May 26, 2022

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Friday, January 21st, 2022, 7:48 pm

খুলনার শিপইয়ার্ড সড়ক চার লেনের কাজ শুরু

ফাইল ছবি

দীর্ঘ ৯ বছর অপেক্ষার পর অবশেষে খুলনাবাসীর দীর্ঘদিনের প্রতীক্ষিত ‘খুলনা শিপইয়ার্ড সড়ক প্রশস্থকরণ ও উন্নয়ন প্রকল্প’-এর কাজ শুরু হয়েছে। বৃহস্পতিবার থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে কাজ শুরু করেছেন ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান ‘আতাউর রহমান খান অ্যান্ড মাহাবুব ব্রাদার্স (প্রা.) লিমিটেড (জেভি)’।

আগামী দেড় বছরের মধ্যে প্রতিষ্ঠানটি সড়ক প্রশস্তকরণ, দুই পাশে ড্রেন ও ফুটপাত, রাস্তার মাঝখানে ডিভাইডার, একটি ছোট ব্রিজ ও একটি কালভার্ট নির্মাণ করা হবে। এই কাজে মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ১৪৩ কোটি টাকা।

এদিকে দীর্ঘদিন পরে হলেও কাজ শুরু করায় কেডিএকে ধন্যবাদ জানিয়েছে এলাকাবাসী। পাশাপাশি নির্মাণ কাজের গুণগত মান যেন ঠিক থাকে এবং সময়মতো কাজ শেষ করার অনুরোধ জানিয়েছেন তারা।

নগরবাসী জানান, শিপইয়ার্ড সড়ক প্রশস্তকরণ প্রকল্প খুলনার মানুষের দীর্ঘদিনের স্বপ্ন। এজন্য কাজের গুণগত মান ঠিক রাখতে কেডিএকে তৎপর থাকতে হবে। ইতোপূর্বে সোনাডাঙ্গা সড়ক লিংক রোড, আবাসিক এলাকাগুলোর অভ্যন্তরীণ সড়কসহ কেডিএর নির্মাণ করা অধিকাংশ সড়কের মান নিয়ে প্রশ্ন থেকে গেছে। বিশেষ করে সোনাডাঙ্গা লিংক রোডটি নির্মাণের দেড় বছরের মধ্যে বেহাল হয়ে গিয়েছিলো। এ কারণে কেডিএর কাজ নিয়ে নগরবাসী মাঝে এক ধরনের অনাস্থা তৈরি হয়েছে। শিপইয়ার্ড সড়কের কাজ দীর্ঘস্থায়ী ও টেকসইভাবে শেষ করে সেই আস্থা ফিরিয়ে আনার দাবি জানিয়েছে নগরবাসী।

কেডিএ থেকে জানা গেছে, ২০১৩ সালের ৭ মে একনেকে অনুমোদিত হয় খুলনার গুরুত্বপূর্ণ শিপইয়ার্ড সড়ক চার লেন প্রকল্প। সাড়ে তিন কিলোমিটার এই সংযোগ সড়কের তখনকার ব্যয় ছিল ৯৮ কোটি ৯০ লাখ টাকা। তবে সঠিক সময়ে কাজ শুরু করতে পারেনি খুলনা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (কেডিএ)। দুই দফায় ব্যয় বাড়ানো হয়। প্রকল্পের কাজ শুরু না হওয়ায় এবং দফায় দফায় ব্যয় বাড়ানোয় একনেক সভায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এদিকে বৃহস্পতিবার নির্মাণ কাজ পরিদর্শন করেছেন খুলনা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান বিগ্রেডিয়ার জেনারেল এস এম মিরাজুল ইসলাম, এএফডব্লিউসি, পিএসসি। এ সময় তিনি নির্ধারিত সময়ের মধ্যে গুণগত মান বজায় রেখে প্রকল্পের কাজ সম্পন্ন করার জন্য নির্দেশনা প্রদান করেন।

পাশাপাশি জনসাধারণ, পথচারী ও নির্মাণ শ্রমিকদের নিরাপত্তার বিষয়ে সর্বোচ্চ সর্তকতা অবলম্বনের জন্যও তিনি পরামর্শ দেন।

—-ইউএনবি