October 6, 2022

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Saturday, August 13th, 2022, 12:52 pm

“জেনিফার খাবার পানিও তালাবন্ধ করে রাখতেন”

অনলাইন ডেস্ক :

মাহিয়া মাহি ও জিয়াউল রোশান অভিনীত সিনেমা ‘আশীর্বাদ’ চলচ্চিত্রটি আগামী ১৯ তারিখ মুক্তি পেতে যাচ্ছে। এই সিনেমার মুক্তি উপলক্ষে গত রাতে রাজধানীর একটি রেস্তোরাঁয় হয়ে গেল সংবাদ সম্মেলন। তবে এই সংবাদ সম্মেলনে মূখ্য অভিনয়শিল্পীরা ছিলেন না। কারণ হিসেবে জানা গেল, রোশান ও মাহি এই আশীর্বাদ সিনেমার পোস্টার ফেসবুকে শেয়ার দেননি। প্রযোজক জেনিফারের অভিযোগের জবাবে পাল্টা অভিযোগ করলেন অভিনেতা জিয়াউল রোশান। বললেন, ‘একটা পোস্টার বানাতে হলে ফটোশুট করতে হয়, তাও যদি না হয় অন্তত যে পোস্টার বানানোর পর সেটা নিয়ে অভিনয়শিল্পীদের মতামত নেওয়া দরকার। লো কোয়ালিটির একটা পোস্টার বানিয়ে যদি আমাকে শেয়ার দিতে বলা হয় তাহলে তা মোটেও কাম্য নয়। ’ পোস্টার প্রসঙ্গে নায়ক নায়িকাদের সঙ্গে আলোচনা করা হয়নি। নিজেদের মতো একটা নিম্ন মানের পোস্টার বানানো হয় যেটা সম্পর্কে রোশান নিজের অভিমত জানিয়েছিলেন। বিষয়টি নিয়ে রোশান বলেন, ‘আমাকে যখন পরিচালক মানিকভাই পোস্টার পাঠালেন তখন আমি আমার মতামত দিলাম এই বলে যে পোস্টারটা ভালো করতে। তিনি পরে জানাবেন বললেন। কিন্তু পরে জানাননি নিজেই ওটা আপলোড দিলেন উনারা। আমি সেই পোস্টার আপলোড দিইনি। ’ এই অভিনেতা বলেন, ‘সিনেমা মার্কেটিং-এর একটা পলিসি থাকে, সম্মিলিতভাবে আলোচনা করতে হয়। ফেসবুক বা হোয়াটসাপে গ্রুপ খুলতে পারতেন তারা। আমি জানি না কিছুই, আমাকে সাইকো সিনেমার প্রচারে গিয়ে সিনেমা হল মালিকের কাছে শুনতে হলো এই সিনেমা নাকি মুক্তি পাচ্ছে ১৯ আগস্ট। এমন বিশৃঙ্খলভাবে একটা সিনেমার প্রচার হয় কিভাবে?’ প্রযোজকের পেশাদারিত্বের ঘাটতি রয়েছে উল্লেখ করে অভিনেতা বলছেন, ‘প্রযোজকের মধ্যে পেশাদারিত্বের কোনো ব্যাপার নেই। তিনি এই সিনেমার শুটিং থেকে শুরু করে শেষ পর্যন্ত অপেশাদার আচরণ করে গেছেন, শিল্পীদের সঙ্গে যথার্থ ব্যবহার করেননি, এমনকি শুটিং ইউনিটে শিল্পীদের খাবার নিয়েও কষ্ট দিয়েছেন তিনি। ’ জেনিফারের বিরুদ্ধে অভিযোগ করে রোশান বলেন, ‘এটা ৬০ লাখ টাকার অনুদানের ছবি। আমি জানি না আসলে সম্পূর্ণ টাকা দিয়ে সিনেমা বানানো হয়েছে কি না। না হলে এত কোয়ালিটি কম্প্রোমাইজ করে কেন সিনেমা বানানো হলো। শুটিং ইউনিটে কখনো খাবারের সমস্যা হবার কথা না। অথচ উনি খাবারের সমস্যা করলেন। খাবার পানি পর্যন্ত নিজের ঘরে তালাবন্ধ করে রাখতেন। আমাদের খাবারের ও পানির সমস্যায় পড়তে হয়েছে অনেকবার। টাকা বাচাতে উনি নিজেই বাজার করতে যেতেন। ’প্রযোজক জেনিফারের কর্মকা-ে বিরক্তি প্রকাশ করে রোশান বলেন, ‘প্রযোজক জেনিফার শুটিংয়ে হস্তক্ষেপ করতেন। প্রতিটি সিন শেষ হতেই উনি এসে সেলফি তুলে ফেসবুকে আপলোড দেন। এভাবে সিন বাই সিন যদি ফেসবুকে দেওয়া হয় তাহলে কিভাবে শুটিং করবো? এসব বিরক্তির মাঝেও ওঁর আবদার আমরা যে ছবি ফেসবুকে আপলোড দিব তাতে যেন প্রযোজক জেনিফারকেও থাকতে হবে; লিখে দিতে হবে প্রযোজকের নাম। এসব অব্যবস্থাপনা নিয়ে খুবই বিরক্ত ছিলাম। তারপরেও ভেবেছিলাম প্রচারে অংশ নিব। কিন্তু সংবাদ সম্মেলন করে প্রচুর মিথ্যা কথা বললেন। এসব খারাপ লাগছে। ’রাজধানীর মগবাজারের মঙ্গলবার সন্ধ্যায় আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে, প্রযোজক জেনিফার বলেন, ‘আশীর্বাদ সিনেমায় তারা অভিনয় করেছে অথচ ছবির পোস্টার তারা ফেসবুকে শেয়ার দেয়নি। কেন যে শেয়ার দিচ্ছে না বুঝতে পারছি না! যেহেতু তারা শেয়ার করেনি। মনে হয়েছে আমাদের ছবির পার্ট হিসেবে তারা খুশি নন। ’ সেজন্য আমি, আমার পরিচালক তাদের ফোন করে জানাইনি এ সংবাদ সম্মেলনের ব্যাপারে। আজকে ব্যতিক্রম প্রচারণার মাধ্যমে ছবির এই সংবাদ সম্মেলন করলাম নায়ক-নায়িকা ছাড়া। আক্ষেপ নিয়ে তাহেরা ফেরদৌস জেনিফার বলেন, ‘নায়ক-নায়িকাদের আজকাল এত ডিমান্ড যে প্রযোজক-পরিচালকরা হিমশিম খেয়ে যাই। ’‘আশীর্বাদ’ ছবিটি ২০১৯-২০ অর্থবছরে সরকারি অনুদানপ্রাপ্ত। এর কাহিনি ও চিত্রনাট্যও তার। সংলাপ লিখেছেন আব্দুল্লাহ জহির বাবু।