November 29, 2021

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Tuesday, October 5th, 2021, 9:25 pm

খুললো ঢাবির হল, শিক্ষার্থীদের ফুল দিয়ে বরণ

মঙ্গলবার সকালে খুলে দেওয়া হয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের হলগুলো। হল খোলার পর হলগুলোতে ফিরছে শিক্ষার্থীরা।

নিজস্ব প্রতিবেদক:

করোনাভাইরাসের কারণে দীর্ঘ ১৮ মাস বন্ধ থাকার পর মঙ্গলবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) আবাসিক হলগুলো শিক্ষার্থীদের জন্য খুলে দেয়া হয়েছে। এদিন বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ শিক্ষার্থীদের ফুল ও ব্যানার টানিয়ে স্বাগত জানিয়েছেন।

স্নাতকোত্তর ও স্নাতক শেষ বর্ষের আবাসিক শিক্ষার্থীরা কমপক্ষে এক ডোজ করোনার টিকা নেয়ার প্রমাণপত্র ও বৈধ কাগজপত্র দেখানো সাপেক্ষে হলে উঠতে পারবেন। এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্যান্য বর্ষের শিক্ষার্থীদের হলে উঠানোর ব্যাপারে দ্রুত সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন উপাচার্য।

মঙ্গলবার সকাল থেকে শিক্ষার্থীরা প্রফুল্ল মনে লাইনে দাঁড়িয়ে এবং করোনার স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দূরত্ব মেনে হলে প্রবেশ করেন। এছাড়া হলের ভেতরে প্রাধ্যক্ষরা তাদের এক জায়গায় জড়ো হওয়া থেকে বিরত থাকতে পরামর্শ দিচ্ছেন।

এর আগে গত ১৮ সেপ্টেম্বর বিশ্ববিদ্যালয়ের সর্বোচ্চ নীতি নির্ধারক পর্ষদ সিন্ডিকেট পরীক্ষার্থীদের জন্য আবাসিক হল খোলার সিদ্ধান্ত নেয়। তবে সশরীরে শিক্ষা কার্যক্রম শুরু করতে এখনও কোনো তারিখ নির্ধারণ করেনি ঢাবি কর্তৃপক্ষ।

বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজয় একাত্তর হল পরিদর্শন করে উপাচার্য অধ্যাপক আখতারুজ্জামান বলেন, ‘আজকের দিনটা আনন্দের। বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের ক্যাম্পাস। এটা আবার প্রাণোচ্ছ্বল হয়ে উঠেছে।’

করোনা সংক্রমণ কমছে ও শিক্ষার্থীরা টিকা নিচ্ছেন উল্লেখ করে উপাচার্য বলেন, ‘প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থীদের হলে উঠার অনুমতি প্রদানের সিদ্ধান্ত দ্রুত নেয়া হবে।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন হল যেমন ফজলুল হক মুসলিম হল, জগন্নাথ হল, সলিমুল্লাহ মুসলিম হল, বিজয় একাত্তর হল শুধুমাত্র প্রবেশপথে হাত ধোয়ার ব্যাসিনের ব্যবস্থা করেছে। এছাড়া খাবার কক্ষ, ক্যান্টিন, পাঠাগার, টয়লেট, বাথরুমও পরিষ্কার করা হয়েছে।

হাজী মুহম্মদ মুহসীন হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মাসুদুর রহমান বলেন, ‘আজকের দিন খুশির দিন। বৈধ শিক্ষার্থীদের আবাসন নিশ্চিত করতে আমরা অবৈধ শিক্ষার্থীদের বের করার সকল ব্যবস্থা গ্রহণ করব।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক একেএম গোলাম রব্বানী বলেন, ‘পড়াশোনা শেষ হবার পর কোনো শিক্ষার্থীকে হলে থাকতে দেয়া হবে না।’

স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করতে তিনি ছাত্রনেতাদের সহযোগিতা কামনা করেছেন।

দেশে গত বছরের মার্চে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হবার পর থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ রয়েছে।