December 1, 2022

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Sunday, November 6th, 2022, 8:25 pm

কাল উদ্বোধন হচ্ছে খাগড়াছড়িতে ২৩৮ কোটি টাকায় নির্মিত ৪২ সেতু

নিজাম উদ্দিন লাভলু, রামগড় :

খাগড়াছড়িতে সড়ক ও জনপথ বিভাগ প্রায় ২৩৮ কোটি টাকা ব্যয়ে ছোট-বড় ৪২টি পাকা সেতু নির্মাণ করেছে। জেলা সদরের সাথে বিভিন্ন উপজেলা ও সমতল জেলার সড়ক ও আঞ্চলিক মহাসড়কে আশির দশকে নির্মিত অস্থায়ী বেইলী ব্রীজগুলো সরিয়ে ৪২টি পাকা সেতু নির্মাণ করা হয়। সেতুগুলো নির্মাণের ফলে পাহাড়ের সড়ক যোগাযোগে আমুল পরিবর্তন আসবে। নিরাপদ হবে যাতায়ত ব্যবস্থা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ (৭ নভেম্বর) আনুষ্ঠানিক ভাবে ভার্চুয়ালি উদ্বোধন করবেন নবনির্মিত এ ৪২টি সেতু । সড়ক ও জনপথ বিভাগ(সওজ) সূত্রে এ তথ্য জানাগেছে। রামগড় উপজেলা নির্বাহি অফিসার খন্দোকার মো: ইখতিয়ার উদ্দীন আরাফাত বলেন, সোমবার (৭ নভেম্বর) সারা দেশের ১০০ টি নব নির্মিত সেতুর সাথে খাগড়াছড়ি জেলায় নির্মিত ৪২টি সেতু প্রধানমন্ত্রী ভার্চুয়ালী উদ্বোধন করবেন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসকের সন্মেলন কক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রীর সাথে র্ভাচুয়ালী সংযুক্ত হতে উপস্থিত থাকবেন পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি, উপজাতীয় শরণার্থী বিষয়ক টাস্ক র্ফোসের চেয়ারম্যান কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি, খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মংসুইপ্রু চৌধুরি, জেলা প্রশাসক প্রতাপ চন্দ্র বিশ্বাসসহ বিভিন্ন কর্মর্কতা। ও রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গ।
সংশ্লিষ্ট বিভাগ সূত্রে প্রাপ্ত তথ্যমতে, খাগড়াছড়ির জেলার বিভিন্ন সড়কে পিসি গার্ডার সেতু, আরসিসি সেতুও আরসিসি বক্স কালভার্ট নির্মাণ প্রকল্প”র আওতায় প্রায় ২শ ৩৮ কোটি ২৪ লাখ টাকায় ৪২টি সেতু নির্মাণ করা হয়েছে। সবচেয়ে দীর্ঘ সেতুটি হচ্ছে খাগড়াছড়ির- দীঘিনালা-বাবুছড়া-লোগাং-পানছড়ি সড়কের লোগাং সেতু। ১৪৩ দশমিক ০৫ মিটার দৈর্ঘ্যের সেতুটি নির্মানে ব্যয় হয়েছে ১১ কোটি ৭১ লক্ষ টাকা। ১০০ মিটার দৈঘ্যের দ্বিতীয় দীর্ঘতম সেতুটি মানিকছড়ি-লক্ষীছড়ি সড়কে ধুরং খালের ওপর নির্মাণ করা হয়। সেতুটি নির্মাণে ব্যয় হয়ে ৯ কোটি ২৭ লাখ টাকা। এছাড়া অন্যান্য সেতুগুলো হচ্ছে, দিঘীনালা-বাবুছড়া- লোগাং- পানছড়ি সড়কে পুজগাং বাজারসেতু, মাটিরাঙ্গা-তানাক্কাপাড়া সড়কে গোমতীসেতু, মানিকছড়ি-লক্ষীছড়ি সড়কে জুর্গাছড়ি সেতু, খাগড়াছড়ি- ঢাকা মহাসড়কের রামগড়ের সোনাইপুল সেতু, দীঘিনালা-বাবুছড়া-লোগাং-পানছড়ি সড়কে পাবলাখালী সেতু, একই সড়কে বাঘাইছড়ি সেতু, বাবুরো পাড়া সেতু, খাগড়াছড়ি-পানছড়ি সড়কে পেরাছড়া ব্রীজ, একই সড়কে গাছবান ব্রীজ, কুকিছড়া ব্রীজ, কুরাদিয়া ছড়া ব্রীজ, লতিবান ছড়া ব্রীজ, হাটহাজারি-মাটিরাঙ্গা সড়কের খাগড়াপুর ব্রীজ, রাঙ্গামাটি-মহালছড়ি সড়কে ঠাকুরছড় ব্রীজ, মানিকছড়ি- লক্ষীছড়ির হাতিছড়া সেতু, জালিয়াপাড়া-মহালছড়ি সড়কের সিন্দুকছড়ি সেতু ও পঙ্খিমুড়া সেতু৷ দীঘিনালা-বাবুছড়া-লোগাংসড়কের দেওয়ান ছড়া সেতু, বাঘাইহাট-মারিশ্যা সড়কের পতেঙ্গাছড়া সেতু,একই সড়কে নাকাপা সেতু, দীঘিনালা-বাবুছড়া সড়কে রজারলছড়ি সেতু, ,মহালছড়ি রচোংড়াছড়ি সেতু, , একই সড়কে মুসলিমপাড়া ব্রীজ, ও হেঁয়াকো-রামগড়-জালিয়াপাড়া সড়কে ্র পাতাছড়া সেতু । জালিয়াপাড়া-সিন্দুকছড়ি সড়কে ধুমনীঘাট সেতুও যৌথখামার সেতু। দীঘিনালা-বাবুছড়া-লোগাং সড়কে বড়পেরা সেতু, খাগড়াছড়ি পানছড়ি সড়কে ছোট নালা ব্রীজ, লক্ষীছড়ি সড়কে মগাইছড়ি সেতু, পানছড়ি সড়কে লোগাং বাজার সেতু, দীঘিনালার বুজ্যেনাল সেতু, মগমারাছড়া সেতু, খাগড়াছি-পানছড়ি সড়কের পাকুজ্জাছড়ি ব্রীজ, মানিকছড়ি সড়কে দুল্যাাতলী সেতু, পানছড়ি সড়কের ভাইবোনছড়া ব্রীজ ও কলাবাগান ব্রীজ। মাটিরাঙ্গা রতবলছড়ি ও তাইন্দং সেতু। খাগড়াছড়ি-দীঘিনালা সড়কে কৃষি গবেষনা সেতু, ও দীঘিনালা সড়কে রহাতিমারাছড়া সেতু। খাগড়াছড়ি সড়ক ও জনপদ বিভাগের উপ সহকারী প্রকৌশলী সবুজ চাকমা বলেন, খাগড়াছড়িতে ৪২ টি সেতুর নির্মাণ কাজ ইতিমধ্যে শেষ হয়েছে। খাগড়াছড়ি সড়ক পরিবহন মালিক গ্রুপের সাধারণ সম্পাদক খলিলুর রহমান বলেন, দীর্ঘ বছর আমরা ঝুঁকিপূর্ণ সড়কে যানবাহন চালিয়েছি।এতে সড়ক দুর্ঘটনায় বহু হতাহতের ঘটনাও আছে। অস্থায়ী সেতুর পাটাতনে ভেঙ্গে গাড়ি আটকে যান চলাচর বিগ্ন হতো।এখন সেসবের পরিবর্তন হয়েছে।যে কয়েকটা ঝুকিপূর্ণ ছিল সেগুলোও স্থায়ী সেতুতে রুপান্তরিত হলো। এটি খাগড়াছড়ির সড়ক যোগাযোগে ব্যাপক পরিবর্তন আনবে।খাগড়াছড়ি চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি ও সাবেক খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরী বলেন, খাগড়াছড়ি কৃষি নির্ভর এলাকা।এখান কার উৎপাদিত কৃষি পণ্য সারাদেশে সরবরাহ করা হয়।স্থায়ী সেতু হওয়ায় এখন ব্যবসায়ীরা দুশ্চিন্তা মুক্ত থেকে পণ্য পরিবহন করতে পারবে। খাগড়াছড়িপার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মংসুইপ্রু চৌধুরী অপু বলেন, বর্তমান সরকার সারা দেশের মত খাগড়াছড়িতে ও সড়ক যোগাযোগে ব্যাপক উন্নয়ন করেছে। ৮০ দশকের বেইলী সেতু দিয়ে সড়কে যান চলাচল করতে কখন যাত্রীসহ সেতু ভেঙ্গে যায় এই ভয়েআমরা আতংকে থাকতাম।এখন জেলা-উপজেলার সাথে একদম নিরাপদ নিরবিচ্ছিন্ন সড়ক যোগাযোগ সৃষ্টি হয়েছে। # #