October 2, 2022

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Wednesday, September 7th, 2022, 8:33 pm

তীব্র স্রোতে দৌলতদিয়া ফেরিঘাট এলাকায় ভাঙন, ৫ নম্বর ঘাট বন্ধ

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিযা ফেরিঘাট এলাকায় হঠাৎ ভাঙন দেখা দেয়ায় ৫ নম্বার ফেরিঘাট বন্ধ করেছে দিয়েছে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন (বিআইডব্লিউটিএ) কর্তৃপক্ষ। আরও তিনটি ঘাট ভাঙন ঝুঁকিতে রয়েছে বলে জানা গেছে।

পদ্মার পানি বৃদ্ধি এবং তীব্র স্রোতের কারণে মঙ্গলবার দুপুরের পর থেকে এই ভাঙন দেখা দেয়।

বুধবার সকালে সরেজমিন দেখা গেছে, দৌলতদিয়ার পাঁচটি ফেরি ঘাটের মধ্যে ভাঙনের কারণে ৫ নম্বর ঘাটের পন্টুন পাশে সরিয়ে রাখা হয়েছে। উক্ত ঘাটের নদীর পাড় জুড়ে আড়াআড়িভাবে ভাঙন দেখা দিয়েছে। এতে ঘাটের লোওয়াটার লেভেল, মিডওয়াটাল লেভেল ও হাইওয়াটার লেভেলের তিনটি ঘাটের সংযোগ সড়ক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এছাড়া ৩, ৪ ও ৬ নম্বর ঘাট ভাঙন ঝুঁকিতে রয়েছে। ভাঙন দেখা দেয়ায় ওই এলাকার স্থানীয় দোকানপাট ও হোটেলসহ অন্তত ১০টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান সরিয়ে নেয়া হয়েছে।

বিআইডব্লিউটিএর উপসহকারী প্রকৌশলী মো. শহিদুল ইসলাম বলেন, তৃতীয় দফায় পদ্মায় পানি বাড়ায় দৌলতদিয়া ঘাট এলাকায় তীব্র স্রোত দেখা দিয়েছে। স্রোতের কারণে দৌলতদিয়া লঞ্চঘাটসহ ৩, ৪ ও ৫ নম্বর ঘাটে সরাসরি পানি আঘাত হানছে। পানির স্রোতের ঘূর্ণিপাকের কারণে নদী পাড়ের তলদেশ থেকে মাটি ধসে যাচ্ছে। ধীরে ধীরে নিচ থেকে মাটি সরে যাওয়ায় ওপর থেকে পাড় ভেঙে যাচ্ছে। নদী ভরাট থাকায় আমরা সহজে কেউ বিষয়টি বুঝতে পারিনি।

তিনি বলেন, মঙ্গলবার দুপুরের পর ৫ নম্বর ফেরি ঘাটের অনেকটা জায়গা ভেঙে যায়। সন্ধ্যার পর পর্যন্ত দৌলতদিয়ার ৫ নম্বর ফেরি ঘাট এলাকার অন্তত ৫০ মিটারের বেশি এলাকা ভেঙে যায়। ভাঙনে লোওয়াটার, মিডওয়াটার এবং হাইওয়াটার লেভেলে তৈরি করা তিনটি ঘাটের সংযোগ সড়কের মাথা ক্ষতিগ্রস্ত হয়। ভাঙন ঠেকাতে তাৎক্ষণিকভাবে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের নির্দেশে বালুভর্তি জিওব্যাগ ফেলার কাজ শুরু হয়েছে। আপাতত ঘাটটি বন্ধ রাখা হয়েছে। পরিপূর্ণ ঠিক না হওয়া পর্যন্ত ঘাটটি চালু করা যাচ্ছে না।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন করপোরেশন (বিআইডব্লিউটিসি) আরিচা কার্যালয়ের উপমহাব্যবস্থাপক শাহ মো. খালেদ নেওয়াজ বলেন, পদ্মার পানি বাড়ায় নদীতে স্রোতের দেখা দিলেও দৌলতদিয়া ঘাটে খোর স্রোতের মাত্রা অনেক বেশি। যে কারণে সারারাস্তা আসার পর ফেরি ঘাটে ভিড়তেই তাদের অনেক বেগ পোহাতে হয়। ৫ নম্বর ঘাট ভাঙন ঝুঁকিতে থাকার বিষয়টি তাদের আগেই অবগত করা হয়েছিল।

—-ইউএনবি