November 30, 2021

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Monday, July 26th, 2021, 1:12 pm

ছেলে সাইমনকে হত্যার স্বীকারোক্তিতে যা বললেন বাবা

জেলা প্রতিনিধি :

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদরের সুহিলপুর ইউনিয়নের নদ্দাপাড়ায় জমি থেকে শিশু সাইমনের গলাকাটা মরদেহ উদ্ধারের রহস্য উদঘাটন করেছে পুলিশ। ৯ বছরের ছেলেকে গলাকেটে হত্যার পর মরদেহ জমিতে ফেলে যান বাবা বাদল মিয়া (৩০)।

রোববার (২৫ জুলাই) বিকেলে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আনোয়ার সাদতের আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন বাদল। সুহিলপুর ইউনিয়নের নদ্দাপাড়ার বাসিন্দা তিনি।বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এমরানুল ইসলাম।

ঘটনার বর্ণনা দিয়ে সদর মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) কাজি মাসুদ ইবনে আনোয়ার বলেন, ‘হত্যাকান্ডের পারিপার্শ্বিক অবস্থা অনুযায়ী নিহত শিশুর বাবা বাদল মিয়াকে পুলিশের সন্দেহ হয়। শনিবার রাতে তাকে আমরা ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করি। প্রথমে সে টালবাহানা করলেও পরে হত্যার কথা স্বীকার করে। এ ঘটনায় বাদলের স্ত্রী মিলি বেগম বাদী হয়ে মামলা করেছেন।’

বাদলের স্বীকারোক্তির বরাত দিয়ে কাজি মাসুদ জানান, ২০১২ সালে বাদলের সঙ্গে মিলির বিয়ে হয়। তাদের সংসারে সাইমন (৯), আইমান (৬) ও নাইম (৪) নামের তিন ছেলে রয়েছে। তবে বাদলের দাবি সাইমন তার সন্তান নয়, আইমান ও নাঈম তার সন্তান। আইমান ও নাঈমকে সাইমন প্রায় সময় মারধর করে। এ নিয়ে বাদল মিয়ার ভেতরে ক্ষোভ বিরাজ করছিল।

পুলিশ পরিদর্শক জানান, সর্বশেষ গত এক সপ্তাহ আগে সাইমন মারধর করে আইমান ও নাঈমকে। এরপরই বাদল মিয়া সিদ্ধান্ত নেন স্ত্রীর ‘জারজ’ সন্তান সাইমন তার নিজের দুই ছেলেকে মারধর করে, তাই সাইমনকে সে মেরে ফেলবে। পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী শনিবার সকালে সাইমনকে ঘাস কাটার কথা বলে জমিতে নিয়ে যায় বাদল মিয়া। সেখানে কাঁচি দিয়ে সাইমনের গলাকেটে হত্যা করে বাদল মিয়া।