July 16, 2024

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Friday, February 9th, 2024, 7:58 pm

তুরাগতীরে বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব শুরু

গাজীপুরের টঙ্গীর তুরাগ নদীর তীরে শুরু হয়েছে তাবলীগ জামাতের ৫৭তম বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব।

শুক্রবার ফজর নামাজের পরে ভারতের মাওলানা ইলিয়াস বিন সাদের বয়ানের মধ্যে দিয়ে শুরু হলো এবারের বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব। এই বয়ান বাংলায় তরজমা করেন মাওলানা মনির বিন ইউসুফ।

দুপুর দেড়টায় জুমার নামাজের ইমামতি করবেন- মাওলানা ইউসুফ বিন সাদ। সকাল ১০টা থেকে তালিম বয়ান করবেন ভারতের মাওলানা ইলিয়াস। জুমার আগে ফাজায়েল বয়ান করবেন মাওলানা মনির বিন ইউসুফ। জুমার পরে বয়ান করবেন আরবের মাওলানা শেখ মোফলে। যা বাংলায় তরজমা করবেন মাওলানা শেখ আব্দুল্লাহ মনসুর।

এদিকে, আসরের পরে বয়ান করবেন বাংলাদেশের মাওলানা মোশাররফ। মাগরিবের পরে বয়ান করবেন ভারতের মাওলানা ইউসুফ বিন সাদ। বাংলায় তরজমা করবেন মাওলানা জিয়া বিন কাশেম।

তাবলীগ জামাত বাংলাদেশ নিজামুদ্দিনের মিডিয়া সমন্বয়কারী মোহাম্মদ সায়েম এসব তথ্য জানান।

এরই মধ্যে ইজতেমা ময়দান ও আশপাশের এলাকা মুসল্লিতে কানায় কানায় ভরে গেছে। সকাল পর্যন্ত ভারত, পাকিস্তান, সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত, সিরিয়া, তুরস্ক, আফগানিস্তান, যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্রসহ অর্ধ শতাধিক দেশের দুই হাজারের বেশি বিদেশি মেহমান ময়দানে তাদের জন্য নির্ধারিত অংশে উঠেছেন।

ময়দানে বয়ান, কারগুজারি, তাশকিল, তালিম, কুরআন তিলাওয়াত, জিকির-আসকার ও ইবাদত বন্দেগিতে মশগুল রয়েছেন তাবলীগের দেশি-বিদেশি মুসল্লিগণ।

এদিকে, ইজতেমা এলাকায় দায়িত্ব পালন করতে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর ৬ হাজারের বেশি সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। প্রথম পর্বের মতো এই পর্বেও জোরালো নিরাপত্তা ব্যবস্থা রয়েছে বলে জানিয়েছেন গাজীপুর মহানগর পুলিশ কমিশনার মো. মাহবুব আলম।

বৃহস্পতিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) রাত ৯টা পর্যন্ত ইজতেমায় আগত মোট ৬ জন মারা গেছেন। মিডিয়া সমন্বয়কারী মোহাম্মদ সায়েম জানান, বার্ধক্যজনিত ও অসুস্থতার কারণে তারা মারা যান।

তাদের মধ্যে ৪ জনের পরিচয় পাওয়া গেছে। তারা হলেন – জামালপুর জেলার ইসলামপুর থানার গোয়ালের চর গ্রামের ছবির উদ্দিনের ছেলে নবীর উদ্দিন (৬৫), শেরপুর সদরের রামকৃষ্ণপুর গ্রামের মৃত মোহাম্মদ মফিজ উদ্দিনের ছেলে মোহাম্মদ আবুল কালাম (৬৫), নেত্রকোণা জেলার কেন্দুয়া থানার কুতুবপুর গ্রামের মৃত মোহাম্মদ সুলতান উদ্দিনের ছেলে মো. আব্দুল হেলিম মিয়া (৬৫) ও দিনাজপুর জেলার নবাবগঞ্জ থানার শিবনগর গ্রামের ইউসুফ উদ্দিনের ছেলে মোহাম্মদ জহির উদ্দিন (৭০)।

বাকি দুজনের পরিচয় নিশ্চিত করা যায়নি।

—-ইউএনবি