January 21, 2022

The New Nation | Bangla Version

Bangladesh’s oldest English daily newspaper bangla online version

Friday, December 31st, 2021, 8:26 pm

পাবনায় আ’লীগ নেতা শামীম হত্যা মামলার অন্যতম আসামী সাবেক চেয়ারম্যান নিলু খাঁ অস্ত্র ও গুলিসহ গ্রেপ্তার

জেলা প্রতিনিধি, পাবনা:

পাবনা সদরের হেমায়েতপুর ইউনিয়নের নাজিরপুরে ইউপি নির্বাচনোত্তর পরবর্তী সহিংসতায় স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতা শামীম হোসেনকে (৪০) গুলি করে হত্যা মামলার অন্যতম প্রধান আসামী সাবেক চেয়ারম্যান তারিকুল ইসলাম ওরফে নিলু খাঁকে (৬৯) গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব-১২ সদস্যরা।
র‌্যাব-১২ সিপিসি-২ পাবনা ক্যাম্পের ভারপ্রাপ্ত কোম্পানী কমান্ডার কিশোর রায় এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১০ টার দিকে ঈশ্বরদী উপজেলার ফতেহ মোহাম্মদপুর এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।
সে হেমায়েতুর ইউনিয়নের নাজিরপুর হাটপাড়া এলাকার মৃত আব্দুল হামিদ খাঁর ছেলে ও হেমায়েতপুর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান এবং সদ্য সমাপ্ত হওয়া ইউপি নির্বাচনে আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী হয়ে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করে পরাজিত হন।
র‌্যাব জানায়, গোপন সংবাদে জানতে পারে জেলার ঈশ^রদী উপজেলার ফতেহ মোহাম্মদপুর এলাকায় চাঞ্চল্যকর আওয়ামীলীগ নেতা শামীম হোসেন হত্যা মামলার অন্যতম প্রধান আসামী তারিকুল ইসলাম ওরফে নিলু খাঁ অবস্থান করছেন। এ তথ্যের ভিত্তিত্বে র‌্যাব সদস্যরা সেখানে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করে। এ সময় তার দেয়া স্বীকারোক্ত মোতাবেক রাত সোয়া বারোটায় জেলা সদরের চরপ্রতাপপুর গ্রামে জনৈক ইন্তাজ আলী মালিথার বাড়ির সামনে একটি খড়ের পালার নীচে লুকিয়ে রাখা একটি বিদেশী পিস্তল, ২ টি ম্যাগজিন, ১১ রাউন্ড গুলি, ১টি মোবাইল ফোন, একটি সীমকার্ড ও নগদ ৩১০০ টাকা উদ্ধার করা হয়।
র‌্যাব আরও জানায়, গ্রেপ্তারকৃত তারিকুল ইসলাম ওরফে নিলু খাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে পাবনা সদর থানায় অস্ত্রসহ হস্তান্তর করা হয়েছে।

এর আগে একই মামলায় পুলিশ বৃহস্পতিবার ভোররাতে প্রধান আসামী তারিকুল ইসলাম ওরফে নিলু খার স্ত্রী মালেকা বেগমকে গ্রেপ্তার করা হয়। বুধবার রাতে নিহত শামীমের বাবা নুর আলী বাদী হয়ে নিলু পরিবারের ১৬ সদস্যের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত ৮/১০ জনকে আসামী করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

উল্লেখ্য, গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় পাবনা সদরের হেমায়েতপুর ইউনিয়নের নাজিরপুর হাটের উপর আওয়ামীলীগের নৌকা প্রতীকের পরাজিত প্রার্থী মঞ্জুরুল ইসলাম মধু কর্মি-সমর্থকদের সাথে আলোচনা করছিলেন। এ সময় আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী পরাজিত প্রার্থী তারিকুল ইসলাম নিলু খা ও তার ছেলে ইমরান খাসহ বেশ কিছু সশস্ত্র দূর্বৃত্তরা হামলা চালিয়ে এলোপাথারী গুলি চালায়। এ সময় ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের প্রচার সম্পাদক শামীম হোসেন গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যায়।