January 21, 2022

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Wednesday, December 22nd, 2021, 7:56 pm

ঝুলেই রইলো আকরামের ‘ভাগ্য’

অনলাইন ডেস্ক :

দু’দিন ধরে বিসিবির ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের চেয়ারম্যান আকরাম খানের পদত্যাগ নিয়ে বিস্তর আলোচনা। যার শুরুটা হয়েছিল আকরামের স্ত্রী’র ফেসবুক স্ট্যাটাসের মাধ্যমে। মঙ্গলবার আকরাম জানিয়েছিলেন, বোর্ড সভাপতির সঙ্গে আলোচনা করেই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবেন। বুধবার (২২ ডিসেম্বর) বোর্ড সভাপতি জানিয়েছেন, আগামী ২৪ ডিসেম্বর নতুন কমিটি গঠন হবে, সেদিনই আকরামের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।বিসিবি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে গত অক্টোবরে। নির্বাচনের আড়াই মাস পার হয়ে গেলেও কার্যনির্বাহী কমিটি চূড়ান্ত হয়নি। আগের কমিটি দিয়েই দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন পরিচালকরা। বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান ঘোষণা দিয়েছিলেন, দায়িত্ব হস্তান্তর করার আগ পর্যন্ত আগের মতো যে যার দায়িত্ব পালন করবেন। সে হিসেবে ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের চেয়ারম্যানের দায়িত্ব সামলে যাচ্ছিলেন আকরাম। টানা ৬ বছর এই দায়িত্ব পালনের পর এখন পারিবারিক কারণে সরে যেতে চাইছেন। আকরামের পদত্যাগ নিয়ে বোর্ড সভাপতি বলেছেন, ‘এখানে কমিউনিকেশন গ্যাপ আছে। প্রথম কথা হচ্ছে, আমরা তো কমিটি গঠন করিনি। তাহলে এটা (দায়িত্ব) ছাড়বে কী? যেটা ছিল, সেটা শেষ। তারপর আবার ছাড়া যায় নাকি। বিষয়টা হচ্ছে, অন্তর্বর্তীকালীন সময়টায় আকরাম চালিয়ে যাচ্ছিল। আগামী ২৪ ডিসেম্বর নতুন কমিটি গঠন করবো, সেদিনই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হবে কে কোন কমিটি পাচ্ছে।’ ২০১৪ সালে নাজমুল হাসান পাপনের নেতৃত্বে নির্বাচিত কমিটিতে প্রথমবার ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের দায়িত্ব হাতে নেন আকরাম। পরের বছর অক্টোবরে সতীর্থ নাঈমুর রহমান দুর্জয়ের কাছে পদ হারান তিনি। এরপর ২০১৬ সালের ফেব্রুয়ারিতে ফের ওই পদ ফিরে পান। টানা ৬ বছর ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগে দায়িত্ব পালন করার পর এবার সরে দাঁড়াচ্ছেন সাবেক এই অধিনায়ক। কিছু দিন ধরে বাংলাদেশের পারফরম্যান্স নিয়েও অনেক প্রশ্ন উঠেছে। যার আঁচ লেগেছে আকরামের গায়েও। যদিও আকরাম খান পারিবারিক কারণেই এই পদ ছাড়ার কথা বলেছেন। তবে বোর্ড সভাপতি বলেছেন, আকরাম ক্রিকেট অপারেশন্স ছাড়তে চাইলেও অন্য কোনও বিভাগে দায়িত্ব নিতে অরাজি নন, ‘আমি গণমাধ্যমে শুনলাম যে ও (আকরাম) থাকতে চাচ্ছে না। আমি প্রথমে ভেবেছিলাম এই অন্তর্বর্তীকালীন সময়টায় থাকতে চাচ্ছে না। তারপর ওকে জিজ্ঞেস করলাম, ও বললো না। যেহেতু সে আট বছর ধরে ছিল, আর ক্রিকেট অপারেশন্সেও প্রচুর কাজ। সে মনে করছে এখানে যে পরিমাণ সময় দেওয়া দরকার, তার জন্য সেটা কঠিন হয়ে যাচ্ছে। তাই অন্য কোথাও দিলে তার কোনও আপত্তি নেই।’