June 24, 2024

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Friday, March 29th, 2024, 7:59 pm

কুমারখালীতে আগুনে পুড়ল দিনমজুরের স্বপ্ন

কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে দিনমজুর আরমান আলীর (৪০) ২টি গরু ও ১টি ছাগল পুড়ে মারা গেছে। আরও একটি গরুর (গাভী) শরীরের প্রায় ৮০ ভাগ আগুনে ঝলসে গেছে। এছাড়াও ভস্মীভূত হয়েছে একটি গোয়ালঘর।

বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত আনুমানিক ১টার দিকে উপজেলার পান্টি ইউনিয়নের জোতভালুকা গ্রামে ঘটনাটি ঘটে।

আরমান ওই গ্রামের মৃত আইজদ্দিন মন্ডলের দিনমজুর ছেলে। বিদ্যুতের শর্টসার্কিট থেকে আগুন লেগে প্রায় ৩ থেকে ৪ লাখ টাকা ক্ষয়ক্ষতির প্রাথমিক ধারণা করা হচ্ছে।

এলাকাবাসীর সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, রমজানের কারণে তারাবির নামাজ পড়ে সবাই দ্রুত ঘুমিয়ে পড়েছিলেন। রাত একটার দিকে শব্দ ও আলোয় ঘুম ভেঙে যায় আরমানের। পরে তার চিৎকার শুনে প্রতিবেশীরা ছুটে এসে দেখেন দাউ দাউ করে আগুন জ্বলছে।

এরপর তারা কলস, হাড়ি, পাতিল, বালতি, বদনায় পানি ঢেলে প্রায় দুই ঘণ্টা চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। ততক্ষণে আরমানের গোয়ালঘর, গোয়ালে থাকা ২টি গরু ও ১টি ছাগল পুড়ে মারা গেছে। আরও একটি গাভীর শরীরের প্রায় ৮০ ভাগ ঝলসে গেছে।

শুক্রবার (২৯ মার্চ) সকালে সরেজমিনে এই প্রতিবেদক দেখতে পান, একটি গর্ভবতী গরুকে মশারির ভেতরে রাখা হয়েছে। গরুটির চোখ, মুখ ও কানসহ ৮০ ভাগ শরীর ঝলসে গেছে। গোয়ালঘর পুড়ে ভস্মীভূত হয়েছে। পোড়া গোয়ালঘরের ভেতরে মরা একটি গরু ও একটি ছাগল রয়েছে। পাশেই পড়ে আছে আরও একটি মরা গরু। বাতাসে পোড়া গন্ধ ছড়িয়ে রয়েছে। আগুনে পোড়া বাড়িতে উৎসুক জনতা ভিড় করেছে। শোকে কান্নায় ভেঙে পড়েছেন দিনমজুর আরমান ও তার স্ত্রী নাছরিন খাতুন।

এ সময় কান্নাজড়িত কণ্ঠে মো. আরমান আলী বলেন, ‘হঠাৎ ঘুম ভাঙলে দেখি আমার সব শেষ। দাউ দাউ করে আগুন জ্বলছে। তখন দেখা ছাড়া কিছুই করার ছিল না। মাত্র দুই ঘণ্টার আগুনে আমার সম্পদ পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। গরু, ছাগল ও গোয়ালঘরসহ আমার প্রায় ৩ থেকে ৪ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে।’

প্রতিবেশী বিল্লাল শেখ জানান, তিনি রাত দেড়টার দিকে গিয়ে দেখেন আগুন। লোকজন কলস, বালতির পানি দিয়ে আগুন নেভাচ্ছেন। আনুমানিক রাত ৩টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসলেও সবকিছু পুড়ে ছাই হয়ে যায়।

কুমারখালী ফায়ার সার্ভিস স্টেশনে যোগাযোগ করা হলে তারা এই বিষয়ে কিছু না জানার কথা বলেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মাহবুবুল হক বলেন, ‘আগুন লাগার খবর শুনেছেন তিনি। ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ তদন্ত করে পরে জানানো যাবে। লিখিত দরখাস্ত পেলে নিয়ম অনুযায়ী সরকারিভাবে সহযোগিতা করা হবে।’

—–ইউএনবি