March 3, 2024

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Tuesday, February 28th, 2023, 9:09 pm

‘কৌশলগত’ সম্পর্ক গড়ে তুলতে কাজ করবে ঢাকা-জাপান

বাংলাদেশ ও জাপান বিদ্যমান চমৎকার সম্পর্ককে আরও জোরদার করতে এবং একটি ‘কৌশলগত’ সম্পর্ক গড়ে তোলার লক্ষ্যে কাজ করতে সম্মত হয়েছে।

মঙ্গলবার টোকিওতে পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক, আঞ্চলিক ও বৈশ্বিক সমস্যা নিয়ে ব্যাপক আলোচনার জন্য নিয়মিত ফরেন অফিস কনসালটেশনের (এফওসি) অংশ হিসেবে জাপানের পররাষ্ট্র বিষয়ক সিনিয়র উপমন্ত্রী শিজিও ইয়ামাদার সঙ্গে একটি দীর্ঘ বৈঠক করেছেন।

বৈঠকে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত শাহাবুদ্দিন আহমেদসহ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও টোকিওস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

জাপানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আসন্ন সফরকে চূড়ান্ত করতে ঢাকা ও টোকিওর কর্মকর্তারা কাজ করছেন।

উভয় পক্ষই জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১৯৭৩ সালে ঐতিহাসিক জাপান সফরের কথা স্মরণ করেন যা দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ককে সুদৃঢ় করেছিল।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ২০২১ ও ২০৪১ সালের ভিশনের মাধ্যমে উন্নয়নের জন্য সুপরিকল্পিত ও কাঠামোগত পদ্ধতির প্রশংসা করেছে জাপান।

শক্তিশালী বন্ধন গড়ে তোলার অংশ হিসেবে, জাপান সংযোগের প্রেক্ষাপটে মাতারবাড়ী অবকাঠামো উন্নয়ন উদ্যোগ (এমআইডিআই) প্রকল্পকে কেন্দ্র করে দক্ষিণ চট্টগ্রাম অঞ্চলের আরও উন্নয়নে বাংলাদেশের সঙ্গে অংশীদারিত্বের পরামর্শ দিয়েছে।

উভয় পক্ষই সম্মত হয়েছে যে জাপানের বিগ-বি উদ্যোগে নির্মিত এই প্রকল্পগুলো শুধু বাংলাদেশ নয়, সমগ্র অঞ্চলের জন্য উপকৃত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

উভয় পক্ষ বাণিজ্য, বিনিয়োগ, কৃষি, বিশেষ করে আইসিটি এবং উচ্চ প্রযুক্তির শিল্প, সমুদ্র অর্থনীতি, স্বাস্থ্য, মানবসম্পদ উন্নয়ন, সামুদ্রিক নিরাপত্তায় সক্ষমতা বৃদ্ধি, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা এবং প্রতিরক্ষা সহযোগিতার ক্ষেত্রে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের বিষয়ে আলোচনা করেন।

পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ আগামী দিনে কানেক্টিভিটি উন্নীত করার ওপর গুরুত্বারোপ করে মাতারবাড়ি, মেট্রোরেল এবং হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের তৃতীয় টার্মিনালসহ বাংলাদেশের উন্নয়ন প্রকল্পে জাপানের সম্পৃক্ততার প্রশংসা করেন।

জাপানের সিনিয়র ডেপুটি মিনিস্টার মহামারি এবং বৈশ্বিক অর্থনৈতিক মন্দা সত্ত্বেও বাংলাদেশের প্রবৃদ্ধির প্রশংসা করেন।

পররাষ্ট্র সচিব জাপানের পক্ষ থেকে কোভিড-সম্পর্কিত সহায়তা করার জন্য কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন। এর মধ্যে রয়েছে ভ্যাকসিনের ব্যবস্থা এবং আগামী কয়েক বছরের জন্য সরাসরি বাজেট সহায়তা।

জাপানের সিনিয়র ডেপুটি মিনিস্টার আশ্বস্ত করেন যে, কানেক্টিভিটি সংক্রান্ত বাংলাদেশের সকল উন্নয়ন প্রকল্পে জাপান সহযোগিতা অব্যাহত রাখবে।

আড়াইহাজারে বাংলাদেশ স্পেশাল ইকোনমিক জোন ও মেট্রো রেলের প্রথম ধাপের উদ্বোধনে উভয় পক্ষই সন্তোষ প্রকাশ করেছে।

বাংলাদেশ আশা করে যে এই অর্থনৈতিক অঞ্চলটি জাপানের সঙ্গে আরও বেশি বিনিয়োগ আকর্ষণ করবে কারণ বাংলাদেশ জাপানের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের প্রতি অধিক গুরুত্ব দেয় এবং এ ক্ষেত্রে জাপানি বিনিয়োগকারীদের সহায়তা করবে।

পররাষ্ট্র সচিব চলতি বছরে টোকিওতে বিমানের ফ্লাইট পুনরায় চালু করার পরিকল্পনারও মূল্যায়ন করেন।

জাপানের উপমন্ত্রী ইয়ামাদা এই ধারণাটিকে স্বাগত জানিয়ে বলেছেন যে প্রস্তাবিত এয়ার-লিঙ্কটি বৃহত্তর জনগণের সঙ্গে যোগাযোগ এবং ব্যবসার প্রচারে সহায়তা করবে।

এফএস মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গাদের তাদের পৈতৃক ভূমিতে দ্রুত প্রত্যাবাসনের জন্য জরুরিতার ওপর জোর দিয়েছে।

জাপানের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, তারা এ ব্যাপারে বাংলাদেশকে তাদের সহায়তা অব্যাহত রাখবে।

পররাষ্ট্র সচিব জাপানের সিনিয়র ডেপুটি মিনিস্টার ইয়ামাদাকে ২০২৪ সালের পরবর্তী এফওসিতে বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ জানান।

—ইউএনবি