May 27, 2022

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Tuesday, March 29th, 2022, 8:55 pm

নৌযান চলাচলের দুর্বল ব্যবস্থার কারণে আশঙ্কাজনক হারে বাড়ছে নৌ-দুর্ঘটনা

ফাইল ছবি

নিজস্ব প্রতিবেদক:

নৌযান চলাচলের দুর্বল ব্যবস্থার কারণে দেশে আশঙ্কাজনক হারে বাড়ছে নৌ-দুর্ঘটনা। কখনো বড় নৌযানের ধাক্কায় ছোট নৌযান ডুবছে, কখনো আবার চলন্ত নৌযানে অগ্নিকা-ের মতো দুর্ঘটনাও ঘটেছে। ফায়ার সার্ভিসের হিসাবে গত ৭ বছরে ৪ হাজার ১১৫টি নৌ-দুর্ঘটনা ঘটেছে। আর তাতে নিহত হয়েছে ৩ হাজার ৪৯৬ জন। ফায়ার সার্ভিস সংশ্লিষ্ট সূত্রে এসব তথ্য জানা যায়।
সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, দেশের প্রধান নদীগুলো ক্রমাগত যৌবন হারাচ্ছে। মরে বিলীন হয়ে যাচ্ছে শাখা নদী, উপনদীগুলো। সরকারি তথ্যেই নদ-নদীর সংখ্যা ৭০০ থেকে ৪০৫-এ নেমেছে। আর বেসরকারি তথ্যে ওই সংখ্যা আরো কম, মাত্র ২৩০টি। স্বাধীনতাকালে নৌপথ ছিল ২৪ হাজার কিলোমিটার থাকলেও এখন তা ৬ হাজার কিলোমিটারে নেমে এসেছে। আর শীতকালে নৌপথ আরো কমে হয় ৩ হাজার ৮২৪ কিলোমিটার। দেশে নৌপথে লঞ্চ, স্টিমার, কার্গো, ট্রলার, ফেরি নৌকা ও বার্জের মাধ্যমে বছরে প্রায় ৩০ লাখ টন পণ্য পরিবহন হয়।
সূত্র জানায়, নৌপথে যে কোনো দুর্ঘটনায় সবার আগে ফায়ার সার্ভিস সাড়া দেয়। সংস্থাটির হিসাবে- ২০২১ সালে নদীপথে দুর্ঘটনা ঘটেছে ৮৮৭টি এবং নৌযানে ১২৭টি অগ্নিদুর্ঘটনা ঘটেছে। সব মিলিয়ে গত বছর ১ হাজার ২২২টি দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছে ৬৪৪ জন। ২০২০ সালে করোনা অতিমারীর মধ্যে ১৯২টি নৌ-দুর্ঘটনায় প্রাণ হারিয়েছে ২০৯ জন। তাছাড়া ২০১৯ সালে ৮২০টি নৌ-দুর্ঘটনায় ৬৮৫ জন, ২০১৮ সালে ৫০৮টি দুর্ঘটনায় ৪২৬ জন, ২০১৭ সালে ৫৩০টি দুর্ঘটনায় ৬৪৩ জন, ২০১৬ সালে ৪২৫টি দুর্ঘটনায় ৪১০ জন ও ২০১৫ সালে ৪১৮টি দুর্ঘটনায় ৪৭৯ জন মারা গেছে।
এদিকে নৌ-দুর্ঘটনায় উদ্ধার অভিযানে নেতৃত্ব দেয়া কর্মকর্তাদের মতে, নৌপথে সাধারণত তিন ধরনের দুর্ঘটনা ঘটে থাকে। তার মধ্যে সবচেয়ে বেশি চলাচলের পথে একটি নৌযানের সঙ্গে আরেকটি নৌযানের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। তাছাড়া ধারণক্ষমতার অতিরিক্ত যাত্রী বহনের সময় নৌযানডুবির ঘটনা এবং চলন্ত নৌযানে অগ্নিকা-ের ঘটনা ঘটে। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই নৌযান চলাচলের অব্যবস্থাপনার কারণেই এমন দুর্ঘটনা ঘটে।
অন্যদিকে এ বিষয়ে ফায়ার সার্ভিসের একজন দায়িত্বশীর কর্মকর্তা জানান, নানা ধরনের অব্যবস্থাপনার কারণেই মূলত অধিকাংশই নৌযান দুর্ঘটনাগুলো ঘটে। বিশেষ করে কোন ধরনের নৌযান কোন নদীতে চলবে ওই বিষয়টি সঠিকভাবে নজরদারি করা হয় না। আবার কোন ধরনের চালক কোন শ্রেণীর নৌযান চালাবে সেটিও সঠিকভাবে নিয়ন্ত্রণ করা হয় না। ফলে প্রতিনিয়তই নৌ-দুর্ঘটনা ঘটছে।