November 29, 2022

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Saturday, October 15th, 2022, 1:14 pm

তুরস্কে কয়লা খনিতে বিস্ফোরণে নিহত ২৫

এপি, তুরস্ক :

তুরস্কের উত্তরাঞ্চলের একটি কয়লা খনিতে বিস্ফোরণে অন্তত ২৫ জন নিহত হয়েছেন। এসময় আরও কয়েক ডজন মানুষ খনিতে আটকা পড়েছেন। স্থানীয় সময় শুক্রবার সন্ধ্যা ৬টা ৪৫ মিনিটে কৃষ্ণ সাগরের উপকূলীয় প্রদেশ বারতিনের আমাসরা শহরে রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন টিটিকে আমাসরা মুসেসি মুদুরলুগু খনিতে এ বিস্ফোরণ ঘটে।

স্থানীয় সরকারি কর্মকর্তা বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এ ঘটনায় খনিতে আটকা পড়া মানুষদের খনি থেকে বাইরে আনতে উদ্ধারকর্মীরা রাতভর অভিযান চালিয়েছে।

জ্বালানি মন্ত্রী ফাতিহ ডনমেজ বলেন,প্রাথমিকভাবে জানা যায় যে বিস্ফোরণটি সম্ভবত ফায়ারড্যাম্পের কারণে হয়েছে। ফায়ারড্যাম্প হচ্ছে কয়লা খনিতে থাকা দাহ্য গ্যাস।

দুর্ঘটনাস্থল পরিদর্শনে আসা দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সুলেমান সোয়লু সাংবাদিকদের বলেন, বিস্ফোরণের সময় খনিতে ১১০ জন শ্রমিক ছিলেন।

মন্ত্রী জানান, বিস্ফোরণের পর অধিকাংশ শ্রমিককে সরিয়ে নেয়া হয়েছে। তিনি এখনও আটকা পড়াদের সংখ্যা নির্দিষ্ট করে বলেননি। তবে বলেছেন, ৪৯ জনের মধ্যে কয়েকজনকে নিরাপদে উদ্ধার করা হয়েছে।

তিনি বলেন, ‘আমরা এমন এক অবস্থার সম্মুখীন হয়েছি যে অনুশোচনা হচ্ছে। জনগণকে জানাতেও দুঃখ হচ্ছে।’

বার্টিনের গভর্নরের কার্যালয় জানায়, বিস্ফোরণে ২৫ জন নিহত হয়েছেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী ফাহরেটিন কোকা জানান, অন্তত ১৭ জন আহত হয়েছেন, যাদের মধ্যে আটজন নিবিড় পরিচর্যা ইউনিটে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন আছেন।

তুরস্কের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা সংস্থা এএফএডি জানিয়েছে, পার্শ্ববর্তী প্রদেশগুলোসহ বেশ কয়েকটি উদ্ধারকারী দলকে ওই এলাকায় পাঠানো হয়েছে।

প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোয়ান ঘোষণা করেন যে তিনি দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলীয় শহর দিয়ারবাকিরে পূর্বনির্ধারিত সফর বাতিল করছেন এবং উদ্ধার অভিযান সমন্বয়ের জন্য আমাসরা যাচ্ছেন।

তিনি বলেন,ঘটনার তদন্তে তিনজন প্রসিকিউটরকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।

এরদোয়ান এক বিবৃতিতে বলেন, ‘আমাদের আশা প্রাণহানি যেন আর না বাড়ে এবং আমাদের খনি শ্রমিকরা যেন রক্ষা পায়। আমরা সে লক্ষ্যেই সকল প্রচেষ্টা চালাচ্ছি।’

বেসরকারি সংবাদ সংস্থা ডিএইচএ জানিয়েছে, আটকে পড়া স্বজন, বন্ধু ও সহকর্মীদের খবর নিতে অসংখ্য মানুষ খনিতে ছুটে এসেছেন।

২০১৪ সালে সবচেয়ে ভয়ঙ্কর খনি বিপর্যয়ে পশ্চিম তুরস্কের সোমা শহরে একটি কয়লা খনিতে আগুনে ৩০১ জন মারা যান।