December 3, 2021

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Sunday, May 30th, 2021, 1:14 pm

দ্বিতীয়বারের মতো ইউরোপসেরার মুকুট চেলসির

উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগে প্রথমবার ফাইনালে উঠে ম্যানসিটি। সুযোগ ছিল ইউরোপের সেরা হওয়ার। কিন্তু চ্যাম্পিয়ন হতে পারল না ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ চ্যাম্পিয়ন ম্যানচেস্টার সিটি। দুর্দান্ত খেলেও আরেক ইংলিশ ক্লাব চেলসির কাছে ১-০ গোলে হারতে হয়েছে পেপ গার্দিওলার শিষ্যদের। এ নিয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে দ্বিতীয়বারের মতো শিরোপা জিতে নিল চেলসি।

শনিবার রাতে পর্তুগালের পোর্তোতে উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগ ২০২০/২১ মৌসুমের ফাইনালে মাঠে নামে দুই ইংলিশ ক্লাব ম্যানচেস্টার সিটি এবং চেলসি। ম্যাচের শুরু থেকেই পেপ গার্দিওলার দল বল দখলে রাখে। তবে প্রতি-আক্রমণে ঠিকই সিটির রক্ষণকে পরীক্ষা নিচ্ছিল চেলসি। ম্যাচের ৮ মিনিটের মাথায় প্রথম সুযোগ আসে সিটির কাছে। এডারসনের বাড়ানো বল পেয়ে চেলসির ডি বক্সে ঢুকে পড়েন স্টার্লিং। সেখানে অবশ্য রিচ জেমস স্টার্লিংকে শট নিতে জায়গা না দেওয়ায় দুর্বল শট নিতে বাধ্য হয় এই স্ট্রাইকার। তার দুর্বল শট সহজেই ফিরিয়ে দেন চেলসি গোলরক্ষক মেন্ডি।

দুই মিনিট পরে দুর্দান্ত এক সুযোগ পান চেলসির জার্মান স্ট্রাইকার টিমো ভার্নার। মেসন মাউন্ট মাঠের বাঁ-প্রান্ত থেকে দুর্দান্ত এক বল বাড়ান ভার্নারের উদ্দেশ্যে তবে সহজ এই সুযোগও হাতছাড়া করনেন ভার্নার। এর মিনিট চারেক পরে আবারও আক্রমণে যায় চেলসি। এবার বেন চিলওয়েলের ক্রস সিটির রক্ষণ থেকে ফিরে আসলে বল পান হার্ভাটজ। বল পেয়েই সতীর্থ ভার্নারের উদ্দেশ্যে আবারও বল বাড়ান, এবার বল পেয়ে শটও নিয়েছিলেন এই স্ট্রাইকার তবে তা সহজেই রুখে দেন সিটি গোলরক্ষক এডারসন।

টানটান উত্তেজনার ম্যাচে সিটি প্রথম বড় সুযোগ তৈরি করে ম্যাচের ২৭তম মিনিটে। স্টার্লিংয়ের উদ্দেশ্যে দুর্দান্ত এক বল বাড়ান গুন্দোয়ান, সেখানে স্টার্লিং পাস করেন পেছনে থাকা ডি ব্রুইনের উদ্দেশ্যে। ডি ব্রুইনের কাছ থেকে পাস পেয়ে গোলের দিকেই এগোচ্ছিলেন ফোডেন। তবে সেখানে স্লাইডিং ট্যাকেলে বল কেড়ে নেন রুডিগার আর তা সহজে লুফে নেন চেলসি গোলরক্ষক।

খেলার সময় আধা ঘণ্টা পেরুতে না পেরুতেই চোট পান থিয়াগো সিলভা। এরপর তাকে তুলে আন্দ্রেয়াস ক্রিশ্চিয়ানসেককে নামান থমাস তুখেল। প্রথমার্ধের খেলা ঠিক যখনই গোলশূন্যের দিকে এগোচ্ছিল ঠিক তখনই গোল করে চেলসিকে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে নেন কাই হার্ভাটজ।

শেষ পর্যন্ত আর কোনো গোল না হওয়ায় কাই হার্ভাটজের করা একমাত্র গোলে ম্যানচেস্টার সিটিকে ১-০ ব্যবধানে হারিয়ে দ্বিতীয় বারের মতো ইউরোপসেরার মুকুট জয় করে চেলসি। ২০১১/১২ মৌসুমে বায়ার্ন মিউনিখকে হারিয়ে প্রথমবার চ্যাম্পিয়নস লিগ জেতে চেলসি।