January 23, 2022

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Saturday, November 27th, 2021, 9:07 pm

গঙ্গাচড়ায় দুই নারীসহ চেয়ারম্যান ৫৬, সংরক্ষিত সদস্য ১৩৪ ও সাধারন সদস্য পদে ৩৯১ জনের মনোনয়নপত্র দাখিল

ফাইল ছবি

জেলা প্রতিনিধি, রংপুর :
দেশে ৪র্থ দফা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী রংপুরের গঙ্গাচড়ায় গত ২৫ নভেম্বর মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ দিন ছিল। শেষ দিন পর্যন্ত উপজেলার ৯ টি ইউনিয়নে দুই নারীসহ চেয়ারম্যান পদে ৫৬ জন, সংরক্ষিত সদস্য পদে ১৩৪ জন ও সাধারন সদস্য পদে ৩৯১ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছে। এর মধ্যে আওয়ামীলীগের ৯ জন মনোনীত প্রার্থী ছাড়াও আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠনের স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে ১০ জন, জাতীয় পার্টির ৮ জন মনোনীত প্রার্থীর বাইরে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে ৩ জন, স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের ৪ জন, ইসলামী আন্দোলনের ৭ জন, ওয়ার্কাস পার্টির ২ জন, জাসদের ১ জন এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী ১২ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। বেতগাড়ী ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ৪ জন মনোনয়নপত্র দাখিলে রয়েছেন আওয়ামীলীগের মনোনীত ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মোহাইমিন ইসলাম মারুফ, স্বতন্ত্র হিসেবে জেলা ছাত্রদলের সাবেক কোষাধ্যক্ষ বর্তমান চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান প্রামানিক লিপ্টন, স্বতন্ত্র হিসেবে আক্তারুজ্জামান, রুহুল আমিন চৌধুরী। কোলকোন্দ ইউনিয়নে ৭ জনের মধ্যে আওয়ামীলীগের মনোনীত উপজেলা আওয়ামীলীগের কোষাধ্যক্ষ ও বর্তমান চেয়ারম্যান সোহরাব আলী রাজু, জাতীয় পার্টির মনোনীত ইউনিয়ন জাতীয় পার্টির সভাপতি আব্দুর রউফ, ইসলামী আন্দোলনের আনিছুর রহমান, ওয়ার্কাস পার্টির বেলাল উদ্দিন, স্বতন্ত্র হিসেবে মেনোকা মাহাবুব সরকার, আব্দুল হালিম, স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে জেলা ছাত্রদলের সহসভাপতি মুনতাশীর মামুন। বড়বিল ইউনিয়নে ১৩ জনে রয়েছেন আওয়ামীলীগ মনোনীত উপজেলা আওয়ামীলীগের সদস্য শহীদ চৌধুরী দীপ, জাতীয় পার্টির মনোনীত উপজেলা জাতীয় পার্টির সাবেক যুগ্ন আহবায়ক ও উপজেলা যুব সংহতির সাবেক সদস্য সচিব এবং ইউনিয়ন জাতীয় পার্টির সাবেক সাধারন সম্পাদক মোহাম্মদ আলী মিলন, ইসলামী আন্দোলনের আব্দুল বারি, ওয়ার্কাস পার্টির মাহমুদুল আলম, স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে উপজেলা আওয়ামী শ্রমিকলীগের আহবায়ক সিএম সাদিক, যুবদল থেকে আওয়ামীলীগে যোগদান করে পদ পদবী না পাওয়া বর্তমান চেয়ারম্যান আফজালুল হক রাজু, উপজেলা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবকলীগের সহসভাপতি সোয়েব মোঃ ইকবাল, ইউনিয়ন জাপার সভাপতি মোখলেছুর রহমান, জাপা নেতা আব্দুল হাকিম, স্বতন্ত্র প্রার্থী সামছুল হুদা, আব্দুল বাতেন, শরিফুল ইসলাম, গোলাম নবী। গঙ্গাচড়া ইউনিয়নে ৫ জনের মধ্যে আওয়ামীলীগের মনোনীত ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সহসভাপতি মাজহারুল ইসলাম লেবু, জাতীয় পার্টির মনোনীত ইউনিয়ন জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক মাহফুজার রহমান দুলু, স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান মোস্ত, উপজেলা আওয়ামীলীগের সদস্য বর্তমান চেয়ারম্যান আল সুমন আব্দুল্লাহ, ইসলামী আন্দোলনের শরিফুল ইসলাম। লক্ষীটারী ইউনিয়নে ৫ জন হলেন জাতীয় পার্টির মনোনীত ইউনিয়ন জাতীয় পার্টির সভাপতি বর্তমান চেয়ারম্যান আব্দুল্লা আল হাদী, আওয়ামীলীগের মনোনীত উপজেলা ছাত্রলীগের সহসভাপতি জুয়েল রানা, স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে উপজেলা বিএনপির সভাপতি ওয়াহেদুজ্জামান মাবু, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মমিনুর রহমান, ইসলামী আন্দোলনের ফজলু মিয়া। গজঘণ্টা ইউনিয়নে ৫ জন, তারা হলেন আওয়ামীলীগের মনোনীত উপজেলা আওয়ামীলীগের সহসভাপতি লিয়াকত আলী, জাতীয় পার্টির মনোনীত ইউনিয়ন জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক খলিলুর রহমান, ইসলামী আন্দোলনের মোরশেদুল ইসলাম, স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে আলী মোঃ আলমগীর, উপজেলা আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা সদস্য মাহবুবর রহমান। মর্নেয়া ইউনিয়নে ৫ জন দাখিলের আওয়ামীলীগের মনোনীত উপজেলা আওয়ামীলীগের সদস্য বর্তমান চেয়ারম্যান মোছাদ্দেক আলী, জাতীয় পার্টির মনোনীত ইউনিয়ন জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান, জাসদের মাহবুবুল আলম, স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে ইউনিয়ন জাতীয় পার্টির সভাপতি রেজাউল কবির, উপজেলা আওয়ামীলীগের সদস্য জিল্লুর রহমান। আলমবিদিতর ইউনিয়নে ৭ জন হলো আওয়ামীলীগের মনোনীত ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হারুন অর রশিদ, জাতীয় পার্টির মনোনীত ইউনিয়ন জাতীয় পার্টির সভাপতি বর্তমান চেয়ারম্যান আফতাবুজ্জামান, ইসলামী আন্দোলনের জিল্লুর রহমান, স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে জেলা বিএনপি যুগ্ন সম্পাদক মোকাররম হোসেন সুজন, উপজেলা আওয়ামী কৃষক লীগের যুগ্ন আহবায়ক টিটুল মিয়া ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মোশারফ হোসেন। নোহালী ইউনিয়নের ৫ জন হলেন আওয়ামীলীগের মনোনীত উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক বর্তমান চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ টিটুল, জাতীয় পার্টির মনোনীত আশরাফ আলী, স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মোসলেম উদ্দিন, নাজনীন আক্তার, ইসলামী আন্দোলনের আনছারুল ইসলাম। ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী ২৯ নভেম্বর মনোনয়নপত্র বাছাই ও ৬ ডিসেম্বর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন। প্রতীক বরাদ্দ ৭ ডিসেম্বর এবং ২৩ ডিসেম্বর ভোট অনুষ্ঠিত হবে। উপজেলা আওয়ামীলীগের কয়েকজন নেতা জানান, মনোনীত প্রার্থীর ছাড়া যারা মনোনয়নপত্র দাখিল করেছে তাদের এ মহুর্তে বিদ্রোহী বলা যাচ্ছেনা, কারণ মনোনয়ন প্রত্যাহারের সুযোগ আছে এবং দলের বাইরে কেউ যাবেনা দলীয় সিদ্ধান্ত মেনে মনোনয়ন প্রত্যাহার করে নিবে। আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থীর বাইরে ১০ জন মনোনয়নপত্র দাখিলের বিষয় উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আজিজুল ইসলাম বলেন, দলীয় মনোনীত প্রার্থী ছাড়াও যারা মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন তাদের নিয়ে বসা হবে এবং আলোচনার মাধ্যমে তাদের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নিতে বলা হবে।