February 4, 2023

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Tuesday, November 29th, 2022, 8:00 pm

ছেলের সঙ্গে আমিও কলেজে ভর্তি হবো

বাবা-ছেলে একসঙ্গে এসএসসি পরীক্ষায় পাশ করে এক অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। তাছাড়াও এমন সাফল্যে এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলার ২নং গৌরীপুর ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের সাবেক ইউপি সদস্য এখলাস উদ্দিন নয়ন(৪৫) চলতি বছরে এসএসসি ভোকেশনাল পরীক্ষায় অংশ নিয়ে জিপিএ-৫ পেয়েছে।

এখলাস উদ্দিন নয়নের এমন সাফল্যের সঙ্গে বাড়তি আরও আনন্দ যোগ দিয়েছে ছেলের মোহাম্মদ রায়হানের (১৭) সাফল্য। সে এবারের এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়ে পেয়েছে ৪.৮৬ পয়েন্ট।

বাবা-ছেলের এমন সাফল্যে খুশি তাদের পরিবার স্বজন ও এলাকাবাসী।

জানা যায়, সাবেক ইউপি সদস্য এখলাস উদ্দিন নয়ন কেন্দুয়া উপজেলার মগরাই আদর্শ কারিগরি ইন্সটিটিউট থেকে কম্পিউটার এন্ড ইনফরমেশান টেকনোলজি বিভাগের অনিয়মিত ছাত্র হিসেবে পরীক্ষায় অংশ নিয়ে জিপিএ-৫ অর্জন করেন।

অন্যদিকে ছেলে মোহাম্মদ রায়হান গৌরীপুর টেনকিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজ থেকে বিল্ডিং মেইনটেনেন্স বিভাগের নিয়মিত ছাত্র হিসেবে এবারের এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়ে ৪.৮৬ অর্জন করেছে।

মোহাম্মদ রায়হান জানান, রাতে বাবা আর আমি একসঙ্গে পড়তে বসেছি। প্রথমে বাবা কিছুটা লজ্জা পেলেও আস্তে আস্তে সবার অভ্যাস হয়ে গেছে। বাবা আমার থেকে কম পড়ালেখা করেও আমার চেয়ে ভালো রেজাল্ট করেছে। আমার রেজাল্ট আরও ভালো হলে আরও খুশি হতাম।

এ বিষয়ে এখলাস উদ্দিন নয়ন জানান, ছেলে-মেয়ে নিয়ে চার সদস্যের সংসার। আমার মেয়ে আঁখি আক্তার বিএ পাস করেছেন। বয়স হয়ে যাওয়ার কারণে আমার লেখাপড়া করার ইচ্ছা ছিল না। কিন্তু স্ত্রী সালমা বেগমের কারণেই ছেলের সঙ্গে আমাকেও পরীক্ষা দিতে হয়েছে। পরীক্ষা দেয়ার সময় কিছুটা লজ্জা লাগলেও ফলাফল পেয়ে এখন ভালো লাগছে। ছেলের সঙ্গে আমিও কলেজে ভর্তি হয়ে লেখাপড়া চালিয়ে যাবার ইচ্ছা আছে।

কেন্দুয়ার মগরাইল আদর্শ কারিগরি ইনস্টিটিউটের অধ্যক্ষ আব্দুল কাইয়ুম বলেন, এখলাছ উদ্দীন নয়ন আমার প্রতিষ্ঠান থেকে পরীক্ষা দিয়েছেন। এ বয়সে এসে তার এমন ফলাফলে আমরা গর্বিত।

গৌরীপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) হাসান মারুফ বলেন, শিক্ষার কোন বয়স নাই, শিক্ষা প্রতিটি মানুষের মৌলিক অধিকার। অদম্য এই বাবাকে দেখে সাধারণ মানুষ লেখাপড়ায় আরও অনুপ্রাণিত হবে বলেও মনে করছি।

—-ইউএনবি