May 20, 2024

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Sunday, April 16th, 2023, 3:42 pm

জুড়ী ও বড়লেখার ৩০ হাজার গ্রাহক মোবাইল নেটওয়ার্ক থেকে বঞ্চিত

জেলা প্রতিনিধি, মৌলভীবাজার:

দেশের প্রযুক্তি খাতে বর্তমানে ব্যাপক উন্নয়ন হচ্ছে, যোগাযোগ ব্যবস্থার আধুনিকায়নের সাথে সহজতর হচ্ছে ব্যবসা-বাণিজ্য, বাড়ছে মানুষের জ্ঞানের পরিধিও। কিন্তু এসব প্রযুক্তির সুযোগ- সুবিধা থেকে বঞ্চিত রয়েছে মৌলভীবাজারের বড়লেখা ও জুড়ী উপজেলার প্রায় অর্ধশত এলাকার ৩০ হাজারেরও বেশি মানুষ। এ এলাকার মানুষ পারস্পরিক যোগাযোগের জন্য জরুরী মোবাইল নেটওয়ার্ক সেবাটুকুও পাচ্ছেন না। সারাদেশ যেখানে তথ্যপ্রযুক্তির মিছিলে এগিয়ে যাচ্ছে ঠিক তখনই এসব এলাকার মানুষ আধুনিকতার ছোঁয়া থেকে বঞ্চিত।

নেটওয়ার্ক বঞ্চিত মানুষের পক্ষে ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী মোস্তফা জব্বারের কাছে গত ১১ এপ্রিল ও বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের চেয়ারম্যান শ্যাম সুন্দর শিকদার বরাবরে নেটওয়ার্ক সমস্যা সমাধানের জন্য ১২ এপ্রিল পৃথক দুটি লিখিত আবেদন করেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের শিক্ষা ও মানবসম্পদ বিষয়ক উপ কমিটির সদস্য জুড়ীর বাসিন্দা এস এম জাকির হোসাইন। আবেদনের প্রেক্ষিতে মন্ত্রী মোস্তফা জব্বারের নির্দেশে ১৩ এপ্রিল বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রন কমিশনের ভাইস-চেয়ারম্যান মোঃ মহিউদ্দিন আহমেদ এর কার্যালয়ে টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রন কমিশনের মহা-পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোঃ নাসিম পারবেজ, আবেদনকারী এস এম জাকির হোসাইনের উপস্থিতিতে বড়লেখা-জুড়ী উপজেলার মোবাইল নেটওয়ার্ক সমস্যা নিয়ে আলোচনা করা হয় এবং টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রন কমিশনের উপ-পরিচালক মাহদী আহমদকে দ্রুত পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য নির্দেশ দেয়া হয়।

জানা গেছে, জুড়ী উপজেলার ৩৫টি এলাকার মধ্যে গোয়ালবাড়ি ইউনিয়নের লাঠিটিলা, কুচাই, কচুরগুল, নালাপুঞ্জি, ডোমাবাড়ি, রূপাছড়া, লালছড়া, শিলুয়া চা-বাগান, রত্না চা-বাগান, এলাপুর, জালালপুর, পূর্ব জুড়ী ইউনিয়নের জামকান্দি, দূর্গাপুর, গোবিন্দপুর, বিনোদপুর, উত্তর কালাছড়া, সোনারূপা, বিনোদপুর, সোকনাছড়া, হায়াছড়া, বেলবাড়ি, জায়ফরনগর ইউনিয়নের কালিনগর, বাহাদুরপুর, ফুলতলা ইউনিয়নের রহিমপুর, চুঙ্গাবাড়ি, রাজকী চা-বাগান, বটুলী। পশ্চিম জুড়ী ইউনিয়নের আমতৈল, খাখটেকা, পশ্চিম বাছিরপুর, সাগরনাল ইউনিয়নের বরাডহর, বরইতলী, মোকামবাড়ি, কাপনাপাহাড় চা-বাগান, বড়লেখা উপজেলার ১৫টি এলাকার মধ্যে দক্ষিণভাগ ইউনিয়নের ১০ নং কাশেম নগর, নিউ সমনভাগ চা বাগান, মোকাম, পাথারিয়া খাসিয়া পুঞ্জি, সুজানগর ইউনিয়নের বড়থল (সোনাপুর), দাসেরবাজার ইউনিয়নের গুলোয়া, তালিমপুর ইউনিয়নের বড়-ময়দান, উত্তর শাহবাজপুর ইউনিয়নের বড়াইল, কুমারশাইল, আয়েশাবাগ চা-বাগান, পাল্লাতল চা-বাগান, দক্ষিণ শাহবাজপুর ইউনিয়নের বোবারতল এলাকার প্রায় ৩০ সহ¯্রাধিক লোক নেটওয়ার্কিং সেবা থেকে বঞ্চিত রয়েছে। নেটওয়ার্কের টাওয়ার না থাকার কারনে প্রবাসী অধ্যুষিত এসব এলাকার মানুষ ফোনে নেট পান না। তাদের পরিবার পরিজনের সাথে কথা বলতে পারেন না। বেশির ভাগ সময় কথা বলতে হলে পরিবারের লোকজন ঘরের বাহিরে অন্যত্র এসে ফোনের অপেক্ষা করতে হয়। এসকল এলাকায় বর্তমান সময়ে যোগাযোগের অন্যতম মাধ্যম মোবাইল ফোনের নেটওয়ার্ক স্থাপন করে দিলে এসব এলাকার মানুষ আর্ত-সামাজিকভাবে আরো এগিয়ে যাবে এবং দেশের উন্নয়নে অবদান রাখতে পারবে।

স্থানীয় জায়ফর নগর গ্রামের বাসিন্দা শিলুয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক কামরুল ইসলাম বলেন, দীর্ঘদিন আমাদের এলাকায় গ্রামীন ফোনের টাওয়ার ছিল না। আবেদনের প্রেক্ষিতে টাওয়ার হলে ও নেটওয়ার্ক সমস্যা সমাধান হয়নি। পাশাপাশি বিদ্যুৎ চলে গেলে সবকিছুর মত নেটওয়ার্কও অন্ধকার হয়ে যায়।

পূর্ব জুড়ী ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য শিবাকান্ত গোয়ালা জানান, পূর্ব জুড়ী ইউনিয়নের বেশ কয়েকটি গ্রাম নেটওয়ার্ক সেবা থেকে বঞ্চিত। তারা বিদেশে কথা বলতে হলে ঘরের বাহিরে গিয়ে ঘন্টার পর ঘন্টা অপেক্ষা করে কথা বলতে হয়। এসব এলাকার মানুষকে ইন্টারনেট সেবা থেকে বাহিরে রেখে ডিজিটাল বাংলাদেশ গঠন সম্ভব হবে না।

এ বিষয়ে এস এম জাকির হোসাইন এই প্রতিবেদককে বলেন, আমার এলাকার মানুষের দীর্ঘদিনের দাবিটি আমলে নিয়ে ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী মোস্তফা জব্বারসহ অন্যান্য সংশ্লিষ্টরা এলাকার মানুষকে আশ^স্ত করে বলেছেন যত দ্রুত সম্ভব মোবাইল নেটওয়ার্ক সমস্যার সমাধানের জন্য কাজ শুরু করার নির্দেশনা দিয়েছেন। আশা করছি অচিরেই এ সমস্যার সমাধান হবে।

বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রন কমিশনের উপ-পরিচালক মাহদী আহমদ বলেন, বড়লেখা ও জুড়ী উপজেলার নেটওয়ার্ক সমস্যা নিয়ে আবেদন পাওয়ার পর সেটি মোবাইল অপারেটরগুলির কাছে পাঠানো হয়েছে। তারা সরেজমিনে সার্ভে করে যেসব এলাকায় নেটওয়ার্ক সমস্যা রয়েছে বা টাওয়ার নেই সেসব এলাকা চিহ্নিত করে একটি মতামত আমাদের কাছে প্রেরণ করলে পরবর্তীতে সে বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তিনি আরো বলেন, সেক্ষেত্রে যদি কিছু এলাকায় নতুন টাওয়ার স্থাপন করতে হয় সেসব এলাকায় কাজ শুরু করতে একটু বিলম্ব হতে পারে।