June 13, 2024

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Sunday, June 2nd, 2024, 8:09 pm

কৃষ্ণার চিকিৎসায় যে নির্দেশ দিলেন সালাহউদ্দিন

অনলাইন ডেস্ক :

সাফ চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলের খেলোয়াড় কৃষ্ণা রানী সরকারের চিকিৎসার জন্য বাফুফের সভাপতি কাজী সালাহউদ্দিন নতুন করে নির্দেশ দিয়েছেন। রোববার তিনি বাফুফের সাধারণ সম্পাদক ইমরান হোসেন তুষারের সঙ্গে কথা বলেছেন। বিষয়টি নিয়ে মহিলা ফুটবল কমিটির চেয়ারম্যান মাহফুজা আক্তার কিরণের সঙ্গেও কথা বলেছেন। আলোচনা হয়েছে কৃষ্ণার চিকিৎসার। বাফুফের সাধারণ সম্পাদক তুষার জানিয়েছেন, আমরা দেড় বছর ধরে কৃষ্ণার চিকিৎসা করে আসছি। এখনো যা করার প্রয়োজন সেটাই করব। বাফুফে সভাপতিও কৃষ্ণার চিকিৎসার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থার কথা বলেছেন।’ তুষার বলেন, ‘কৃষ্ণা কোন ডাক্তারের কাছে চিকিৎসা করাতে চান সেটি নির্ধারণ করলে সেখানেই পাঠানো হবে।’

বাফুফে সভাপতি কাজী সালাহউদ্দিন জাতীয় দলের দুই ফুটবলার শেখ মোরসালিন এবং হৃদয়ের ইনজুরি নিয়ে আলোচনা করে বলছিলেন, ওরা কোথায় দেখিয়েছিল। এত দ্রুত সেরে উঠল। দরকার হয় সেই ডাক্তারের পরামর্শ নিক।’ এই আলোচনার মধ্যে একজন বলছিলেন, শেখ মোরসালিন ভারতের ডাক্তার দেখিয়েছেন। সালাহউদ্দিন বললেন, ‘তাহলে তাকেও দেখানো যেতে পারে।’ ইমরান হোসেন বললেন, ‘আমরা কৃষ্ণাকে বলেছি যা যা করা দরকার আমরা করব। এখানে হতাশ হওয়ার কিছু নেই।’ ফুটবলারদের ইনজুরি নিয়ে ইমরান বলেন, ‘ফুটবল ক্যাম্পে অখ্যাত খেলোয়াড় রয়েছেন। তার পায়ের চিকিৎসার জন্য প্রায় চার লাখ টাকা খরচ করেছে বাফুফে। আর কৃষ্ণার জন্য আমরা টাকা খরচ করব না-এটা কি আমরা বলেছি। কৃষ্ণা দেশকে দিয়েছে। আমরা কেন অবহেলা করব। আমরা ভারতে পাঠাতে কৃষ্ণার সঙ্গে কথা বলেছিলাম। সেও যাবে বলে জানিয়েছিল। কিন্তু পরে পিছিয়ে যায়।’

কৃষ্ণা মনে করে বারবার ডাক্তারের কাছে যাওয়ার চেয়ে আমার সমস্যা কে ভালো বুঝবেন, সেই ডাক্তারের কাছে যাওয়া ভালো মনে করে ভারতের ভিসা প্রক্রিয়া থেকে সরে আসেন।’ কৃষ্ণার পায়ের পাতায় সমস্যা ছিল। নার্ভের কারণে তার পায়ের একটা আঙুল শুকিয়ে যাচ্ছিল। এ কারণে মাঠের বাইরে ছিলেন কৃষ্ণা। ডাক্তার তাকে বিশ্রামে থাকতে বলে ছিলেন। এ ধরনের সমস্যা খুব সাধারণভাবে দেখা যায় না। ফুটবলারদের মধ্যে কৃষ্ণার মতো ইনজুরি খুব একটা নেই। তাই কৃষ্ণা নিশ্চিত না হয়ে, দক্ষ চিকিৎসক ছাড়া কাউকে দেখাতে চান না বলেই ভারতীয় ভিসা প্রক্রিয়া থেকে সরে গিয়েছিলেন। একেকবার একেক ডাক্তারের চিকিৎসা গ্রহণ করলে হিতে বিপরীত হওয়ার আশঙ্কা করেন কৃষ্ণা।

দেশি ডাক্তাররা বলেছেন, কৃষ্ণা ৭০ মিনিট খেলতে পারবে। এরইমধ্যে কৃষ্ণা লিগের ম্যাচ খেলেছে। ব্যথা অনুভব করছে। এই অবস্থায় কৃষ্ণা পুরোপুরি সুস্থ বোধ না করলেও সেবা নিয়ে নিয়ে খেলতে পারেন। তাদের ইংলিশ কোচ পিটার বাটলার কৃষ্ণাকে পূর্ণ সুস্থ চান। আর কৃষ্ণা মনে করেন তিনি যতটুকু সুস্থ আছেন খেলতে পারবেন। পিটার তার ফুটবলারদের সঙ্গে কথা বলে জানতে চাননি, কে ফিট, কে আনফিট। একাধিক ফুটবলারের দাবি কোচ খেলোয়াড়দের সঙ্গে কথা না বলে কাউকে কাউকে বাদ দেয়ার তালিকায় রেখে দিচ্ছেন। সিনিয়র ফুটবলারদের দাবি চাইনিজ তাইপের বিপক্ষে ম্যাচে কোন ফুটবলার পুরোপুরি ফিট। তাদের কথা হচ্ছে আমরা যদি আনফিট হই সেটা খেলায় ফুটে উঠবে। চোখে পড়বে।

ম্যাচ ভিডিওটা দেখে বলুন, তো কারা আনফিট, কারা ফিট। আমরা ভাই দেশের জন্য খেলছি।’ বাফুফের সাধারণ সম্পাদক ইমরান হোসেন তুষার বললেন, ‘আমরা কৃষ্ণাকে জানিয়ে দিচ্ছি সে আসুক। তার কী প্রয়োজন, কীভাবে উদ্যোগ নিলে ভালো হয়। আমরা সবই করব।’ গত শনিবার বিকালে কৃষ্ণার ইস্যুতে আলোচনা হয়ে গেছে। কৃষ্ণাও বুঝতে পারছেন বাফুফে চুক্তির আওতায় থাকলে কিছু নিয়ম-কানুন অনুসরণ করতে হয়।