March 3, 2024

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Thursday, February 23rd, 2023, 6:19 pm

নতুন পুলিশ ফাঁড়ি হচ্ছে কুলাউড়ার টিলাগাঁওয়ে

জেলা প্রতিনিধি, মৌলভীবাজার:

মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলার টিলাগাঁও ইউনিয়নে অপরাধ কর্মকান্ড রোধে নতুন পুলিশ ফাঁড়ি স্থাপনের ঘোষণা দিয়েছেন জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জাকারিয়া। ২৩ ফেব্রুয়ারী বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলার টিলাগাঁও ইউনিয়ন পরিষদ প্রাঙ্গণে কমিউনিটি পুলিশিং সভায় স্থানীয়দের দাবির প্রেক্ষিতে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ ঘোষণা দেন এসপি মোহাম্মদ জাকারিয়া।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মো: আব্দুল মালিকের সভাপতিত্বে ও টিলাগাঁও প্রবাসী সামাজিক সংগঠনের সমন্বয়ক সেলিম আহমদের সঞ্চালনায় সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (কুলাউড়া সার্কেল) দিপংকর ঘোষ, কুলাউড়া থানার অফিসার ইনচার্জ মো: আব্দুছ ছালেক, টিলাগাঁও প্রবাসী সামাজিক সংগঠনের সমন্বয়ক সৈয়দ আব্দুছ শহীদ, দৈনিক কালের কণ্ঠের প্রতিনিধি মাহফুজ শাকিল প্রমুখ।

স্থানীয়দের সাথে আলাপকালে জানা গেছে, টিলাগাঁও ইউনিয়ন উপজেলার দক্ষিণাঞ্চলের ৫টি ইউনিয়নের মধ্যবর্তী স্থান হওয়ায় এবং পার্শ্ববর্তী কমলগঞ্জ উপজেলা ও মৌলভীবাজার সদরের সাথে সহজে বিকল্প সড়কে যোগাযোগ ব্যবস্থা রয়েছে। এজন্য এ ইউনিয়নের বাঘেরটিকিসহ আশেপাশে বিভিন্ন বাড়িতে ডাকাতি সংঘটিত হয়। সীমান্ত থেকে পাচার করে নিয়ে এসে মাদক চোরাকারবারীরা দীর্ঘদিন ধরে নিরাপদ রুট হিসেবে টিলাগাঁও এলাকাকে ট্রানজিট পয়েন্ট হিসেবে ব্যবহার করে আসছে। উপজেলা শহর থেকে প্রায় ১৫-২০ কিলোমটিার দুরত্বে সীমান্তবর্তী হাজীপুর, শরীফপুর, কর্মধা, পৃথিমপাশা ও টিলাগাঁও ইউনিয়নের অবস্থান। এ জন্য পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছানোর আগেই অপরাধিরা অপরাধ কর্মকা- ঘটিয়ে পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়। রাতে টানা টহল দিতে পুলিশের অনেক বিড়ম্বনায়ও পড়তে হয়। এলাকার অপরাধ কর্মকা- রোধে স্থানীয় বাসিন্দা ও ওই এলাকার প্রবাসীদের দীর্ঘদিনে দাবি ছিলো একটি পুলিশ ফাঁড়ি স্থাপনের। বিষয়টি নিয়ে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মো. আব্দুল মালিকসহ এলাকার সচেতন মহল প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে দাবি জানান। বৃহস্পতিবার কমিউনিটি পুলিশিং সভায় প্রধান অতিথি জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জাকারিয়ার কাছে উপস্থিত বক্তারা পুলিশ ফাঁড়ি স্থাপনের গুরুত্ব তুলে ধরেন। এরই প্রেক্ষিতে পুলিশ সুপার ওই এলাকার ইউনিয়ন পরিষদের ভূমিতে অস্থায়ী একটি ফাঁড়ি স্থাপনের ঘোষণা দেন। এ ছাড়া আগামীতে সেখানে স্থায়ীভাবে পুলিশ ফাঁড়ি স্থাপনের জন্য সকল প্রয়োজনী পদক্ষেপ গ্রহণের আশ্বাস প্রদান করেন। স্থানীয় বাসিন্দা ও প্রবাসিদের সহযোগিতায় পুলিশ ফাঁড়ির জন্য গৃহ নির্মাণ করা হবে বলে জানান ইউপি চেয়ারম্যান মো. আব্দুল মালিক।