February 8, 2023

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Friday, December 2nd, 2022, 8:08 pm

নক আউট পর্বের প্রথম ম্যাচে নেদারল্যান্ড বনাম যুক্তরাষ্ট্র

অনলাইন ডেস্ক :

আগামীকাল শনিবার থেকে শুরু হচ্ছে কাতার বিশ্বকাপের আসল উত্তেজনা, নক আউট পর্ব। গ্রুপ পর্ব শেষে ৩২ দল থেকে একে একে বিদায় নিয়ে এখন আছে ১৬টি দল। এখন বাকি ১৬টি দল লড়বে নক আউট পর্বে। শেষ ষোল দিয়ে শুরু হচ্ছে এই পর্ব। আগামীকাল শনিবার নক আউট পর্বের প্রথম ম্যাচে মোকাবেলা করলে গ্রুপ-এ’ চ্যাম্পিয়ন নেদারল্যান্ড ও গ্রুপ-বি’ রানার্স-আপ যুক্তরাষ্ট্র। খালিফা ইন্টারন্যাশনাল স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ সময় রাত ৯টায় ম্যাচটি শুরু হবে। লুইস ফন গালের দল নেদারল্যান্ড গ্রুপ পর্বে সেনেগাল, ইকুয়েডর ও স্বাগতিক কাতারকে টপকে শীর্ষস্থান লাভ করে। অন্যদিকে যুক্তরাস্ট্র গ্রুপ-বি’তে ইংল্যান্ডের পরে দ্বিতীয় স্থান নিয়ে নক আউট পবে এসেছে। গ্রুপ-এ’র বিজয়ী হিসেবে পরের রাউন্ডে যাবার ব্যাপারে নেদারল্যান্ডই ফেবারিট ছিল। এখানে কোন অঘটন হয়নি। তিন ম্যাচে সাত পয়েন্ট নিয়ে অরেঞ্জরা সমর্থকদের প্রত্যাশার প্রতিদান দিয়েছে। গ্রুপের তিন ম্যাচের প্রতিটিতেই গোল করে তরুণ স্ট্রাইকার কোডি গাকপো নেদারল্যান্ডের ইতিহাসে চতুর্থ খেলোয়াড় হিসেবে রেকর্ড গড়েছেন। কাতারের সাথে প্রথম ম্যাচে ২-০ গোলের জয় দিয়ে বিশ্বকাপ শুরু করেছিল ডাচরা। ফ্রেংকি ডি জংয়ের দলকে এরপর আর পিছনে ফিরে তাকাতে জয়নি। কাতার কোন জয় ছাড়া পয়েন্ট বিহীন ভাবে বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নিয়ে স্বাগতিক হিসেবে সবচেয়ে হতাশাজনক রেকর্ড গড়েছে। এবারের বিশ^কাপে নেদারল্যান্ডের খেলার কৌশল নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। এ পর্যন্ত প্রতিপক্ষের টার্গেটে মাত্র আটটি শট নিয়েছে নেদারল্যান্ড। কিন্তু ২০১০ সালের রানার্স-আপদের নিয়ে কোন দুঃশ্চিন্তা না করতে আশ^স্ত করেছেন কোচ ফন গাল। ১৯৩৪ সাথ থেকে যে কয়টি বিশ^কাপে খেলেছে নেদার‌্যলান্ড প্রতিটিতেই নক আউট পর্ব নিশ্চিত করেছে। শেষ ষোল থেকে গত ৩২ বছরে মাত্র দুইবার তাদের বিদায় ঘটেছে, ১৯৯০ ও ২০০৬ বিশ^কাপে। চেক প্রজাতন্ত্রের কাছে ২০০২ ইউরো’তে বিদায় ঘন্টা বাজার পর নেদারল্যান্ড শক্তিশালী দল হিসেবে আবির্ভূত হয়। সব ধরনের প্রতিযযোগিতায় টানা ১৮ ম্যাচে জয় ধরে রেখেছে ডাচরা। ফল গালের অধীনে বিশ^কাপে নেদারল্যান্ড ১১টি ম্যাচে পরাজিত হয়নি, যা মারিও জাগালোর সাথে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ সাফল্য। ১২ ম্যাচে অপরাজিত থেকে এই তালিকায় শীর্ষে রয়েছে ফিলিপ স্কোলারি। এদিতে যুক্তরাষ্ট্্র দারুন এক উজ্জীবিত দল হিসেবে নক আউট পর্বে খেলতে এসেছে। গ্রুপ পর্বে তাদের দাপুটে পারফরমেন্সে নেদারল্যান্ডকে বাড়তি সতর্কতা অবলম্বন করতেই হচ্ছে। দলের তারকা স্ট্রাইকার ক্রিস্টিয়ান পুলিসিচের একমাত্র গোলে শেষ ম্যাচে ইরানকে পরাজিত করে নক আউট পর্ব নিশ্চিত করে যুক্তরাষ্ট্র। ঐ গোল দিতে গিয়ে ইনজুরিতে পড়ে পুলিসিচকে হাসপাতালে পর্যন্ত যেতে হয়েছে। ম্যাচের ৩৮ মিনিটে পুলিসিচের গোলে ইরানের স্বপ্ন ভঙ্গ হয়। এই জয়ে ইংল্যান্ডের পরে দ্বিতীয় স্থানে থেকে পরের রাউন্ডে ওঠে যুক্তরাষ্ট্র। ২০১০ ও ২০১৪ বিশ^কাপেও যুক্তরাষ্ট্র শেষ ১৬’তে খেলেছে। ২০০২ সালের পর থেকে উয়েফার কোন দলকে বিশ^কাপে হারাতে পারেনি যুক্তরাষ্ট্র। এই সময়ে মধ্যে ইউরোপিয়ান দলের বিরুদ্ধে পাঁচটিতে পরাজিত ও ছয়টিতে ড্র করেছে। বিশ^কাপে এর আগে নক আউট পর্বে ইউরোপিয়ান দলগুলোর বিরুদ্ধে তিনটি নক আউট ম্যাচের কোনটিতেই জয়ী হতে পারেনি যুক্তরাষ্ট্র। ইরানের সাথে জয় ছিল সব ধরনের টুর্ণামেন্টে স্টার্স এ- স্ট্রাইপসদের ছয় ম্যাচে প্রথম জয়। এর মধ্যে নেদারল্যান্ডের সাথে চারটি প্রীতি ম্যাচেই পরাজিত হয়েছে। তবে ২০১৫ট সালে নেদারল্যান্ডকে ৪-৩ গোলে পরাজিত করেছিল যুক্তরাষ্ট্র। নেদারল্যান্ডের ডিফেন্ডার জেরেমি ফ্রিমপং শেষ ম্যাচে গোঁড়ালির ইনজুরিতে পড়লেও পরের দিন পূর্ণাঙ্গ অনুশীলনে ফিরেছেন। তবে রাইট-ব্যাতে ডেনজেল ডামফ্রাইসই মূল দলে খেলবেন। ফন গালের দলে কোন ইনজুরি শঙ্কা আপাতত নেই। মাথিস ডি লিট ও নাথান এ্যাকে যদি আজকের ম্যাচে হলুদ কার্ড পান তবে নেদারল্যান্ড কোয়ার্টাল ফাইনাল খেললে সেই ম্যাচে এই দুজনকে দলের বাইরে থাকতে হবে। পিএসভি আইন্দোভেনের গাকপো প্রথম ডাচম্যান হিসেবে বিশ^কাপে টানা চার ম্যাচে গোল করার দ্বারপ্রান্তে রয়েছেন। এদিকে পুলিসিচের পরিস্থিতি প্রতিদিনই পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। চেলসির এই এ্যাটাকার শনিবারের ম্যাচের জন্য পুরোপুরি ফিট আছেন বলে হাসপাতালের বিছানা থেকে সামাজিক যোগযোগ মাধ্যমে পোস্ট দিয়েছেন। গোঁড়ালির ইনজরির কারণে গ্রেগ বারহল্টারের যুক্তরাস্ট্রের পারছেন না জোস সার্জেন্ট। ওয়েস্ট ম্যাককিনির ফিটনেস নিয়েও কিছুটা দুঃশ্চিন্তায় রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।