September 29, 2022

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Friday, January 14th, 2022, 6:18 pm

ডিআরএস কান্ডে মারাত্মকভাবে ক্ষেপলেন কোহলি-রাহুলরা

অনলাইন ডেস্ক :

কেপ টাউনে চলমান ভারত-দক্ষিণ আফ্রিকার মধ্যকার টেস্ট সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ম্যাচের তৃতীয় দিন ডিসিশন রিভিউ সিস্টেমের (ডিআরএস) সিদ্বান্তে দারুনভাবে ক্ষুদ্ধ ভারতের খেলোয়াড়রা। ডিআরএসের একটি সিদ্বান্ত ভারতের বিপক্ষে যাওয়ায় কোনভাবেই সেটি মেনে নিতে পারেননি বিরাট কোহলি বাহিনী।
কেপ টাউনে জয়ের জন্য দক্ষিণ আফ্রিকাকে ২১২ রানের টার্গেট দেয় ভারত। সেই টার্গেটে ব্যাট হাতে নেমে ২০ ওভারে ১ উইকেটে ৫৮ রান তুলে তৃতদীয় দিন শেষ করে দক্ষিণ আফ্রিকা।
২১তম ওভারে দক্ষিণ আফ্রিকার অধিনায়ক ডিন এলগারের বিপক্ষে লেগ বিফোর আউটের আবেদন করেন ভারতের স্পিনার রবীচন্দ্রন অশি^ন। সেই আবেদনে সাড়া দিয়ে আউট দেন দক্ষিণ আফ্রিকার অন-ফিল্ড আম্পায়ার মারাইস এরাসমাস।
এতে রিভিউ নেন এলগার। রিভিউতে দেখা যায় বল উইকেটের উপর দিয়ে চলে যাচ্ছে। অথচ বল নিচের দিকেই ছিলো। কিন্তু টিভির সেই রিপ্লে দেখে এবং থার্ড আম্পায়ার আউট বাতিল করলে ক্ষোভে ফুঁসে উঠেন মাঠে থাকার ভারতের খেলোয়াড়রা।
স্টাম্প মাইকের কাছে গিয়ে ঝুঁকে ভারত অধিনায়ক কোহলি বলেন, ‘দারুণ ডিআরএস, খুব ভাল খেললে।’ তিনি আরও বলেন, ‘ শুধু বিপক্ষ নয়, নিজের দলের দিকেও দেখো, সবসময় লোককে ধরতে চাইছে।’
ভারতের সহ-অধিনায়ক লোকেশ রাহুল স্টাম্পের মাইকের কাছে গিয়ে বলেন, ‘গোটা দেশ খেলছে ১১ জনের বিপক্ষে।’
বোলার অশ্বিনের তীড় দক্ষিণ আফ্রিকার সম্প্রচারকারী সংস্থা সুপার স্পোর্টসের দিকে। ডানহাতি এই অফ স্পিনার বলেন, ‘সুপার স্পোর্টস অন্যভাবে জেতার পথ খোঁজা উচিত।’
টিভি রিপ্লে দেখে অবাক হয়েছেন আউট দেয়া এরাসমাসও। তিনি বলেন, ‘এটা অস্বাভাবিক।’ তার কথাও স্টাম্পের মাইকে শুনতে পাওয়া যায়।
দিনের খেলা শেষে ভারতের বোলিং কোচ পরশ মামব্রে বলেন, ‘আমরা সবাই দেখেছি কী ঘটেছে, আপনারাও দেখেছেন। বাকি বিষয়টা আমি ম্যাচ রেফারির উপর ছেড়ে দেব। এই বিষয়ে আমি কোনও মন্তব্য করবো না।’
সুপার স্পোর্টের পক্ষ থেকে পরবর্তীতে টুইট করে ডিআরএসের সেই ঘটনা নিয়ে ব্যাখ্যা দেয়া হয়। তারা জানায়, পিচে বাউন্স রয়েছে। এজন্যই বলের উচ্চতা বেশি ছিলো। এলগার সেজন্যই আউট হননি।
তবে ভারতীয় খেলোয়াড়দের এমন আচরণে হতাশ দক্ষিণ আফ্রিকার পেসার লুঙ্গি এনগিদি। ভারতের উপর ক্ষোভ ঝেড়ে এনগিদি বলেন, ‘এই ধরনের আচরণ প্রমাণ করে, তারা বিরক্ত হয়ে গিয়েছিল। বিপক্ষ দল সেটার সুযোগ নেয়। কখনোই খুব বেশি আবেগ প্রকাশ করে ফেলা উচিত নয়। তবে আমরা দেখলাম মাঠে আবেগ খুব বেশি ছিল। এটা বলে দেয় যে, তারা চাপ অনুভব করছে।’