্যে স্বর্ণপামের লড়াইয়ে রয়েছে ‘ইয়ুথ (স্প্রিং)’। ওয়াং বিং ছাড়াও জার্মান নির্মাতা উইম ওয়েন্ডার্সের একাধিক কাজ জায়গা পেয়েছে অফিসিয়াল সিলেকশনে। মূল প্রতিযোগিতায় আছে তার পূর্ণদৈর্ঘ্য ছবি ‘পারফেক্ট ডেজ’।
অফিসিয়াল পোস্টার
বিশ্ব সিনেমার বৃহৎ শোকেস ৭৬তম কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের অফিসিয়াল পোস্টারে স্থান পেয়েছেন বর্ষীয়ান ফরাসি অভিনেত্রী ক্যাথরিন দ্যুনোভ। ১৯৬৮ সালে তোলা হয় তার সাদাকালো ছবিটি। তিনি হলেন কিংবদন্তি ফিল্মমেকার মার্সেলো মাস্ত্রোইয়ান্নির স্ত্রী। তাদের মেয়ে ফরাসি অভিনেত্রী কিয়ারা মাস্ত্রোইয়ান্নি উদ্বোধনী ও সমাপনী অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করবেন। ফ্রান্স টেলিভিশন এবং আন্তর্জাতিকভাবে ব্রুট এসব আয়োজন সরাসরি দেখাবে। তার নতুন ছবি ‘ইউরেকা’ রয়েছে এবারের কান প্রিমিয়ারে।