November 27, 2021

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Thursday, November 4th, 2021, 7:38 pm

নতুন মিশনে বাংলাদেশ ফুটবল দল

অনলাইন ডেস্ক :

মালদ্বীপে সাফের মিশন শেষ হয়েছে গত ১৩ অক্টোবর। সাফের ফাইনালে উঠতে পারেনি বাংলাদেশ ফুটবল দল। এবার আরেকটি মিশন নিয়ে শুক্রবার শ্রীলঙ্কা যাচ্ছে জামাল ভূইয়াদের বাংলাদেশ। সেখানে চারজাতি টুর্নামেন্ট শুরু হবে আগামী ৮ নভেম্বর। টুর্নামেন্টের নাম প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দ্র রাজাপাকসে ট্রফি। আমন্ত্রণমুলক টুর্নামেন্ট। প্রতিপক্ষ তিন দলই বাংলাদেশের চেনা জানা। শ্রীলঙ্কা এবং মালদ্বীপের বিপক্ষে সাফে খেলে এসেছে। আর সিশেলস নামের দেশটির সঙ্গে পরিচিত। কারণ সিশেলস ঢাকায় খেলেছে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টে। আগামী ৮ নভেম্বর সিশেলসের বিপক্ষে বাংলাদেশ প্রথম ম্যাচ খেলবে কলম্বোর রেসকোর্স আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে। বাংলাদেশের খেলা বিকেলে। আর রাতে স্বাগতিক শ্রীলঙ্কা ও মালদ্বীপ মুখোমুখি হবে। চার দলের খেলা শেষে শীর্ষ দুই দল ফাইনাল খেলবে। সাফে যেভাবে খেলা হয়েছিল শ্রীলঙ্কার টুর্নামেন্টেও একইভাবে ফাইনাল খেলবে। এখানে শুধু একটা দেশ কম খেলছে। বাংলাদেশ এই টুর্নামেন্টে ফাইনাল খেলার স্বপ্ন দেখছে। সাফে বসুন্ধরার স্প্যানিশ কোচ অস্কার ব্রুজন দায়িত্ব পালন করেছিলেন। তিনি আর থাকবেন না বলে আবাহনীর পর্তুগীজ কোচ মারিও লেমসকে খন্ডকালীন দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। সাফে খেলা দলের চেয়ে শ্রীলঙ্কায় যাওয়া দলটা কম শক্তিশালী। কারণ সোহেল রানা নেই, বিশ্বনাথ, মতিন মিয়া, বিপলু আহমেদ, তারিক কাজী যোগ দিতে পারেননি। কারো ইনজুরি, কেউ পারিবারিক কারণে আসতে পারেনি। কাজী তারিক পাসপোর্ট জটিলতায় আসতে পারেননি। মাসুক মিয়া জনিকে ডাকা হলেও তিনিও নাকি ইনজুরিতে। কোচ মারিও লেমস এসব ভুলে যা আছে তা নিয়েই লড়াই করতে চান। এতেই নাকি চ্যাম্পিয়ন হওয়ার রসদ খুঁজে পাবেন। পাওয়ার চেষ্টা করবেন। কোচ বলেছেন, ‘অন্যদের জন্য এটা সুযোগ। একটু টেনশন তো থাকবেই। কারণ, আগে আমি বাংলাদেশ জাতীয় দলের ফিটনেস কোচ হিসেবে এসেছিলাম। এবার মূল দলের হয়ে কাজ করবো। এখানে চ্যালেঞ্জ থাকবে।’ সাত দিন অনুশীলন করেছে ফুটবল দল। সবাইকে পায়নি। এখনো সবাই এক সঙ্গে নেই। কারণ, অনূর্ধ্ব-২৩ এশিয়ান কাপ ফুটবলে খেলতে একাধিক ফুটবলার গিয়েছিলেন উজবেকিস্তানে। সেখান থেকে তারা শুক্রবার শ্রীলঙ্কায় পৌছাবেন।
শ্রীলঙ্কা সফরে ২৪ ফুটবলারের স্কোয়াড: গোলকিপার আশরাফুল ইসলাম রানা, শহিদুল আলম সোহেল, আনিসুর রহমান জিকো। রক্ষণভাগে রেজাউল করি রেজা, তপু বর্মন, ইয়াসিন খান, হৃদয়, ইয়াসিন আরাফাত, টুটুল হোসেন বাদশা, রহমত মিয়া, রিয়াদুল হাসান, সুশান্ত কুমার ত্রিপুরা। মাঝমাঠে জামাল ভুইয়া (অধিনায়ক), সাদ উদ্দিন, রাকিব হোসেন, আতিকুর রহমান ফাহাদ, ওবায়দুর রহমান নবাব। আক্রমনে ইব্রাহিম, জুয়েল রানা, মেহেদী হাসান, সুমন রেজা, ফয়সাল হোসেন ফাহিম, মাহবুবুর রহমান সুফিল।
ম্যানেজার সত্যজিত সাদ রূপু, কর্মকর্তা ইমতিয়াজ হামিদ সবুজ, টিপু সুলতান, শওকত আলী খান জাহাঙ্গীর। হেড কোচ মারিও লেমস, সহকারি কোচ এসএম জাকারিয়া, মাসুদ পারভেজ কায়সার, গোলকিপার কোচ আতিকুর রহমান। ফিটনেস কোচ ইভান রাজলগ। মিডিয়া ম্যানেজার হাসান মাহমুদ। ডাক্তার ফুয়াদ হাসান হওলাদার। টিম এটেনডেন্ট মহসিন।
প্রধানমন্ত্রী রাজাপাকসে ট্রফি ফিকশ্চার
৮ নভেম্বর বাংলাদেশ-সিশেলস বিকাল ৪টা
মালদ্বীপ-শ্রীলঙ্কা রাত ৯টা
১১ নভেম্বর বাংলাদেশ-মালদ্বীপ বিকাল ৪টা
সিশেলস-শ্রীলঙ্কা রাত ৯টা
১৪ নভেম্বর মালদ্বীপ-সিশেলস বিকাল ৪টা
বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা রাত ৯টা
১৭ নভেম্বর ফাইনাল রাত ৯টা