August 11, 2022

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Thursday, July 7th, 2022, 7:29 pm

কুলাউড়ার বিদায়ী ইউএনও’র সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত

জেলা প্রতিনিধি, মৌলভীবাজার :

সরকারের একজন প্রতিনিধি হিসেবে দায়িত্ব নিয়ে মানুষের কল্যাণে কাজ করার জন্য ২০১৯ সালে কুলাউড়ায় ইউএনও হিসেবে যোগদান করেছি। এরপর থেকে বৈশ্বিক করোনা মহামারির দূর্যোগ মুহূর্তে সর্বস্তরের মানুষের কাছে যাওয়ার সুযোগ হয়েছে। ওই মুহুর্তে একসাথে কাজ করতে গিয়ে কুলাউড়ার সর্বস্তরের মানুষের সাথে আমার আত্মিক সম্পর্ক তৈরি হয়েছে। এখানকার মানুষ নিঃস্বার্থভাবে সরকারের সকল উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড ও নির্দেশনা বাস্তবায়নে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করে গেছেন। আমিও সর্বস্তরের মানুষের আন্তরিক সহযোগিতায় কুলাউড়াবাসীর কল্যাণে একজন সেবক হিসেবে কাজ করেছি। কাজ করতে গিয়ে সব শ্রেণী পেশার মানুষের অকুণ্ঠ সহযোগিতা ও ভালোবাসা পেয়েছি। সেই প্রিয় কুলাউড়ার মানুষদের ভালোবাসা কোনদিনই ভূলবনা। ৭ জুলাই বৃহস্পতিবার বিকেলে উপজেলা পরিষদ হলরুমে উপজেলার ১৩ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানদের আয়োজনে অনুষ্ঠিত সংবর্ধনা সভায় সংবর্ধিত অতিথির বক্তব্যে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এটিএম ফরহাদ চৌধুরী এ অভিব্যক্তি প্রকাশ করেন।

তিনি আরো বলেন, প্রায় ৩ বছরের কর্মযজ্ঞে কুলাউড়ার সকল জনপ্রতিনিধি, রাজনীতিবিদ, ব্যবসায়ী, সাংবাদিক, শিক্ষক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক, ক্রীড়া সংগঠকসহ সকল শ্রেণী-পেশার মানুষের আন্তরিক সহযোগিতার কথা মনে থাকবে চিরকাল। যেখানেই থাকি এই কুলাউড়ার উন্নয়নে সুযোগ থাকলে অবশ্যই নিজের সেরাটা নিংড়ে দিয়ে কাজ করার চেষ্টা করবো। আমার কর্মযজ্ঞে মানুষের এত ভালোবাসা অর্জন করেছি সবকিছু যার জন্য হয়েছে তিনি হলেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। কারণ তিনিই এই প্রেক্ষাপট তৈরি করে দিয়েছিলেন। প্রধানমন্ত্রীর সকল নির্দেশনা ও উন্নয়ন কর্মকান্ড বাস্তবায়ন এবং তাঁর দেয়া বরাদ্দ সকল জনপ্রতিনিধি এবং প্রশাসনের কর্মকর্তাদের মাধ্যমে জনগণের কাছে পৌঁছে দেয়ার চেষ্টা করেছি।

কুলাউড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার এটিএম ফরহাদ চৌধুরী সুনামগঞ্জ জেলার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক হিসেবে পদোন্নতি পাওয়ায় ইউপি চেয়ারম্যানদের পক্ষ থেকে এক অন্যরকম বিদায়ী সংবর্ধনা দেয়া হয়েছে। উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি অধ্যক্ষ একেএম সফি আহমদের সলমান এর সভাপতিত্বে ও ভাটেরা ইউপি চেয়ারম্যান সৈয়দ একেএম নজরুল ইসলামের পরিচালনায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে রাখেন মৌলভীবাজার জেলা পরিষদের প্রশাসক আলহাজ্ব মিছবাহুর রহমান।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা পরিষদের প্রশাসক মিছবাহুর রহমান বলেন, ইউএনও ফরহাদ চৌধুরী একজন আন্তরিক মনের মানুষ। তিনি একজন মেধাবী, সুদক্ষ ও বিচক্ষণ কর্মকর্তা। তাঁর কর্মযজ্ঞই তাকে কুলাউড়াবাসীর সর্বমহলের মানুষের হৃদয়ে ঠাঁই দিয়েছে।

সভাপতির বক্তব্যে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ একেএম সফি আহমদ সলমান বলেন, রাষ্ট্রের প্রতিনিধি হিসেবে দল-মত নির্বিশেষে সকল মানুষের কল্যাণে তিনি আপসহীনভাবে কাজ করে গেছেন। করোনা মহামারি এবং চলমান বন্যা পরিস্থিতিতে উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলে তিনি ছুঁটে গেছেন সহযোগিতা নিয়ে। সকল জনপ্রতিনিধিদের সাথে তিনি স্বমন্বয় করে সরকারি বরাদ্দের সুষম বন্টন করেছেন। প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ অগ্রাধিকার প্রকল্প আশ্রয়ন প্রকল্পে গৃহহীনদের জন্য ঘর তৈরি করে দেয়ার জন্য প্রভাবশালীদের রক্তচক্ষুকে উপেক্ষা করে সরকারি খাস জমি উদ্ধার করে ঘর তৈরি করে দিয়েছেন। গ্রামের সাধারণ মানুষ নিজেদের সমস্যা, চাওয়া-পাওয়ার আবদার নিয়ে তাঁর কাছে গেলে তিনি একজন জনপ্রতিনিধির ভূমিকায় সেবা দিয়ে গেছেন। একজন প্রশাসনিক কর্মকর্তা হিসেবে ইতোমধ্যে যে’কজন ইউএনও দৃষ্টান্ত রেখে কাজ করে গেছেন তাঁর মধ্যে তিনি অন্যতম।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে দেন উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মাওলানা ফজলুল হক খান সাহেদ, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ফাতেহা ফেরদৌস চৌধুরী পপি, সহকারী কমিশনার (ভূমি) মেহেদী হাসান, কুলাউড়া থানার ওসি মো: আব্দুছ ছালেক, কুলাউড়া রেঞ্জ কর্মকর্তা মো: রিয়াজ উদ্দিন। ইউপি চেয়ারম্যানদের মধ্যে বক্তব্যে দেন বরমচাল ইউপি চেয়ারম্যান খোরশেদ আলম খান সুইট, ব্রাহ্মণবাজার ইউপি চেয়ারম্যান মো: মমদুদ হোসেন, কাদিপুর ইউপি চেয়ারম্যান জাফর আহমদ গিলমান, জয়চন্ডী ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রব মাহাবুব, কুলাউড়া সদর ইউপি চেয়ারম্যান মোছাদ্দিক আহমদ নোমান, কর্মধা ইউপি চেয়ারম্যান মুহিবুল ইসলাম আজাদ, শরীফপুর ইউপি চেয়ারম্যান মো: খলিলুর রহমান।

স্বাগত বক্তব্যে দেন উপজেলা স্কাউটস সম্পাদক সোহেল আহমদ। সাংবাদিকদের পক্ষ থেকে বক্তব্য দেন কালেরকণ্ঠ প্রতিনিধি ও সাপ্তাহিক আমার কুলাউড়ার বার্তা সম্পাদক মাহফুজ শাকিল।

ইউপি চেয়ারম্যানগণ তাদের বক্তব্যে ইউএনও এটিএম ফরহাদ চৌধুরীর কর্মযজ্ঞের ভূয়সী প্রশংসা করে বলেন, ফরহাদ চৌধুরীর মতো পরিশ্রমী ও জনবান্ধব ইউএনও কুলাউড়াবাসী দেখেনি। তিনি তাঁর কর্মকালীন সময়ে নিজের সেরাটা নিংড়ে দিয়ে কুলাউড়ার আপামর জনগণের কল্যাণে নিঃস্বার্থভাবে কাজ করে গেছেন। বিশেষ করে করোনা মহামারির সময়ে তিনি নিজের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে অতন্দ্র প্রহরীর মত কুলাউড়ার মানুষের পাশে ছিলেন। এমনকি স্মরণকালের ভয়াবহ বন্যায়ও তিনি দূর্গত মানুষের পাশে ছিলেন। এছাড়া চেয়ারম্যানগণ যখন যে প্রয়োজনে তাঁর কাছে গেছেন তিনি কখনো কাউকে ফিরিয়ে দেননি। উন্নয়নের জন্য তিনি সবধরণের সহযোগিতা ও পরামর্শ দিয়েছেন।

অনুষ্ঠান শেষে সকল ইউপি চেয়ারম্যানদের পক্ষ থেকে স্বর্ণ দিয়ে লেখা নাম খচিত সম্মাননা স্মারকটি ইউএনও ফরহাদ চৌধুরীর হাতে তুলে দেন অনুষ্ঠানের সকল অতিথিসহ ইউপি চেয়ারম্যানবৃন্দ।