October 3, 2022

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Friday, December 24th, 2021, 7:42 pm

ক্রিকেট থেকে অবসরে হরভজন

অনলাইন ডেস্ক :

বয়স ৪১ হয়ে গেলেও আশা করতেন, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ দলে সুযোগ পাবেন। দেশের হয়ে খেলে মাঠ থেকেই বিদায় নেবেন। কিন্তু ভারতীয় নির্বাচকদের বিবেচনাতেই তিনি নেই। আইপিএলেও তাঁর চাহিদা কমে গেছে। এবার তাই সব ধরনের ক্রিকেটকে বিদায় জানিয়ে দিলেন ভারতের স্পিন তারকা হরভজন সিং। এর মাধ্যমে শেষ হলো ২৩ বছরের বর্ণাঢ্য ক্যারিয়ার। শুক্রবার টুইট করে হরভজন ক্রিকেট ছাড়ার ঘোষণা দেন। ১০৩ টেস্ট খেলা হরভজন সর্বশেষ সাদা পোশাকে খেলেছেন ২০১৫ সালে গলে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে। বর্ণাঢ্য টেস্ট ক্যারিয়ারে ৩২.৪৬ গড়ে ৪১৭টি উইকেট নিয়েছেন। ২৩৬ ওয়ানডেতে নিয়েছেন ২৬৯ উইকেট। আর আইপিএলে ১৬৩ ম্যাচ খেলে ১৫০টি উইকেট নিয়েছেন। অবসর ঘোষণার টুইটে হরভজন লিখেছেন, ‘সব ভালো কিছু একদিন শেষ হয়। আজ আমি এমন একটা খেলাকে বিদায় জানাচ্ছি যা আমার জীবনে সব দিয়েছে। ২৩ বছরের এই লম্বা যাত্রা যাঁরা সুন্দর এবং স্মরণীয় করে রেখেছেন, তাঁদের প্রত্যেককে অনেক ধন্যবাদ।’ পাশাপাশি একটি ইউটিউব ভিডিওতে হরভজন বলেন, ‘ভারতের জার্সি পরে যখনই খেলতে নেমেছি, তার চেয়ে বড় অনুপ্রেরণা আর ছিল না। কিন্তু একটা সময় আসে যখন জীবনে কিছু কঠিন সিদ্ধান্ত নিতে হয়। জীবনে এগিয়ে নিতে হয়। কয়েক বছর ধরেই আমি এটা ঘোষণা করতে চাইছিলাম। ভাবছিলাম যে কবে আপনাদের সঙ্গে এই মুহূর্তটা ভাগ করে নেব। আজ আমি সব ধরনের ক্রিকেট থেকে অবসর নিচ্ছি। হয়তো অনেক দিন আগেই অবসর নিয়েছিলাম; কিন্তু আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা করতে পারিনি।’ তিনি আরো বলেন, ‘অনেক দিন ধরেই সক্রিয়ভাবে ক্রিকেট খেলিনি। কলকাতা নাইট রাইডার্সের সঙ্গে আমার দায়বদ্ধতার কারণেই এতদিন অবসরও ঘোষণা করতে পারছিলাম না। যদিও আমি মৌসুমের মাঝপথেই অবসরের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম। বাকিদের মতো আমিও ভারতের জার্সিতেই অবসর নিতে চেয়েছিলাম। কিন্তু সবার ভাগ্য সমান হয় না। কিন্তু যে দলের হয়েই আজ পর্যন্ত খেলেছি, নিজের শতভাগ উজাড় করেই দিয়েছি।’ ১৯৯৮ সালে বেঙ্গালুরুতে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টেস্টে অভিষেক হয়েছিল হরভজনের। প্রথম ম্যাচে নিয়েছিলেন ২ উইকেট। পরের মাসেই শারজায় নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ওয়ানডে ক্রিকেটে অভিষেক হয়। এরপর দুই ধরনের ফরম্যাটেই ভারতীয় দলের অবিচ্ছেদ্য অংশ হয়ে ওঠেন তিনি। বিশেষত দেশের মাটিতে অনিল কুম্বলের সঙ্গে তাঁর জুটি ছিল ভয়ংকর। ক্যারিয়ারের শুরুর দিকে বোলিং অ্যাকশন নিয়ে তদন্তের মুখে পড়তে হয়েছিল হরভজনকে। পাশাপাশি শৃঙ্খলাভঙ্গের অভিযোগও উঠেছিল। ২০০১ সালে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সিরিজে কুম্বলে চোট পাওয়ায় তৎকালীন ভারতীয় দলের অধিনায়ক সৌরভ গাঙ্গুলি হরভজনকে দলে নেন। সেই সিরিজে দুর্দান্ত খেলেছিলেন হরভজন। ইডেন গার্ডেনে হ্যাটট্রিকসহ পুরো সিরিজে নিয়েছিলেন ৩২ উইকেট। ভি ভি এস লক্ষ্মণ ও রাহুল দ্রাবিড়ের ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি হরভজনের ঘূর্ণিতে স্টিভ ওয়াহর অস্ট্রেলিয়ার বিজয়রথ থামিয়েছিল ভারত। ক্যারিয়ারে একাধিকবার চোটের কবলে পড়েছেন। ফিরেও এসেছেন। শুক্রবার শেষ হলো তাঁর বর্ণাঢ্য ক্যারিয়ার।