November 29, 2022

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Tuesday, November 22nd, 2022, 8:14 pm

চার বছর আগের স্মৃতি মনে করতে চায়না জার্মানী

অনলাইন ডেস্ক :

আগামীকাল বুধবার খালিফা ইন্টারন্যাশনাল স্টেডিয়ামে গ্রুপ-ই’তে এশিয়ান পরাশক্তি জাপানের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে বিশ্বকাপ শুরু করতে যাচ্ছে জার্মানী। বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যে ৭টায় শুরু হওয়া ম্যাচটিতে চার বছর আগের হতাশা কাটিয়ে এবার নিজেদের প্রমানে যেন মুখিয়ে আছে সাবেক বিশ্ব  চ্যাম্পিয়নরা। ২০১৮ সালে রাশিয়া বিশ্বকাপে তৎকালীন চ্যাম্পিয়ন হিসেবে গ্রুপ পর্ব থেকে বিদায় ছিল জার্মানদের জন্য লজ্জাজনক। ব্রাজিলে জোয়াচিম লোয়ের অধীনে শিরোপা জয়ী দলটি রাশিয়াও শিরোপা ধরে রাখার মিশনে ফেবারিট ছিল। বিশ্বকাপ থেকে বিদায়ের পর ২০২০ ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশীপের শেষ ১৬’র হার্ডলস পার করতে পারেনি জার্মানরা। এর পরপরই দীর্ঘদিনের কোচ লো নিজে থেকে সড়ে যাবার ঘোষনা দেন। ওয়েম্মলি স্টেডিয়ামে ইংল্যান্ডের কাছে ২-০ গোলের পরাজয়ের ম্যাচটি ছিল লো’র অধীনে জার্মানীর শেষ ম্যাচ। এরপর জাতীয় দলের দায়িত্ব নেন আরেক পরীক্ষীত কোচ হান্সি ফ্লিক। এবারের আসরে আর্জেন্টিনা ও ব্রাজিল হট ফেবারিট হলেও ফ্লিকের অধীনে জার্মানী কতদূর এগিয়ে যায় তা সময়ই বলে দিবে। যদিও শেষ আট ম্যাচে মাত্র দুটি জয় পাওয়ায় কিছুটা হলেও জার্মানদের আত্মবিশ্বাসে ঘাটতি রয়েছে। ইতালি, ইংল্যান্ড ও হাঙ্গেরির সাথে নেশন্স লিগের গ্রুপ পর্বে তৃতীয় স্থান অর্জন করেছে জার্মানী। গত বুধবার বিশ্বকাপের শেষ প্রস্তুতি ম্যাচে ওমানকে মাত্র ১-০ গোলে পরাজিত করেছে। চারবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ইতালি যেহেতু এবারের আসরে অংশ নিতে পারেনি সে কারনেই জার্মানীর সামনে সুযোগ রয়েছে ব্রাজিলের পাঁচবারের শিরোপা জয়ের রেকর্ড স্পর্শ করার। কিন্তু গ্রুপ পর্বে জাপান, কোস্টা রিকা চ্যালেঞ্জ আগে মোকাবেলা করতে হবে, এরপর রয়েছে নক আউট পর্ব। সাম্প্রতি ফর্ম বিচারে জার্মানদের নিয়ে খুব একটা আশাবাদী হওয়া যায়না বলাই চলে। এবারের বিশ্বকাপে বাছাইপর্ব পেরিয়ে প্রথম দল হিসেবে কাতারের টিকিট পেয়েছে জার্মান। রাশিয়া বিশ্বকাপে মেক্সিকোর কাছে ১-০ গোলে পরাজিত হবার মাধ্যমে ১৯৮৬ সালের পর প্রথম চ্যাম্পিয়ন দল হিসেবে প্রথম ম্যাচে তিন পয়েন্ট অর্জনে ব্যর্থ হয়েছিল লো’র শিষ্যরা। এদিকে জাপানের এবারের দলে ইউরোপে খেলা কোন খেলোয়াড় নেই। ১৯৯৮ সালে বিশ্বকাপে অভিষেক হওয়া দলটিতে বেশীরভাগই ঘরোয়া জে-লিগ ও জার্মান ক্লাবের খেলোয়াড় রয়েছে। এনিয়ে টানা সপ্তমবারের মত বিশ্বকাপের চূড়ান্ত পর্বে খেলার যোগ্যতা অর্জণ করেছে ব্লু-সামুরাইরা। গত ২৪ বছর ধরে নিজেদের সেরাটা দেবারই চেষ্টা করে গেছে এশিয়ান পরাশক্তিরা। এবারের দলটিতে জে-লিগে খেলা সাতজন খেলোয়াড় রয়েছেন যার মধ্যে অন্যতম হলেন অভিজ্ঞ ফুল-ব্যাক ইউতো নাগামোতো। ৩৬ বছর বয়সী এই ডিফেন্ডার ইউরোপে ইন্টার মিলান, গ্যালাতাসারে ও মার্সেইর মত ক্লাবে ১১ বছর কাটানোর পার জাপানে ফিরে আসেন। এছাড়াও হিরোকি সাকাইও জার্মানী ও ফরাসি লিগে খেলেছেন। দলের ১৯ জন খেলোয়াড় এবারই প্রথমবারের মত বিশ্বকাপেখেলার অভিজ্ঞতা অর্জণ করবেন। আগের তিন বিশ্বকাপে জাপানকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া কেইসুকে হোন্ডা, শিনজি কাগাওয়া, শিনজি ওকাজাকি ও মাকোতো হাসেবের কাছ থেকে অনুপ্রেরণা নিয়েই নতুন প্রজন্ম এবারের আসরে ব্লু সামুরাইদের প্রতিনিধিত্ব করতে যাচ্ছে। গোলরক্ষক এইজি কাওয়াশিমা চতুর্থবারের মত বিশ্বকাপে দলে ডাক পেয়েছেন, যদিও এবার তিনি ব্যাক-আপ গোলরক্ষক হিসেবে দলে আছেন। এই দলের ছয়জন খেলোয়াড় এবারের চ্যাম্পিয়ন্স লিগের গ্রুপ পর্বে বিভিন্ন দলে খেলেছে। এর মধ্যে মিডফিল্ডার ডাইচি কামাডা গত মৌসুমে এইনট্র্যাখ ফ্র্যাংকফুর্টের হয়ে ইউরোপা লিগের শিরোপা জিতেছিলেন। তাকেহিরো টোমিইয়াসু নিয়মিত আর্সেনালে খেলে থাকেন। এবারের গ্রীষ্মে প্রিমিয়ার লিগের দল ব্রাইটনে যোগ দিয়েছেন কাওরু মিতোমা। ২০১৮ সালে বেলজিয়ামের ২-০ গোলে এগিয়ে থেকেও বেলজিয়ামের সাথে শেষ আটের লড়াইয়ে ৩-২ গোলে পরাজিত হয়ে মাথা উঁচু করেই বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নিয়েছিল জাপান। সর্বশেষ ১৮ ম্যাচে ১৫ জয় ও ৫৮ গোলকে সঙ্গী করে বাছাইপর্ব উতরে মূল পর্বে খেলতে আসা জাপানকে নিয়ে এবার আলাদা করে অন্য দলগুলোকে ভাবতেই হচ্ছে। এর আগে প্রতিদ্বন্দ্বীতামূলক ম্যাচে কখনই একে অপরের মোকাবেলা করেনি জার্মানী ও জাপান। তবে দুটি প্রীতি ম্যাচের একটিতে ২০০৪ সালে জার্মানী ৩-০ গোলে জয়ী হরেও দুই বছর পরের ম্যাচটি ২-২ গোলে ড্র হয়েছিল। বিশ্বকাপ শুরুর আগে মার্কো রেয়াসের উপর জার্মানদের সব স্পটলাইটের কথা ভাবা হলেও ইনজুরির কারণে পুরো আসর থেকেই ছিটকে গেছেন এই এ্যাটাকিং মিডফিল্ডার। এর আগে ইউরো ২০১৬, ইউরো ২০২০ ও ২০১৪ বিশ্বকাপও খেলা হয়নি রেয়াসের। তবে পরিপূর্ণ ফিট একটি দল নিয়ে প্রথম ম্যাচে মাঠে নামার প্রত্যাশা করছেন ফ্লিক। স্ট্রাইকার নিকলাস ফুলক্রুগ অসুস্থতা কাটিয়ে উঠেছেন। থমাস মুলার ও এন্টোনিও রুডিগারও এ সপ্তাহে পুর্নাঙ্গ অনুশীলনে ফিরেছেন। এ পর্যন্ত জার্মানীর হয়ে বিশ্বকাপে ১৬ ম্যাচে ১০ গোল ও ৬ এ্যাসিস্ট করা মুলার এবার ক্যারিয়ারের শেষ বিশ্বকাপে নিজেকে আরো এগিয় নিতে মুখিয়ে আছেন।