January 31, 2023

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Tuesday, December 13th, 2022, 8:03 pm

কাল ভারতের মুখোমুখি হচ্ছে টাইগাররা

অনলাইন ডেস্ক :

টেস্টের পুরো পাঁচ দিনই প্রতিন্দ্বন্দিতাপূর্ণ ক্রিকেট খেলে প্রথমবারের মতো ভারতকে হারাতে মরিয়া বাংলাদেশ। এমন লক্ষ্য নিয়ে জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে আগামীকাল বুধবার থেকে ভারতের বিপক্ষে দুই ম্যাচ সিরিজের প্রথম টেস্টে খেলতে নামছে স্বাগতিক বাংলাদেশ। ম্যাচটি শুরু হবে সকাল ৯টা ৩০ মিনিটে এবং সরাসরি সম্প্রচার করবে গাজী টেলিভিশন ও টি-স্পোর্টস চ্যানেল। আইসিসি বিশ^ টেস্ট চ্যাম্পিয়নশীপের অংশ সিরিজের অংশ আসন্ন সিরিজটি। এখন অবধি ১০ ম্যাচে অংশ নিয়ে একটি করে জয় এবং ড্র নিয়ে টেবিলের তলানিতে আছে। নিউজিল্যান্ডের মাটিতে পাওয়া টেস্ট জয়টি ছিলো ঐতিহাসিক। নিউজিল্যান্ডের ডেরায় জয় পেতে ঘাম ঝড়াতে হয় ভারত-পাকিস্তান এবং শ্রীলংকার মত দলগুলোকেও। চলতি বছর চট্টগ্রামে শ্রীলংকার বিপক্ষে একমাত্র ড্র’র স্বাদ পেয়েছিল বাংলাদেশ। কিন্তু ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারি থেকে ঘরের মাঠে কোন টেস্ট সিরিজ জিততে পারেনি বাংলাদেশ। এই ফরম্যাটে ১১ ম্যাচে ভারতের বিপক্ষে কোন জয় নেই টাইগারদের। তবে বৃষ্টির কল্যাণেটিম ইন্ডিয়ার সাথে দু’টি টেস্ট ড্র’ করতে সক্ষম হয়েছে বাংলাদেশ। গত কয়েক বছর ধরে টেস্ট ফরম্যাটে ঘরের ও বিদেশের মাঠে প্রতিন্দ্বন্দিতাপূর্ণ ক্রিকেট খেলেছে বাংলাদেশ। কিন্তু গুরুত্বপূর্ণ সময়ে নিজেদের মেলে ধরতে না পারায় ম্যাচ হারতে হয়েছে টাইগারদের। ওয়ানডে ক্রিকেটেও গুরুত্বপূর্ণ সময়ে জ¦লে উঠতে পারেনি তারা, বিশেষ করে বিদেশের মাটিতে ভারতের বিপক্ষে। ঘরের মাঠের সিরিজে সে সমস্যা কাটিয়ে উঠে ভারতকে সদ্যই তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে ২-১ ব্যবধানে হারিয়েছে বাংলাদেশ। ওয়ানডের মত এবার টেস্ট ফরম্যাটে ভারতের বিপক্ষে জ¦লে উঠতে চায় বাংলাদেশ। বড় ফরম্যাটে হারের বৃত্ত থেকে বেরিয়ে আসতে মরিয়া টাইগাররা। এই ফরম্যাটে বরাবর দুর্বল বাংলাদেশ। বাংলাদেশের প্রধান কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো বলেন, ‘আমরা কিছু টেস্ট হেরেছি কিন্তু প্রতিন্দ্বন্দিতা করেছি। সব মিলিয়ে আমি মনে করি আমাদের অনেক উন্নতি হয়েছে। আমরা জানি এমন কন্ডিশনে ভারতের বিপক্ষে ভালো ক্রিকেট খেলতে পারি। আমরা প্রত্যক সিরিজই জয়ের চেষ্টা করি। এবার ঘরের মাঠে খেলা হওয়ায় সিরিজটি প্রতিদ্বন্দিতাপূর্ন হবে বলেই আশা করছি। তিনি আরও বলেন, ‘আমরা ম্যাচটিকে পঞ্চম দিনে নিয়ে যেতে চাই। সত্যি বলতে, আমরা ভালো খেলতে পারলে তাদের হারানোর সুযোগ আছে। আমরা গত বছরে টেস্ট সিরিজে বেশ কয়েক বার এমন করেছি। কিন্তু যা যথেস্ট নয়। আমরা জানি এটি কঠিন সিরিজ। আমি আশা করি, এই সিরিজে আমরা ভারতকে কঠিন চ্যালেঞ্জে ফেলতে পারবো।’ বাংলাদেশের টেস্ট পরিসংখ্যান একেবারেই হতাশাজনক। ১৩৪টি ম্যাচ খেলে মাত্র ১৬টি জয় এবং ১০০টি ম্যাচ হেরেছে টাইগাররা। বাকি ১০টি ম্যাচ ড্র হয়েছে। যার বেশিরভাগ ড্র’ই হয়েছে বৃষ্টির কল্যানে। সদ্য শেষ হওয়া প্রথম দু’টি ওয়ানডে থেকে বাংলাদেশ গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে শিক্ষা গ্রহণ করেছে। যত তাড়াতাড়ি সম্ভব ভারতের টপ অর্ডারকে দুমড়ে মুচড়ে ফেলা এবং খেলার নিয়ন্ত্রন নিয়ে নেয়া। টেস্ট সিরিজে ভারতের ব্যাটিং লাইন আপ প্রায় একইরকমই হবে। আঙুলের ইনজুরির কারণে নিয়মিত অধিনায়ক রোহিত শর্মাকে পাবে না ভারত। দ্বিতীয় ওয়ানডেতে বাঁ-আঙুলের ইনজুরিতে প্রথম টেস্ট থেকে বাদ পড়েছেন তিনি। চট্টগ্রামের উইকেটকে ব্যাটিং স্বর্গ হিসেবে বিবেচনা করায় বাঁ-হাতি স্পিনার তাইজুল ইসলাম হবেন বাংলাদেশের মূল অস্ত্র। এই ফরম্যাটে বাংলাদেশের পক্ষে সর্বোচ্চ উইকেট শিকারী অধিনায়ক সাকিব আল হাসানের ইনজুরি নিয়ে কিছুটা সংশয় রয়েছে। ওয়ানডেতে ভারতের পেসার উমরান মালিকের বাউন্সারে পিঠে আঘাত পাওয়ায় তা খেলা নিয়ে শংকা তৈরি হয়েছে। ভারতের শক্তিশালী ব্যাটিং লাইন আপকে চ্যালেঞ্জ দিতে বড় অবদান রাখবেন সাকিবের বোলিং পার্টনার তাইজুল। বাংলাদেশের পক্ষে অভিষেক হতে পারে জাকির হাসানের। ভারত ‘এ’ দলের বিপক্ষে ১৭৩ রান করে নজর কেড়েছেন তিনি। ডোমিঙ্গো জানিয়েছেন, প্রথম টেস্টে পাওয়া যাবে না পেসার তাসকিন আহমেদকে। বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে বর্তমান চক্রে ১২টি ম্যাচের মধ্যে ছয়টিতে জিতে অস্ট্রেলিয়া, দক্ষিণ আফ্রিকা এবং শ্রীলংকার পর টেবিলের চতুর্থস্থানে আছে ভারত। প্রথম টেস্টে ভারতের নেতৃত্ব দেবেন লোকেশ রাহুল। তার ডেপুটি হিসেবে থাকবেন চেতেশ্বর পূজারা। নিয়মিত অধিনায়ত রোহিতের বদলি হিসেবে খেলবেন নতুন মুখ ব্যাটার অভিমন্যু ঈশ^রন। ২০১০ সালে প্রথম ও সর্বশেষ টেস্ট খেলা বাঁ-হাতি পেসার জয়দেব উনাদকতকে দলে রাখা হয়েছে।
বাংলাদেশ দল : সাকিব আল হাসান (অধিনায়ক), মাহমুদুল হাসান জয়, নাজমুল হোসেন শান্ত, মোমিনুল হক, ইয়াসির আলি, মুশফিকুর রহিম, লিটন দাস, নুরুল হাসান সোহান, মেহেদি হাসান মিরাজ, তাইজুল ইসলাম, তাসকিন আহমেদ, সৈয়দ খালেদ আহমেদ, এবাদত হোসেন, শরিফুল ইসলাম, জাকির হাসান, রেজাউর রহমান, এনামুল হক বিজয়।
ভারত দল : লোকেশ রাহুল (অধিনায়ক), চেতেশ্বর পূজারা (সহ-অধিনায়ক), শুভমান গিল, বিরাট কোহলি, শ্রেয়াস আইয়ার, ঋষভ পান্থ (উইকেটরক্ষক), কেএস ভরত (উইকেটরক্ষক), রবীচন্দ্রন অশ্বিন, অক্ষর প্যাটেল, কুলদীপ যাদব, শারদুল ঠাকুর, মোহাম্মদ সিরাজ, উমেশ যাদব, অভিমন্যু ঈশ্বরন, নবদীপ সাইনি, সৌরভ কুমার ও জয়দেব উনাদকত।