September 27, 2022

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Friday, August 26th, 2022, 8:08 pm

নয়ডা টুইন টাওয়ার: ৯ বছরের মামলা, গুঁড়িয়ে যাবে ৯ সেকেন্ডে

অনলাইন ডেস্ক :

রিয়েল এস্টেট ফার্ম সুপারটেক লিমিটেডের তৈরি নয়ডা টুইন টাওয়ার কয়েক দিনের মধ্যে ভেঙে ফেলা হবে। কয়েক সপ্তাহ ধরে তা ভেঙে ফেলার প্রস্তুতি চলছে। অ্যাপেক্স এবং সিয়ান নামের টাওয়ার বিস্ফোরক দিয়ে সম্পূর্ণ ভেঙে ফেলা হবে। রোববার দুপুর ২.৩০এ পুরো ধ্বংস প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন হতে ৯ থেকে ১০ সেকেন্ড সময় নেবে। সংলগ্ন সোসাইটিগুলোর বাসিন্দাদের মধ্যে – এমারল্ড কোর্ট, এটিএস ভিলেজ এবং ধ্বংসকারী সংস্থা এডিফিস ইঞ্জিনিয়ারিং, নয়ডা পুলিশ, ফায়ার ডিপার্টমেন্টের প্রতিনিধিদের মধ্যে একটি বৈঠকে ধ্বংসের পরিকল্পনা চূড়ান্ত করা হয়। ১০০ মিটারের একটু বেশি উচ্চতার নয়ডা টুইন টাওয়ারগুলি আক্ষরিক অর্থে একটি তাসের ঘরের মতো ভেঙে পড়বে। পুরো কাজ ১৫ সেকেন্ডেরও কম সময়ে শেষ হবে বলে জানা গিয়েছে। এই ধ্বংস প্রক্রিয়া একটি নিয়ন্ত্রিত ইমপ্লোশন কৌশলের মাধ্যমে করা হবে যার জন্য ৩৭০০ কেজির বেশি বিস্ফোরক ব্যবহার করা হবে। জানা যাচ্ছে, এটি ভেঙে ফেলার পর ৫৫ হাজার টন ধ্বংসাবশেষ পরে থাকবে। এমারল্ড কোর্ট এবং এটিএস ভিলেজ সোসাইটিগুলিতে সর্বাধিক প্রভাব অনুভূত হবে বলে মনে করা হচ্ছে, যা ধ্বংসের স্থানের কাছাকাছি রয়েছে৷রিপোর্ট অনুযায়ী, সুপারটেক টুইন টাওয়ারের বেসমেন্ট থেকে উপরের তলা পর্যন্ত প্রায় ১০ হাজার গর্ত করা হয়েছে।ইতিমধ্যেই বিস্ফোরক চার্জ করা হয়েছে। বিস্ফোরকগুলির ‘চার্জিং’ হল টাওয়ারের কংক্রিটে ড্রিল করা ৯৪০০টি গর্তে ৩৭০০ কেজি বিস্ফোরক প্যাক করার যে প্রক্রিয়া তা সম্পন্ন হয়েছে। রিপোর্ট অনুযায়ী, অন্তত ১০০ জন শ্রমিক ধ্বংসকারী দলের অংশ হিসাবে কাজ করছে। প্রকল্পের কর্মকর্তাদের দ্বারা প্রস্তুত করা অনুমান অনুসারে, এপেক্স (৩২ তলা) এবং সিয়ান (২৯ তলা) ভেঙে ফেলার ফলে প্রায় ৩৫ হাজার ঘনমিটার ধ্বংসাবশেষ পরিষ্কার করা হবে এবং বিপুল পরিমাণ ধুলো চারিদিকে ছড়িয়ে পড়বে। নয়ডা কর্তৃপক্ষের মহাব্যবস্থাপক (পরিকল্পনা) ইশতিয়াক আহমেদ বলেছেন, ২১ হাজার কিউবিক মিটার ধ্বংসাবশেষ সরানো হবে এবং শহরের ওয়ার্ক সার্কেল সেভেন সীমার পাঁচ থেকে ছয় হেক্টর পরিমাপের বিচ্ছিন্ন জমিতে তা ফেলা হবে এবং অবশিষ্ট রাবিশ বেসমেন্ট এলাকায় স্থান পাবে। আঞ্চলিক দূষণ নিয়ন্ত্রণ বোর্ডের কাছ থেকে এই বিষয়ে একটি চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত আসবে যা একটি আঞ্চলিক দূষণ নিয়ন্ত্রণ বোর্ড পরীক্ষা করছে। ধ্বংসাবশেষ ব্যবস্থাপনার বিষয়ে এডিফিস ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের একটি রিপোর্ট পরীক্ষা করছে বলে আহমেদ জানিয়েছেন। এডিফিস ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের মতে, ধ্বংসের ফলে একটি ৬০ তলা বিল্ডিংয়ের মতো উচ্চতায় একটি ধুলোর বেলুন তৈরি হবে। তাই আশপাশের এলাকাকে দূষণ থেকে রক্ষা করার জন্য ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। এর আগে, অবৈধ নির্মাণের অভিযোগে নয়ডার এই টুইন টাওয়ার ভেঙে ফেলার নির্দেশ দেয় ভারতের সুপ্রিম কোর্ট।