February 24, 2024

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Thursday, March 2nd, 2023, 8:18 pm

জয়ের সুবাস পাচ্ছে অস্ট্রেলিয়া

অনলাইন ডেস্ক :

ইন্দোরের স্পিন স্বর্গে বল হাতে ছড়ি ঘোরালেন ন্যাথান লায়ন। তাকে সামলানোর কোনো পথই যেন জানা ছিল না প্রতিপক্ষের ব্যাটসম্যানদের। তার খুনে বোলিংয়ে আবারও দুইশর আগে গুটিয়ে গেল ভারত। সিরিজে প্রথম জয়ের শক্ত ভিত পেল অস্ট্রেলিয়া। দিন জুড়ে দারুণ নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে আট উইকেট নেন এই অফ স্পিনার। মূলত তার স্পিনের সামনেই আরও একবার মুখ থুবড়ে পড়ে স্বাগতিকদের শক্ত ব্যাটিং লাইনআপ। বোর্ডার-গাভাস্কার সিরিজের তৃতীয় টেস্টের দ্বিতীয় দিন অস্ট্রেলিয়াকে ১৯৭ রানে গুটিয়ে ব্যাটিংয়ে নামে ভারত। প্রথম ইনিংসে ১০৯ রান করা স্বাগতিকরা এবারও ব্যাট হাতে শুরু থেকে দিশা হারিয়ে করতে পারে কেবল ১৬৩ রান। ৭৬ রানের লক্ষ্যে তৃতীয় দিন ব্যাটিংয়ে নামবে অস্ট্রেলিয়া। হলকার ক্রিকেট স্টেডিয়ামের উইকেটের যে ভয়ঙ্কর অবস্থা, তাতে এই রান তাড়া করাও সহজ হওয়ার কথা নয়। ধীরগতি ও অসমান বাউন্সের উইকেটে ম্যাচের প্রথম ঘণ্টা থেকেই বল করছে বিশাল টার্ন। কঠিন এই চ্যালেঞ্জই মোকাবেলা করতে হবে স্টিভেন স্মিথ, মার্নাস লাবুশেনদের। প্রথম দুই টেস্টে তিন দিনেই হারা অস্ট্রেলিয়া এবার জয়ের সুবাস পাচ্ছে লায়নের সৌজন্যেই। টেস্ট ক্যারিয়ারে দ্বিতীয়বারের মতো ৮ উইকেট নেন তিনি, ৬৪ রান দিয়ে। তার সেরা পারফরম্যান্স ৫০ রানে ৮ উইকেট, সেটাও ভারতের বিপক্ষে ২০১৭ সালে। প্রথম ইনিংসে ৩ উইকেটের সুবাদে ম্যাচে মোট ১১ শিকার হলো লায়নের। টেস্টে এনিয়ে চতুর্থবার ম্যাচে ১০ বা তার বেশি উইকেট নিলেন তিনি। লায়নের স্পিনে যেভাবে ধস নেমেছিল ভারতের ব্যাটিংয়ে, তাতে আরও আগেই গুটিয়ে যাওয়ার শঙ্কা ছিল তাদের। কিন্তু চোয়ালবদ্ধ দৃঢ়তায় এক প্রান্ত আগলে রাখেন চেতেশ্বর পুজারা। ১ ছক্কা ও ৫ চারে ১৪২ বলে ৫৯ রান করেন তিনি। পুরো ম্যাচে ভারতের আর কেউ করতে পারেননি ৩০ রানও। বৃহস্পতিবার (২রা মার্চ) দিনের শুরুটা অবশ্য ছিল ভারতের। ৪ উইকেটে ১৫৬ রান নিয়ে খেলতে নামা অস্ট্রেলিয়াকে দুইশর আগে গুটিয়ে দেয় তারা। ১১ রানে তুলে নেয় প্রতিপক্ষের শেষ ৬ উইকেট। দেখেশুনে শুরু করলেও বেশিক্ষণ দলকে টানতে পারেননি পিটার হ্যান্ডসকম ও ক্যামেরন গ্রিন। আগের দিনের দুই অপরাজিত ব্যাটসম্যানকে পরপর দুই ওভারে ফিরিয়ে দেন রবিচন্দ্রন অশ্বিন ও উমেশ যাদব। এই দুইজনের ৪০ রানের জুটি ভাঙার পর প্রতিরোধ গড়তে পারেননি আর কেউ। বাকি উইকেটগুলো টপাটপ তুলে নেন অশ্বিন ও উমেশ। স্পিন সহায়ক উইকেটে ৩ উইকেট নেন পেসার উমেশ। অশ্বিনের শিকারও তিনটি। আগের দিন ৪ উইকেট নেন রবীন্দ্র জাদেজা। ৮৮ রানে পিছিয়ে থেকে ব্যাটিংয়ে নামা ভারত শিবিরে পঞ্চম ওভারে ছোবল দেন লায়ন। তাকে এগিয়ে এসে খেলার চেষ্টায় বোল্ড হন শুবমান গিল। কয়েক ওভার পর এই স্পিনার এলবিডব্লিউ করে দেন রোহিত শর্মাকে। রিভিউ নিয়েও বাঁচতে পারেননি ভারত অধিনায়ক। বিরাট কোহলিকে বেশিক্ষণ টিকতে দেননি ম্যাথু কুনেমান। জায়গা বানিয়ে খেলতে গিয়ে এলবিডব্লিউ হন তারকা ব্যাটসম্যান। থিতু হয়ে লায়নের স্পিনে বিদায় নেন জাদেজা। উইকেটে গিয়েই আক্রমণ চালান শ্রেয়াস আইয়ার। ২ ছক্কা ও ৩ চারে ২৭ বলে ২৬ রান করা ব্যাটসম্যান মিচেল স্টার্কের শিকার। বাঁদিকে ঝাপিয়ে দুর্দান্ত এক ক্যাচ নেন উসমান খাওয়াজা। শ্রিকর ভারতের পর অশ্বিনকে ফিরিয়ে টেস্টে ২৩তম পাঁচ উইকেট পূর্ণ করেন লায়ন। সতীর্থদের আসা-যাওয়ার মাঝে এক প্রান্তে মাটি কামড়ে পড়ে থাকেন পুজারা। নিজের সহজাত ব্যাটিংয়ে ১০৮ বলে করেন পঞ্চাশ। ৫১ রানে কাভারে তার ক্যাচ ছাড়েন লাবুশেন। অবশ্য এরপর বেশিদূর যেতে পারেননি পুজারা। লায়নের বলে লেগ স্লিপে চোখধাঁধানো এক ক্যাচে তার লড়াই থামান প্যাট কামিন্সের অনুপস্থিতিতে এই ম্যাচে নেতৃত্ব দেওয়া স্টিভেন স্মিথ। উমেশের পর সিরাজকে ফিরিয়ে ভারতের ইনিংস গুটিয়ে দেন লায়ন। অল্প এই পুঁজি নিয়ে কতটুকু লড়াই করতে পারে ভারত, সেটাই এখন দেখার।
সংক্ষিপ্ত স্কোর:
ভারত ১ম ইনিংস: ১০৯
অস্ট্রেলিয়া ১ম ইনিংস: (আগের দিন ১৫৬/৪) ৭৬.৩ ওভারে ১৯৭ (হ্যান্ডসকম ১৯, গ্রিন ২১, কেয়ারি ৩, স্টার্ক ১, লায়ন ৫, মার্ফি ০, কুনেমান ০*; অশ্বিন ২০.৩-৪-৪৪-৩, জাদেজা ৩২-৮-৭৮-৪, প্যাটেল ১৩-১-৩৩-০, যাদব ৫-০-১২-৩, সিরাজ ৬-১-১৩-০)
ভারত ২য় ইনিংস: ৬০.৩ ওভারে ১৬৩ (রোহিত ১২, গিল ৫, পুজারা ৫৯, কোহলি ১৩, জাদেজা ৭, শ্রেয়াস ২৬, ভারত ৩, অশ্বিন ১৬, আকসার ১৫*, উমেশ ০, সিরাজ ০; স্টার্ক ৭-১-১৪-১, কুনেমান ১৬-২-৬০-১, লায়ন ২৩.৩-১-৬৪-৮, মার্ফি ১৪-৬-১৮-০)