July 16, 2024

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Thursday, December 21st, 2023, 9:18 pm

গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়াকে বিঘ্নিত করার একটি গোষ্ঠীর প্রচেষ্টা প্রত্যক্ষ করছে জাতি: পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়

নির্বাচন ঘনিয়ে আসার সঙ্গে সঙ্গে বাংলাদেশ সরকার ও জনগণ সন্ত্রাসবাদ ও সহিংসতার বিরুদ্ধে ‘দৃঢ়ভাবে’ দাঁড়িয়েছে বলে জানিয়েছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

বৃহস্পতিবার (২১ ডিসেম্বর) মন্ত্রণালয় বলেছে, ‘তারা এই চ্যালেঞ্জ সত্ত্বেও শান্তি বজায় রাখতে এবং দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন অব্যাহত রাখতে বদ্ধপরিকর।’

মোহনগঞ্জ এক্সপ্রেসের সাম্প্রতিক ঘটনায় স্থানীয় প্রশাসন, পুলিশ এবং দমকল বিভাগ রেললাইন অপসারণের কারণে লাইনচ্যুত হওয়ার ঘটনায় ‘দ্রুত’ উদ্ধার তৎপড়তা চালিয়েছে। নাশকতার সঙ্গে জড়িত সন্দেহভাজন দুজনকে আটক করা হয়েছে বলেও জানায় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলেছে, ‘তদন্তে দেখা গেছে যে এই কাজটি পূর্বপরিকল্পিত ছিল, এই মারাত্মক ঘটনার পরিকল্পনা করার জন্য সভা অনুষ্ঠিত হয়েছিল। এই নাশকতা রাষ্ট্র ও জনগণের ওপর সরাসরি আক্রমণ, যার উদ্দেশ্য আসন্ন নির্বাচন ও দেশের অগ্রগতিকে ব্যাহত করা।’

এদিকে, বৃহস্পতিবার বিকালে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র সেহেলি সাবরিন এক সাপ্তাহিক ব্রিফিংয়ে বলেন, ৯টি দেশ ৭ জানুয়ারি অনুষ্ঠেয় দ্বাদশ জাতীয় নির্বাচন পর্যবেক্ষণের বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

ভারত, শ্রীলঙ্কা, চীন, রাশিয়া, জাপান, উজবেকিস্তান, মরিশাস, জর্জিয়া ও ফিলিস্তিন পর্যবেক্ষক পাঠাচ্ছে।

অন্যদিকে ওআইসি, কমনওয়েলথ এবং আরব পার্লামেন্টও নির্বাচন পর্যবেক্ষণ করবে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

নির্বাচন পর্যবেক্ষণের জন্য ইইউ’র চার সদস্যের বিশেষজ্ঞ প্যানেল ইতোমধ্যে ঢাকায় এসেছে।

একটি কূটনৈতিক সূত্র ইউএনবিকে জানিয়েছে, এনডিআই-আইআরআই সদস্যদের সমন্বয়ে একটি ছোট দলও নির্বাচন পর্যবেক্ষণ করবে।

২০২৪ সালের ৭ জানুয়ারি অনুষ্ঠেয় জাতীয় নির্বাচনের ‘উৎসবমুখর পরিবেশে’ বাংলাদেশ যখন প্রবেশ করছে, তখন জাতি প্রত্যক্ষ করছে একটি স্বার্থান্বেষী গোষ্ঠী বাংলাদেশের গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়াকে বিঘ্নিত করার চেষ্টা করছে বলে ফেসবুক পেজে জানায় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

এতে বলা হয়, জনপ্রিয় ও রাজনৈতিক সমর্থন অর্জনে ব্যর্থ হওয়ার পর বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি) ও তাদের শরিকদের একটি অংশ আসন্ন নির্বাচনে বড় ধরনের প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টির লক্ষ্যে অবরোধ আরোপের প্রচেষ্টা জোরদার করেছে।

বিএনপি’র এই কৌশলগত পদক্ষেপের ফলে সারা দেশে ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগের ঘটনা উদ্বেগজনকভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে, দেশে এবং বিদেশে তাদের সমস্ত অনুসারীদের জন্য আপাতদৃষ্টিতে যে বার্তাটি ছিল তা থেকে জানা যায়।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানায়, তাদের সমর্থকরা আতঙ্ক সৃষ্টি করতে এবং তাদের বিতর্কিত দাবি মেনে নিতে সরকারের ওপর অযৌক্তিক চাপ সৃষ্টি করতে এসব ধ্বংসাত্মক কর্মকাণ্ডে লিপ্ত হয়েছে।

এতে বলা হয় গত ১৩ ডিসেম্বর বিএনপি-জামায়াত কর্মীরা ইচ্ছাকৃতভাবে রেললাইনের ২০ ফুট অংশ সরিয়ে নিলে সহিংসতার একটি উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত।

তিনি বলেন, ‘এই নাশকতার ফলে ঢাকাগামী মোহনগঞ্জ এক্সপ্রেস গাজীপুরে মর্মান্তিকভাবে ট্রেন লাইনচ্যুত হয়। ভোর ৪টা নাগাদ ঘটে যাওয়া এই দুর্ঘটনায় একজনের মৃত্যু হয় এবং ৫০ জনেরও বেশি যাত্রী আহত হন।

বিবৃতিতে বলা হয়, বিএনপির ডাকা ৩৬ ঘণ্টার অবরোধের প্রত্যক্ষ পরিণতি এই ঘটনা জাতীয় স্থিতিশীলতা বিঘ্নিত করতে এই দলগুলো কতটা বিপজ্জনক পর্যায়ে যাবে তার দৃষ্টান্ত।

গত ১৯ ডিসেম্বর আবারও ঢাকার তেজগাঁও রেলস্টেশন এলাকায় মোহনগঞ্জ এক্সপ্রেসের তিনটি বগিতে আগুন ধরিয়ে দেয়ায় এক নারী ও তার তিন বছরের ছেলেসহ অন্তত চারজন নিহত হন।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলেছে, বিএনপি-জামায়াত জোটের কর্মকাণ্ড রাজনৈতিক অস্থিরতার বাইরেও বিস্তৃত; তারা নাগরিকদের শারীরিক ক্ষতি করেছে এবং সরকারি সম্পত্তির ব্যাপক ক্ষতি করেছে।

পুলিশ এবং জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তারা এই ঘটনার সঙ্গে এই গোষ্ঠীগুলোর সম্পৃক্ততার প্রমাণ পেয়েছেন। এর মধ্যে রেললাইন বিছিন্ন করার জন্য ব্যবহৃত গ্যাস সিলিন্ডারও রয়েছে।

ট্রেনে হামলার এ ধরন নতুন কিছু নয় উল্লেখ করে এমওএফএ বলেছে, বিএনপি-জামায়াত জোট এর আগে ২০১৩ থেকে ২০১৫ সালের মধ্যে প্রায় ৪ হাজার গাড়ি পোড়ানো এবং একাধিক রেলওয়েতে অগ্নিসংযোগসহ একই ধরনের সহিংস কর্মকাণ্ডে লিপ্ত ছিল।

সাম্প্রতিক সময়ে এ ধরনের কৌশলের পুনরুত্থান এই ধ্বংসাত্মক পদ্ধতিতে ফিরে আসার ইঙ্গিত দেয়।

২০২৩ সালের ২৮ অক্টোবর থেকে বিএনপি’র সরকারবিরোধী সমাবেশে দেশব্যাপী প্রায় ৪০০ গাড়ি পোড়ানো হয়েছে।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানায়, ‘নির্বাচনকে সামনে রেখে হরতাল ও অবরোধের ডাক দেওয়ায় তাদের কৌশল অতীতের কর্মকাণ্ডের উদ্বেগজনক পুনরাবৃত্তি। রাজনৈতিক উদ্দেশ্য অর্জনে বিএনপি-জামায়াত জোট শুধু শারীরিক ক্ষতি ও সম্পত্তির ক্ষতিই করেনি, পুলিশ হাসপাতাল, অ্যাম্বুলেন্সসহ অত্যাবশ্যকীয় সেবার ওপরও হামলা চালিয়েছে।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলেছে, ‘এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন উত্থাপন করে: বিএনপি-জামায়াত জোটের কর্মকাণ্ড কি রাজনৈতিক মত প্রকাশের বৈধ রূপ, নাকি এটি মানবাধিকার ও জননিরাপত্তার মারাত্মক লঙ্ঘন।

—–ইউএনবি