December 6, 2021

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Thursday, November 11th, 2021, 8:24 pm

পরিবেশবান্ধব পরিবহন ব্যবস্থাপনায় ২০০ মিলিয়ন ডলার দেবে বিশ্বব্যাংক

ফাইল ছবি

অনলাইন ডেস্ক :

গ্লাসগোর ওয়ার্ল্ড লিডার সামিটে ৩০টি দেশ পরিবহন ব্যবস্থাপনায় কার্বন নিঃসরণ না করার অঙ্গীকার করেছে। এসব দেশে পরিবেশবান্ধব পরিবহন ব্যবস্থাপনা গড়তে ২০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার অর্থায়ন করবে বিশ্বব্যাংক। গত বুধবার স্কটল্যান্ডের গ্লাসগোর স্কটিশ ইভেন্ট সেন্টারে জাতিসংঘের জলবায়ু সম্মেলনে ৩০টি দেশ এ অঙ্গীকার করে। কপ সম্মেলনের সভাপতি ব্রিটিশ মন্ত্রী অলোক শর্মাসহ বিশ্ব নেতারা এ সময় উপস্থিত ছিলেন। অঙ্গীকার করা দেশগুলো নিজস্ব অঞ্চলে বাসযোগ্য, সাশ্রয়ী এবং টেকসই করে শূন্য কার্বন নির্গমনকে প্রধান্য দেওয়ার কথা বলেছে। এ ছাড়া তারা এসব পরিবহন ব্যবস্থাপনা ছড়িয়ে দেওয়ার জন্য একসঙ্গে কাজ করতেও সম্মত হয়েছে। বেশ কয়েকটি দেশ বিশেষ করে ভারত, রুয়ান্ডা, কেনিয়া তাদের উদীয়মান বাজার ব্যবস্থাপনায় এমন পরিবহন ব্যবস্থাপনা গড়ে তুলবে বলে জানিয়েছে। সম্মেলনে বিশ্বব্যাংক ২০০ মিলিয়ন জলবায়ু ট্রাস্ট ফান্ড ঘোষণা করেছে, যা আগামী ১০ বছরে উদীয়মান বাজার এবং উন্নয়নশীল অর্থনীতি মজবুত করতে সড়ক পরিবহন পরিবেশবান্ধব করা হবে। এ লক্ষ্যে ২০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার ব্যয় করবে বিশ্বব্যাংক। এ লক্ষ্যটি বাস্তবায়নে জিরো এমিশন ভেহিকেল ট্রানজিশন কাউন্সিলকে (জিইভিটিসি) নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। এটা বাস্তবায়ন করতে সংশ্লিষ্ট প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। উদীয়মান বাজার এবং উন্নয়নশীল অর্থনীতির পরিবর্তনের জন্য পাশে থাকবে বিশ্বব্যাংক। এ ছাড়া কীভাবে আন্তর্জাতিক সহযোগিতা বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে দেওয়া যায় সে বিষয়ে আলোচনা হয়। জিইভিটিসি তার প্রথম বার্ষিক অ্যাকশনপ্ল্যান চালু করবে, যা ২০২২ সালে রুপ দিতে কাজ করা হবে। এটা টেকসই করতে আন্তর্জাতিক সহযোগিতার জন্য ক্ষেত্র নির্ধারণ করা হবে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র জিইভিটিসি এর সহ-সভাপতি হিসেবে যুক্তরাজ্যের সঙ্গে যোগ দিয়েছে। সম্মেলনে জানানো হয়, ১৯টি দেশ ‘গ্রিন শিপিং করিডোর’ চালু করবে। যাতে দুটি বন্দরের মধ্যে শূন্য কার্বন নির্গমন শিপিং রুট প্রতিষ্ঠা করা যায়। জলবায়ু পরিবর্তন করে না এমন জাহাজ প্রযুক্তি স্থাপন করা হবে। বন্দরগুলোতে বিকল্প জ¦ালানি এবং ইলেকট্রিক চার্জিং পরিকাঠামো স্থাপন করা হবে, যাতে করে সারা বিশ্বে মূল রুটে শূন্য কার্বন নির্গমন শিপিং ব্যবস্থাপনা গড়ে তোলা যায়। এদিকে যুক্তরাজ্য ২০৩৫ থেকে ২০৪০ সালের মধ্যে ডিজেল ট্রাক বিক্রি বন্ধ করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। পাশাপাশি পরিবেশবান্ধব ট্রাক ব্যবস্থাপনার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে দেশটি। পরিবহনে ডিজেলের পরিবর্তে ইলেকট্রিক ব্যবস্থাপনা গড়ে তোলা হবে বলেও জানানো হয়েছে।