August 17, 2022

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Sunday, November 28th, 2021, 8:12 pm

‘কাশ্মীর রেলওয়ে প্রকল্প’ বাস্তবায়ন করতে যাচ্ছে ভারত

অনলাইন ডেস্ক :

ভারতশাসিত জম্মু ও কাশ্মীরের সঙ্গে দেশটির বাকি অংশের রেলযোগাযোগ স্থাপনের লক্ষ্যে উচ্চাভিলাষী ‘কাশ্মীর রেলওয়ে প্রকল্প’ বাস্তবায়ন করতে যাচ্ছে ভারত সরকার। চলমান প্রকল্পটির কাজ ২০২৩ সাল নাগাদ শেষ হবে বলে বার্তা সংস্থা আইএএনএসের বরাতে জানিয়েছে দ্য ইকোনমিক টাইমস।খবরে বলা হচ্ছে, এ রেলপথ বাস্তবায়িত হলে পাল্টে যাবে ভূস্বর্গের যোগাযোগ ব্যবস্থা, দ্রুত বাড়বে শিল্পায়ন ও কর্মসংস্থান। জম্মু ও কাশ্মীরের চেনাব নদের ওপরে ধনুকের মতো বাঁকানো একটি রেলসেতুর কাজ প্রায় শেষ। যা হতে যাচ্ছে পৃথিবীর উচ্চতম রেলসেতু। উচ্চতায় যা হার মানাবে আইফেল টাওয়ারকেও। এ সেতু কাশ্মীরকে ভারতের বাকি অংশের সঙ্গে যুক্ত করবে। এক হাজার ২৫০ কোটি রুপি খরচে তৈরি হওয়া চেনাব নদ থেকে এ সেতুর উচ্চতা ৩৫৯ মিটার। ২০১৭ সালের নভেম্বর থেকে শুরু হয়েছিল সেতুর মূল ধনুকাকৃতি কাঠামোটির নির্মাণকাজ। কিন্তু, করোনা মহামারির ধাক্কায় সে নির্মাণকাজ খানিকটা ব্যাহত হয়। কর্তৃপক্ষের দাবি, রিখটার স্কেলে ৮ পর্যন্ত ভূমিকম্পের তীব্রতা সহ্য করতে পারবে এ সেতু। অত্যন্ত শক্তিশালী বিস্ফোরকের আঘাতও অনায়াসে সয়ে নিতে পারবে এটি। যা কাশ্মীরের মতো স্পর্শকাতর এলাকার মানুষদের অনেকটাই স্বস্তি দেবে। ভারতীয় রেলের এ প্রকল্প শুরু হয় ২০০৪ সালে। তবে, বছর পাঁচেকের মধ্যেই কাজ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল। যাত্রীদের নিরাপত্তা বিঘিœত হতে পারেÑএমন আশঙ্কায় এগোতে চায়নি তৎকালীন কংগ্রেস সরকার। কিন্তু, বর্তমান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির আমলে নতুন করে শুরু হয় সেতুর নির্মাণ। এর আগে, কাশ্মীরকে সরাসরি রেলযোগাযোগের আওতায় আনতে প্রথম ১৮৮৯ সালে পরিকল্পনা করে ব্রিটিশরা। কিন্তু, তাদের সে পরিকল্পনা থাকে কাগজে-কলমেই। এর শতবছর পর সে প্রকল্পে হাত দেয় ভারত সরকার। প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করছে ভারতের রেল মন্ত্রণালয়। আগামী ২০২৩ সালের মধ্যে কাশ্মীর রেলওয়ে প্রকল্পের কাজ শেষ হবে বলে জানিয়েছে তারা। আইএএনএস জানিয়েছে, পাহাড় ও গিরিখাতের মধ্য দিয়ে নির্মিত এ প্রকল্পটিই ভারতের সর্বোচ্চ উচ্চতায় নির্মিত রেলওয়ে প্রকল্প, যার ব্যাপ্তি ৩৪৫ কিলোমিটার। শুধু তাই নয়, ওই অঞ্চলটি অতিরিক্ত ভূমিকম্পপ্রবণও। এত চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। এ প্রকল্পে সংশ্লিষ্ট উধমাপুর-কাটরা (২৫ কিলোমিটার), বানিহাল-কাজিগুন্দ (১৮ কিলোমিটার) এবং কাজিগুন্দ-বারামুল্লা (১১৮ কিলোমিটার) সেকশনকে সেতুর সঙ্গে সংযুক্ত করার কাজ এরইমধ্যে সম্পন্ন হয়েছে। অবশিষ্ট ১১১ কিলোমিটারের কাটরা-বানিহাল সেকশনের কাজ চলমান রয়েছে। অন্যদিকে, সেতুর কাটরা-বানিহাল সেকশনের ১৭৪ কিলোমিটার টানেলের মধ্যে ১২৬ কিলোমিটারের নির্মাণ কাজও শেষ হয়েছে।