September 29, 2022

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Tuesday, January 4th, 2022, 9:36 pm

পঞ্চম ধাপের ইউপি ভোট: ১৯ উপজেলায় সহিংসতার শঙ্কা, অতিরিক্ত বিজিবি মোতায়েন

ফাইল ছবি

নিজস্ব প্রতিবেদক:

পঞ্চম ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনের ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে বুধবার। এতে ১৯টি উপজেলায় সহিংসতার আশঙ্কার কথা জানিয়েছে মাঠ প্রশাসন। এজন্য সংশ্লিষ্ট উপজেলাগুলোতে মোতায়েন করা হচ্ছে অতিরিক্ত বিজিব ও র‌্যাব। নির্বাচন কমিশনের (ইসি) সূত্রগুলো জানিয়েছে, বিভিন্ন জেলা প্রশাসন থেকে ভোটের আগে-পরে ১৯টি উপজেলায় সহিংসতার আশঙ্কা করে সম্প্রতি অতিরিক্ত ফোর্স মোতায়েনের চাহিদাপত্র দিলে ইসি তাতে অনুমোদন দিয়েছে। এজন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতেও বলেছে। আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী মোতায়েনের ছক থেকে জানা গেছে, প্রতি উপজেলায় র‌্যাবের ২টি মোবাইল টিম ও একটি স্ট্রাইকিং টিম মোতায়েন রয়েছে। বিজিবির মোবাইল টিম রয়েছে ২ প্লাটুন ও ১ প্লাটুন সদস্য নিয়োজিত আছে স্ট্রাইকিং টিম হিসেবে। একই হারে কোস্ট গার্ডও মোতায়েন করা হয়েছে। ওই ১৯টি উপজেলার কোথাও অতিরিক্ত ২ প্লাটুন বিজিবি এবং কোথাও ১ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েনের সিদ্ধান্ত দিয়েছে ইসি। এ ছাড়া র‌্যাবের অতিরিক্ত টিমও মোতায়েন থাকছে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সচিবের কাছে বুধবার এ-সংক্রান্ত পত্রটি পাঠিয়েছেন ইসির নির্বাচন পরিচালনা শাখার উপ-সচিব মো. আতিয়ার রহমান। এতে অতিরিক্ত ফোর্স স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে মোতায়েন করার জন্য বলা হয়েছে। ইসি ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, ৫ জানুয়ারি দেশের ৪৮ জেলার ৯৫ উপজেলার ৭০৮টি ইউপিতে সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এর মধ্যে যেসব উপজেলায় অতিরিক্ত ফোর্স মোতায়েন করার সিদ্ধান্ত হয়েছে, সেগুলো হলোÑচাঁপাইনবাবগঞ্চ সদর (১ প্লাটুন বিজিব); সাতক্ষীরার আশাশুনি (১ প্লাটুন বিজিবি ও র‌্যাবের ২টি টিম), শ্যামনগর (১ প্লাটুন বিজিবি) ও কলারোয়া (১ প্লাটুন বিজিব ও র‌্যাবের একটি টিম); মুন্সিগঞ্জের গজারিয়া (২ প্লাটুন বিজিবি ও র‌্যাবের ২টি টিম); চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ (২ প্লাটুন বিজিবি ও র‌্যাবের ২টি টিম), হাইমচর (২ প্লাটুন বিজিবি ও র‌্যাবের ১টি টিম) ও কচুয়া (২ প্লাটুন বিজিবি ও র‌্যাবের ২টি টিম); সিরাগগঞ্জের কাজীপুর (১ প্লাটুন বিজিবি); জামালপুরের বকশীগঞ্জ (১ প্লাটুন বিজিবি ও র‌্যাবের ১ টি টিম) ও দেওয়ানগঞ্জ (১ প্লাটুন বিজিবি ও র‌্যাবের ১টি টিম); চট্টগ্রামের বোয়ালখালী (১ প্লাটুন বিজিবি ও র‌্যাবের ২টি টিম) ও চন্দনাইশ (১ প্লাটুন বিজিবি ও র‌্যাবের ২টি টিম); মানিকগঞ্জের হরিরামপুর (২ প্লাটুন বিজিবি) ও দৌলতপুর (১ প্লাটুন বিজিবি); ভোলা সদর (১ প্লাটুন বিজিবি ও র‌্যাবের ২টি টিম); হবিগঞ্জের মাধবপুর (১ প্লাটুন বিজিবি ও র‌্যাবের ২টি টিম) ও চুনারুঘাট (১ প্লাটুন বিজিবি ও র‌্যাবের ২টি টিম) এবং টাঙ্গাইলের ঘাটাইল (১ প্লাটুন বিজিবি)। ইতোমধ্যে নির্বাচনী এলাকায় আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা অবস্থান নিয়েছেন। কেন্দ্র পাহারায় পুলিশ, আনসারের সমন্বয়ে নিয়োজিত রয়েছে ২২ জনের ফোর্স। এছাড়া ভোটের এলাকায় পুলিশ, আনসার ও ব্যাটেলিয়ন আনসারের একটি করে টিম মোবাইল ফোর্স হিসেবে এবং প্রতি ইউপির জন্য ১টি করে টিম স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে দায়িত্ব পালন করছে। ইতোমধ্যে চার ধাপের ইউপি ভোট সম্পন্ন করেছে ইসি। আর পঞ্চম ধাপে আজ বুধবার সারাদেশের ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এদিন ৪৮ জেলার ৯৫টি উপজেলার ৭০৮ ইউপিতে ভোট নেওয়াা হবে। এর মধ্যে ৪০ ইউপিতে ভোট হবে ইভিএমে। এদিন সকাল ৮টা থেকে বিকেলে ৪টা পর্যন্ত টানা ভোটগ্রহণ হবে। যদিও ইতোমধ্যে তিনটি পদে সারাদেশের ১৯৩ জন প্রার্থী বিনা ভোটে নির্বাচিত হয়েছেন। এ ব্যাপারে ইসির যুগ্ম সচিব আসাদুজ্জামান বলেন, বুধবার পঞ্চম ধাপে ৭০৮ ইউপিতে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। ইতোমধ্যে নির্বাচন কমিশন নির্বাচনের যাবতীয় প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে। এই নির্বাচনে মোট ভোটার রয়েছে ১ কোটি ৪২ লাখ ২০ হাজার ১৯৫ জন। বিভিন্ন পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ৩৬ হাজার ৪৫৭ জন প্রার্থী। এর মধ্যে চেয়ারম্যান পদে ৩ হাজার ২৭৪, সংরক্ষিত আসনে ৭ হাজার ৯৫০ ও সাধারণ সদস্য পদে ২৫ হাজার ২৩৩ জন। তিনি বলেন, ভোট গ্রহণের জন্য সবধরনের প্রস্তুতি শেষ হয়েছে। ভোটার সামগ্রী কেন্দ্রে কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে। পঞ্চম ধাপে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছে ১৯৩ জন প্রার্থী। এদের মধ্যে চেয়ারম্যান পদে ৫২জন, সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে ৩২ জন এবং সাধারণ সদস্য পদে ১০৯ জন। ইসি সূত্র জানায়, ইতোমধ্যে নির্বাচনি এলাকায় মোটরসাইকেল চলাচল নিষিদ্ধ করা হয়েছে। গত সোমবার দিবাগত রাত ১২টা থেকে শুরু হয়ে আগামীকাল বৃহস্পতিবার সকাল ৬টা পর্যন্ত ৫৪ ঘণ্টার জন্য এই নিষেধাজ্ঞা বলবৎ থাকবে। এ ছাড়া গত সোমবার মধ্যরাত থেকে এসব নির্বাচনি এলাকায় প্রচারণাও বন্ধ হয়েছে। আইন অনুযায়ী, ভোটগ্রহণ শুরুর ৩২ ঘণ্টা পূর্বে নির্বাচনি প্রচার কাজ বন্ধ করতে হয়। ইসি উপসচিব মো. আতিয়ার রহমান জানান, মোটরসাইকেলের পাশাপাশি মঙ্গলবার (৪ঠা জানুয়ারী) মধ্যরাত (রাত ১২টা) থেকে আজ বুধবার রাত ১২টা পর্যন্ত সবধরনের যন্ত্রচালিত যান চলাচলও বন্ধ থাকবে। ইসির অনুমোদান নেওয়া গাড়ি এই সংক্রান্ত নির্দেশনার বাইরে থাকবে। এইজন্য জেলা প্রশাসনের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়কে সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের জন্য নির্দেশ দিয়েছে কমিশন। রিটার্নিং অফিসারের অনুমতি সাপেক্ষে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী/তাঁদের নির্বাচনি এজেন্ট, দেশি/বিদেশি পর্যবেক্ষকদের (পরিচয়পত্র থাকতে হবে) ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা শিথিলযোগ্য। এছাড়া নির্বাচনের সংবাদ সংগ্রহের কাজে নিয়োজিত দেশি/বিদেশি সাংবাদিক (পরিচয়পত্র থাকতে হবে), নির্বাচনের কাজে নিয়োজিত কর্মকর্তা-কর্মচারী, আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য, নির্বাচনের বৈধ পরিদর্শক এবং কতিপয় জরুরি কাজ যেমন- অ্যাম্বুলেন্স, ফায়ার সার্ভিস, বিদ্যুৎ, গ্যাস, ডাক, টেলিযোগাযোগ ইত্যাদি কার্যক্রমে ব্যবহারের জন্য যানবাহন চলাচলের ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা প্রযোজ্য হবে না। অন্যদিকে, জাতীয় মহাসড়ক, বন্দর ও জরুরি পণ্য সরবরাহসহ অন্যান্য জরুরি প্রয়োজনে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ এরূপ নিষেধাজ্ঞা শিথিলের বিষয়ে প্রয়োজনীয় কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারবেন। ইসি সূত্র জানায়, চলমান ইউপি নির্বাচনে ইতোমধ্যে চার ধাপের ভোটগ্রহণ শেষ হয়েছে। গত ২১ জুন ও ২০ সেপ্টেম্বর প্রথম ধাপের দুই দফায় ৩৬৯টি এবং ১১ নভেম্বর দ্বিতীয় ধাপে ৮৩৩টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এছাড়াও ২৮ নভেম্বর তৃতীয় ধাপে এক হাজার ইউপিতে এবং চতুর্থ ধাপে ২৬ ডিসেম্বর ৮৩৬ ইউপিতে ভোট হয়েছে। এছাড়াও আগামী ৩১ জানুয়ারি ষষ্ঠ ধাপে ২১৯ ইউপিতে, সপ্তম ও শেষ ধাপে ১৩৮ ইউপিতে ৭ ফেব্রুয়ারি ভোট অনুষ্ঠিত হবে।